শিশু অর্ণব জানে না ওর বুকের ভিতর কী অসুখ!

স্টাফ রিপোর্টার :–
অর্ণব। মাত্র ১৩ মাসের ফুটফুটে ছোট শিশু। মা-ফারজানা আক্তার শিখা আর বাবা ইকবাল হোসেন। কুমিল্লার মোগলটুলীর শাহসুজা মসজিদ রোডে ছোট্ট একটি বাসায় হাসি খুশি মন নিয়ে মেতে আছে অর্ণব। ও জানে না-ওর বুকের ভিতর কী অসুখ।
জন্মের পর থেকেই অসুস্থ। মাত্র ৩ মাসের মাথায় ধরা পড়লো ওর হৃদপিন্ডের রক্ত নালী বন্ধ অবস্থায় আছে। যে কোনো দিন, যে কোনো মুহূর্তে এই অবুঝ শিশুটি মারা যেতে পারে। ডাক্তার তাই-ই বললো। অর্ণবের মা বললো, ৩ মাস বয়সে ওর নিউমনিয়া ধরা পড়লো। তখন কুমিল্লার মেডিনোভাতে ডাক্তার হাফিজউদ্দিন কে দেখানো হলো। ডাক্তার উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় ভালো কোনো শিশু বিশেষজ্ঞ দেখাতে বললেন। এরপর ল্যাব এইডের (ব্রিগেঃ জেনারেল) নুরুন নাহার ফাতেমা অর্ণবকে সম্পূর্ণ পর্যবেক্ষণের শেষে বললেন অন্য কথা। অর্ণবের হৃদপিন্ডের রক্ত চলাচল অনেকটাই বন্ধ। ওর কার্ডিয়াক সার্জারীর মধ্যে বাইপাস করে বাঁচানো সম্ভব। এই বাইপাস অপারেশন বাংলাদেশে সম্ভব না। ভারতে এর চিকিৎসা সম্ভব। আর তাতে ব্যয় হবে প্রায় ৫/৬ লাখ টাকা মতো।
এতো টাকা দিয়ে গরীব বাবা-মা’র পক্ষে অর্ণবের চিকিৎসা করে বাচানো সম্ভব নয়। এর জন্য চাই মানবিক আর্থিক সাহায্যের। অর্ণবের বাবা ইকবাল হোসেন ঢাকার অটবী ফার্ণিচার দোকানের ক্ষুদ্র সেলস ম্যানের চাকুরী করেন। তার পক্ষে কোনো ভাবেই সম্ভব না এতো ব্যয়বহুল চিকিৎসার ভার বহন করা। ডাক্তার বললেন, আগামী ৩ মাসের মধ্যে এই সার্জারী না করালে অর্ণবকে বাচানো কষ্ট হবে। তার শরীরের হাত পা গুলো অনেকটাই এখন নীল বর্ণের আকার ধারণ করেছে। এটা খুবই অশুভ লক্ষণ বলে ডাক্তার মন্তব্য করলেন। ইকরাম হোসেন অর্ণব এক সুন্দর পৃথিবীর আলো বাতাসের মাঝে বুক ভরে নিঃশ্বাস নিতে চায়। বাচতে চায় অন্য ১০ টা শিশুর মতো। আমাদের দেশে অভাগা শিশুদের জীবনের নিশ্চয়তা কেউ দিতে পারে না। গরীব মা বাবারা ঢুকরে ঢুকরে কেঁদে ফিরেন নিজের সন্তানের জন্য। ফারজানা আক্তার তার এক মাত্র পুত্র সন্তান অর্ণবকে বাঁচাতে চোখে মুখে কোনো ভাষা খুজে পান না। শুধু এক মাত্র আল্লাহর উপর নির্ভর করে পথ গুণছেন। ৩ মাসের মধ্যে ১ মাস দেখতে দেখতে চলে গেলো। অথচ চিকিৎসা সেবার জন্যে ঔষধ কেনার একটি টাকাও কেউ হাত বাড়িয়ে দেয়নি।
অর্ণবকে বাঁচাতে সাহায্যের প্রয়োজন। তার মা ফারজানা আক্তার শিখার মোবাইল নাম্বার ০১৯৬৬৪৮৫১১৫- নাম্বারে হয়তো ফোন করলে পুরো বিষয়টি জানা সম্ভব। ঢাকা ব্যাংক একাউন্ট নম্বর ০৭১২০০১৫৬৩১ ও ০৭১২০০০০০০০১৫৬৩১।আর তাই কোনো হৃদয়বান মানুষ অর্ণবকে বাঁচাতে যদি আর্থিক সাহায্যে করতে হাত বাড়ান তা হলে তার গোটা পরিবার ঋণী হয়ে থাকবে। সাহায্য পাঠানোর জন্য বিকাশ নম্বর- ০১৯৫৭-৩২৮৮৩২।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...