মনোহরগঞ্জে ডিজিটাল সেন্টারের উদ্যোক্তাদের ক্ষোভ প্রকাশ : ডিজিটাল মেলা ও ইন্টারনেট সপ্তাহের প্রথম দিন উদ্বোধন ছাড়াই শেষ

আকবর হোসেন, মনোহরগঞ্জ প্রতিনিধি:—
গত ৫ সেপ্টেম্বর থেকে সারা বাংলাদেশে একযোগে “বাংলাদেশ ইন্টারনেট সপ্তাহ-২০১৫” উপলক্ষ্যে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে ডিজিটাল মেলা ও ইন্টারনেট সপ্তাহ শুরু হয়েছে। এরই অংশ হিসেবে কুমিল্লার মনোহরগঞ্জ উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে রবিবার তিনদিন ব্যাপী ডিজিটাল মেলা ও ইন্টারনেট সপ্তাহ মনোহরগঞ্জ স্কুল এন্ড কলেজের প্লাড সেন্টারে শুরু হয়ে ৩ ঘন্টায় শেষ হয়ে যায়। এ উপলক্ষ্যে উপজেলার ১১টি ইউনিয়নের ডিজিটাল সেন্টারের উদ্যোক্তাদের সমন্বয়ে ৩টি স্টল, উপজেলা প্রশাসনের ১টি স্টল, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের উদ্যোগে ১টি, প্রাথমিক শিক্ষা অফিসের উদ্যোগে ১টি, মনোহরগঞ্জ গ্রামীনফোন ইন্টারনেট পয়েন্টের উদ্যোগে ১টি সহ মোট ৭টি প্রদর্শনী স্টল স্থাপন করা হয়েছে। কিন্তু এ ডিজিটাল মেলা উদ্বোধন ছাড়া শুরু হয়ে ৩ ঘন্টার আগেই শেষ হয়ে যায়। ডিজিটাল সেন্টারের উদ্যোক্তাদের সাথে কথা বলে জানা যায়, উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে তারা ৩টি স্টল স্থাপন করেন। কিন্তু তারা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার সহ কোন প্রশাসনিক কর্মকর্তাই এ ডিজিটাল মেলার উদ্বোধন না করায় আমাদের স্টলগুলোতে ইন্টারনেটের ব্যবহার নিয়ে কোন ভালো প্রদর্শনী করতে পারিনি। তারা জানান, প্রশাসনিক কর্মকর্তাদের অনুপস্থিতিতে এ ধরনের কর্মকান্ডে উদ্যোক্তরা তাদের আগ্রহ হারিয়ে ফেলে। তারা ইউনিয়ন ভিত্তিক বিভিন্ন কর্মকান্ডের উপর প্রদর্শনী দেখিয়েছে উপস্থিত দর্শকদেরকে। ডিজিটাল মেলা ও ইন্টারনেট সপ্তাহের প্রথম দিন উপস্থিত ছিলেন মনোহরগঞ্জ উপজেলা ডিজিটাল ফোরামের সভাপতি ও ঝলম উত্তর ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারের উদ্যোক্তা আবদুল করিম, উপজেলা ডিজিটাল ফোরামের সাধারণ সম্পাদক ও ঝলম দক্ষিণ ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারের উদ্যোক্তা দিলীপ কুমার ভৌমিক, উপজেলা ছাত্রলীগের উপদপ্তর সম্পাদক আমির হোসেন, বাইশগাঁও ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারের উদ্যোক্তা আবু নোমান, সরশপুর ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারের উদ্যোক্তা সাজিদুল ইসলাম, হাসনাবাদ ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারের উদ্যোক্তা মনির হোসেন, মৈশাতুয়া ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারের উদ্যোক্তা ঝুটন ভট্টাচার্য, লক্ষণপুর ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারের উদ্যোক্তা অহিদুল্লাহ জয়, উত্তর হাওলা ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারের উদ্যোক্তা ওমর ফারুক, খিলা ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারের উদ্যোক্তা আবদুল হালিম, নাথেরপেটুয়া ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারের উদ্যোক্তা আবু নওশাদ, বিপুলাসার ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারের উদ্যোক্তা আবদুল আহাদ।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...