দেবিদ্বারে সরকারী শিশু পরিবারের উপতত্ত্বাবধায়কের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ

মোঃ আক্তার হোসেন :–
কুমিল্লার দেবিদ্বারে সরকারী শিশু পরিবারের উপতত্ত্বাবধায়ক মোঃ রফিকুল ইসলামের বিরুদ্ধে লক্ষ লক্ষ টাকা আত্বসাৎসহ দুর্নীতির অভিযোগ পাওয়া যায়। বুধবার দুপুরে দেবিদ্বার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ সাইফুল ইসলামের নিকট এ অভিযোগ দাখিল করা হয়।
অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, দেবিদ্বার সরকারী শিশু পরিবারের উপতত্ত্বাবধায়ক মোঃ রফিকুল ইসলাম গত ২০১২ সালের নভেম্বর মাসে যোগদানের পর থেকে অর্থ আত্নসাৎ ও স্বেচ্ছাচারিতাসহ বিভিন্ন প্রকার দুর্নীতিতে জড়িয়ে পড়েন। যোগদানের পর তাহার বাস ভবনের গ্যাস ও বিদ্যুতের মিটার থাকার পরও মিটারের সংযোগ চালু না করে অবৈধ্যভাবে গ্যাস ও বিদ্যুৎ ব্যবহার করে নিবাসীদের খাদ্য আনুসাঙ্গিক খাত হইতে বিল পরিশোধ করে আসছেন। গত কয়েক মাস পূর্বে নিবাসীদের খাত হইতে প্রায় ২০ হাজার টাকা আতœসাৎ করে তাহার বাস ভবনে গ্যাস ও বিদ্যুৎ সংযোগ চালু করেন। অতিথের কর্মকর্তাগণ শিশু পরিবারের পুকুরের মাছ বিক্রির টাকা নিবাসীদের কল্যান তহবিল করে ব্যাংকে জমা প্রদান করলেও বর্তমান ওই দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তা গত কয়েক বছরের মাছ বিক্রির টাকা প্রায় ২লক্ষ টাকা ব্যাংকে জমা না দিয়ে নিজে আতœসাৎ করেছে বলেও অভিযোগ করা হয়। অভিযোগে আরো উল্লেখ্য করা হয়, প্রতি মাসে শিশু পরিবারের অনুপস্থিত নিবাসীদেরকে হাজিরা খাতায় উপস্থিত দেখিয়ে প্রায় ১৫/২০ হাজার টাকা আতœসাতের মাধ্যমে গত ২০১২ সালে পর থেকে প্রায় ৫ লক্ষ টাকা আত্বসাৎ করেছেন। এ ভাবে তিনি পুরাতন আসবাবপত্র বিক্রয়, গাছপালা কর্তন, ফলফলাদি বিক্রয় খাত থেকেও অর্থ আতœসাতের অভিযোগ করা হয়েছে। সরকারী শিশু পরিবারের গরু-ছাগল, হাঁস-মুরগী পালন নিষিদ্ধ থাকলেও মোঃ রফিকুল ইসলাম তা পালন করে যাচ্ছেন। এতে করে গরু-ছাগল ওই শিশু পরিবারের গালপালা নষ্টসহ নানা প্রকার সমস্যা সৃষ্টি করছে। এ সকল দুর্নীতি করতে গিয়ে তিনি শিশু পরিবারের বড় নিবাসীদের ও কিছু কর্মচারীদেরকে হাতে নিয়েছেন বলেও অভিযোগে উল্লেখ্য করা হয়। অভিযোগটির অনুলিপি সমাজকল্যান মন্ত্রী, সমাজকল্যান সচিব, কুমিল্লা-৪(দেবিদ্বার) সংসদ সদস্য, মহাপরিচালক ও উপ-পরিচালক জেলা সমাজকল্যান কার্যালয়েও প্রেরন করা হয়েছে বলেও জানা যায়। অভিযোগটি দাখিল করেন স্থানীয় ফুল মিয়া, আলী আহমেদ, কবির হোসেন ও ফারুক আহমেদ নামের ব্যাক্তিরা।
এব্যাপারে দেবিদ্বার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ সাইফুল ইসলাম বলেন, আমি অভিযোগটি পেয়েছি এবং একজন কর্মকর্তাকে তদন্ত করার জন্য দায়িত্ব প্রদান করেছি। তদন্তে অভিযোগের প্রমান পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...