সাংবাদিককে লাঞ্ছিত করার ঘটনায় চিকিৎসককে বদলি

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি :—

সাংবাদিকদের দেখলেই চটে যান যিনি, তেড়ে আসনে মারতে! সেই `উন্মাদ` চিকিৎসক ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সদর হাসপাতালের নাক, কান ও গলা রোগ বিশেষজ্ঞ মো. ইমরান খানকে মৌলভীবাজার জেলার কুলাউড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে বদলি করা হয়েছে।

ঢাকা মহাখালী স্বাস্থ্য অধিদফতরের পরিচালক (প্রশাসন) মো. ইহতেশামুল হক চৌধুরী স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে এ নিদের্শ দেওয়া হয়। জেলা সদর হাসপাতালের সহকারী পরিচালক (ভারপ্রাপ্ত) ডা. মো. আবু সাঈদ ডা. মো. ইমরান খানের বদলির বিষয়টি সাংবাদিকদের নিশ্চিত করেছেন।

উল্লেখ্য, গত ২৪ জুন দুপুর ১২টায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাবের সভাপতি সৈয়দ মিজানুর রেজা তার ছেলেকে নিয়ে কানের ব্যাথাজনিত সমস্যার জন্য সদর হাসপাতালে যান। তিনি বহির্বিভাগ থেকে টিকেট নিয়ে হাসপাতালের নিচতলায় নাক, কান ও গলা বিশেষজ্ঞ ইমরান খানের কক্ষের সামনে লাইনে দাঁড়ান। কিন্তু সে সময় ওষুধ কোম্পানির বিক্রয় প্রতিনিধি ও দালালদের সঙ্গে কথা বলছিলেন ডা. ইমরান। সাংবাদিক মিজানুর রেজা দীর্ঘক্ষণ লাইনে দাঁড়ানোর পর ভেতরে গিয়ে ডা. ইমরানের কাছে দালালদের সম্পর্কে জানতে চাইলে ডা. ইমরান ক্ষেপে যান। সাংবাদিক পরিচয় জানতে পেরে মিজানুর রেজার কাছে সাংবাদিকদের নিয়ে নানা অশোভন মন্তব্য করেন ডা. ইমরান। পরে ঘটনার খবর পেয়ে অন্যান্য সাংবাদিকরা সদর হাসপাতালে গেলে ডা. ইমরান তাদের সঙ্গেও অশোভন আচরণ করেন।

এ ঘটনায় তাৎক্ষণিকভাবে ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাবে প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। প্রতিবাদ সমাবেশ থেকে এক সপ্তাহের মধ্যে ডা. ইমরানকে জেলা সদর হাসপাতাল থেকে প্রত্যাহারের দাবি জানান সাংবাদিকরা।

এর আগে গত পহেলা ফেব্রুয়ারি দুপুরে পেশাগত দায়িত্ব পালনে জেলা সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগে গেলে প্রথম আলো পত্রিকার জেলা প্রতিনিধি শাহাদৎ হোসেন ও চ্যানেল নাইনের জেলা প্রতিনিধি আল মামুনকে মারতে তেড়ে আসেন ডা. মো. ইমরান খান। এ ঘটনায় তার বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দেওয়া হলে এ নিয়ে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...