কুমিল্লায় বন্দুকযুদ্ধে শীর্ষ সন্ত্রাসী জিরা সুমন নিহত,গুলি ও অস্ত্র উদ্ধার, আটক ৪

সৌরভ মাহমুদ হারুন :–
কুমিল্লায় শীর্ষ ছিনতাইকারী জিরা সুমন গুলিবিনিময়ে নিহত হয়েছে। বুধবার (২ সেপ্টেম্বর) রাত ২টার দিকে জেলার আদর্শ সদর উপজেলার পালপাড়া ব্রিজের নিকট এ ঘটনা ঘটে। গুলি বিনিময়ে এএসপি আলী আশরাফ ভূঁইয়াসহ পুলিশের ৫ সদস্য আহত হয়। ঘটনাস্থল থেকে জামাল, সহিদ, স্বপন ও জাকির নামে জিরা সুমনের ৪ সহযোগীকে আটক করা হয়েছে। তাদের নিকট থেকে থেকে ১টি পিস্তল, ৫ রাউন্ড গুলি এবং ৩টি এলজি উদ্ধার করা হয়েছে।
ডিবির এসআই শাহ কামাল আকন্দ জানান, কুমিল্লার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আলী আশ্রাফের নেতৃত্বে ডিবির একটি টিম ব্রাহ্মণপাড়া থেকে অভিযান চালিয়ে শহরে ফেরার পথে কুমিল্লা-বুড়িচং সড়কের পালপাড়া ব্রিজের নিকট জিরা সুমন তার সহযোগীরা ডাকাতির উদ্দেশ্যে পুলিশের গাড়ি লক্ষ্য করে গুলি চালায়। এ সময় পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। এতে গুলিবিদ্ধ হয়ে জিরা সুমন আহত হয়। তাকে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল নেয়ার পর তার মৃত্যু হয়। নিহত জিরা সুমন নগরীর অশোকতলা এলাকার শাহজাহান সাজুর ছেলে।
উল্লেখ্য- গত বছরের ৬ নভেম্বর দুপুরে কুমিল্লা মহানগরীর ঝাউতলায় জিরা সুমনকে আটক করতে গিয়ে গুলিতে আহত হন ডিবির এসআই ফিরোজ হোসেন। এ সময় জিরা সুমনের বাহিনী এসআই ফিরোজের সরকারি পিস্তল লুটে নেয়। পরে ৯ নভেম্বর সকালে সদর উপজেলার আলেখারচর এলাকায় জিরা সুমনের সহযোগীদের আটক করতে গিয়ে ডিবি পুলিশের সাথে সন্ত্রাসীদের গুলিবিনিময়ের সময় নিহত হয় জিরা সুমনের সহযোগী তালিকাভূক্ত সন্ত্রাসী রাব্বী ও জনি। এ ঘটনার পর থেকে জিরা সুমনকে আটক করতে ডিবি ও থানা পুলিশের কয়েকটি টিম দীর্ঘ দিন ধরে কুমিল্লা ছাড়াও দেশের বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে আসছিল। আহত পুলিশের সদস্যরা হলেন এএসপি আলী আশরাফ ভূঁইয়া, কনেস্টবল শ্যামল চক্রবর্তী, জাহাঙ্গীর হোসেন, আব্দুর রহিম, আব্দুর রব। আহতরা কুমিল্লা জেলা পুলিশ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। পুলিশের সূত্র জানায়, এ ঘটনায় কুমিল্লা কোতয়ালী মডেল থানায় মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...