“জাতীয় বাজেট ২০১৫-১৬ পরবর্তী সংবাদ সম্মেলন”

কুমিল্লা প্রতিনিধি :–
করের পরিধি বাড়লেও প্রয়োজনীয় সেবাখাত বাস্তবায়নই হবে বড় চ্যালেঞ্জ প্রস্তাবিত বাজেট প্রত্যক্ষ কর নির্ভর বাজেট ঘোষণা হলেও পরোক্ষ করের উপরই নির্ভরশীলতার আশংকা থেকেই যাচ্ছে। প্রস্তাবিত বাজেটে ফলে ব্যাপক মূল্যস্ফীতি দেখা দিবে যার প্রত্যক্ষ প্রভাব পড়বে তৃণমূল শ্রমজীবি মানুষের উপর। সরকারকে আসন্ন রোজা এবং তৃণমূলের কথা মাথায় রেখেই বাজেট বরাদ্দ পূনঃবিবেচনা করত: তৃণমূল মানুষের ভাগ্যন্বোয়ণে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের উপর মূসক হ্রাস, বহুজাতীয় কোম্পানীর কর ফাঁকি বন্ধ, করজাল বৃদ্ধি, পর্যায়ক্রমে ভ্যাট হ্রাস করণ, কর আদায়ের সর্বোন্তরে ই-সেবা নিশ্চিত করণ, কর প্রদান প্রক্রিয়া সহজীকরণ, হয়রানীমুক্ত কর প্রশাসন এবং কর প্রশাসনে স্বচ্ছতা জবাবদিহিতা আনয়ণে অগ্রাধিকারভিত্তিতে কার্যকর কর্মসূচী গ্রহণ এবং বাস্তবায়ন, মূল্যায়ন ও পরিবেক্ষণে পর্যাপ্ত বরাদ্দ নিশ্চিত করতে হবে। প্রতি বছরই দেখা যাচ্ছে প্রয়োজনের তুলনায় জনসেবাখাতগুলোতে বরাদ্দ কম। মানুষের খাদ্য, বস্ত্র, বাসস্থান, চিকিৎসা ও শিক্ষার মত মৌলিক অধিকারের বিষয়গুলো সরবরাহ ও নিশ্চিতকরণের দায়িত্ব সাংবিধানিকভাবে রাষ্ট্রের। জনসেবাখাতগুলোতে সকলের অভিগম্যতা নিশ্চিতকরণে এখাতগুলোতে প্রয়োজনীয় বরাদ্দ বাড়ানোর পাশাপাশি জনঅংশগ্রহনমূলক বাস্তবায়ন, স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা অত্যন্ত জরুরী। গত ১১ জুন সুশাসনের জন্য প্রচরাভিযান সুপ্র কুমিল্লা জেলা কমিটি ও বেসরকারী উন্নয়ন সংস্থা দর্পণ এর যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে বক্তাগন এ কথাগুলি বলেন। সংবাদ সম্মেলনে সভাপতিত্ব করেন কুমিল্লা প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি আবুল হাসানাত বাবুল।
অনুষ্ঠানের শুরুতে স্বাগত ও মাল্টিমিডিয়া প্রেজেন্টেশন করেন সুশাসনের জন্য প্রচারাভিযান (সুপ্র) কুমিল্লা জেলা কমিটির সাধারন সম্পাদক ও দর্পণের নির্বাহী পরিচালক মোঃ মাহবুব মোর্শেদ। অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন দর্পণ এর প্রকল্প পরিচালক ফাখেরা মনসুর, সাংবাদিক ওমর ফারুকী তাপস, যমুনা টেলিভিশন কুমিল্লা প্রতিনিধি দিল রুবাইৎ সৌরভী, কুমিল্লা দর্পণ এর বার্তা সম্পাদক ও দৈনিক আজকের পত্রিকার কুমিল্লা প্রতিনিধি মোঃ শাকিল মোল্লা, সাংবাদিক মাহাবুব আলম বাবু, সাংবাদিক বাহার রায়হান, সাংবাদিক জামাল উদ্দিন দামাল, ব্যবসায়ী আনোয়ার হোসেন চৌধুরী, আর এইচ ডিও এর নির্বাহী পরিচালক কাজী মাহতাব, দর্পণের সহকারী প্রকল্প পরিচালক মোঃ আবুল হাসেম প্রমুখ। অনুষ্ঠানের সার্বিক সমন্বয়ের দায়িত্ব পালন করেন দর্পণের অর্থ ও প্রশাসনিক কর্মকর্তা রুমি আক্তার।
অনুষ্ঠানে বক্তাগন যেসব দাবীমালা উপস্থাপন করেন সেগুলো হলোঃ প্রত্যক্ষ কর নির্ভর বাজেট প্রণয়ন করতে হবে, করের বিপরীতে নাগরিক সুবিধা নিশ্চিত করতে হবে; তৃণমূল মানুষের ভাগ্যন্বোয়ণে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের উপর মূসক হ্রাস করতে হবে; বহুজাতীয় কোম্পানীর কর ফাঁকি বন্ধ করতে হবে; পর্যায়ক্রমে ভ্যাট হ্রাস করণ, কর আদায়ের সর্বোন্তরে ই-সেবা নিশ্চিত করণ করতে হবে; জাতীয় শিক্ষানীতি ’১০ বাস্তবায়নের লক্ষ্যে শিক্ষাখাতে মোট বাজেটের কমপক্ষে ২০% বা জিডিপি’র ৬% বরাদ্দ নিশ্চিত করতে হবে; শিক্ষক ও শিক্ষার্থীর অনুপাত ১:৩০ নিশ্চিত করতে হবে; শিক্ষা খাত থেকে ধর্মীয় শিক্ষা, সামরিক শিক্ষা এবং বিজ্ঞান-প্রযুক্তি খাতের বরাদ্দ পৃথক করতে হবে; চাহিদা অনুযায়ি অঞ্চল ভিত্তিক বাজেট বরাদ্দ এবং পিছিয়ে পড়া প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর জন্য বিশেষ বরাদ্দ নিশ্চিত করতে হবে; মৌলিক চাহিদা নয়,স্বাস্থ্যকে মৌলিক অধিকার হিসেবে সংবিধানিক স্বীকৃতি দিতে হবে; জাতীয় বাজেটে স্বাস্থ্যখাতে কমপক্ষে জিডিপি-এর ৩ শতাংশ অথবা মোট বাজেটের ১০ শতাংশ বরাদ্দ দেয়ার পাশাপাশি বাজেটের সুষম বন্টন এবং বাজেট ব্যবহারে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে হবে; সরকারের প্রতিশ্রুতি মোতাবেক অতি দরিদ্রদের জন্য স্বাস্থ্যকার্ড ও স্বাস্থ্য বীমা চালু করতে হবে; ভর্তুকি বৃদ্ধিসহ তৃণমূল কৃষকের চাহিদা ও দাবি বিশ্লেষণপূবর্ক অংশগ্রহণমূলক কৃষি বাজেট বৃদ্ধি করতে হবে; কৃষিতে নারী শ্রমিকের সামাজিক ও রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি ও সম-মজুরির ব্যবস্থার জন্য সুনিদ্দিষ্ট আইন প্রণয়ন ও বাজেটে বিশেষ বরাদ্দ নিশ্চিত করতে হবে এবং মাত্র ১০ টাকায় ৯৫.৬৪ লক্ষ কৃষকের ব্যাংক হিসাব চালু এবং সরাসরি ব্যাংক হিসাবের মাধ্যমে ভর্তুকির অর্থ প্রাপ্তির যে উদ্যোগ সরকার গ্রহণ করেছিলো তা আজ অকার্যকরপ্রায়, বর্তমানে মাত্র ১৩% কৃষক এর আওতায় অন্তর্ভূক্ত । এ ব্যবস্থা কে পুনরায় কার্যকর করতে হবে।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...