কুমিল্লায় বাসে পেট্রলবোমা হামলায় দগ্ধ-৭

 

কুমিল্লা প্রতিনিধি :–

কুমিল্লার চান্দিনায় যাত্রীবাহী বাসে দুর্বৃত্তদের ছোঁড়া পেট্রলবোমায় ৭ জন দগ্ধ হয়েছেন। তাদের মধ্যে গুরুতর দগ্ধ দুই জনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতলের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়েছে। তারা হলেন- বিশ্ব সাহিত্য কেন্দ্রের উপদেষ্টা অঞ্জন কুমার দে (৪০) ও রাঙামাটি সরকারি কলেজের শিক্ষক সঞ্জিত শর্মা (৩৫)।
মঙ্গলবার রাত পৌনে ১টার দিকে চান্দিনার পাট গবেষণা ইনস্টিটিউশনের সামনে ইউনিক পরিবহনের একটি বাসে এই পেট্রলবোমা হামলার ঘটনা ঘটে।
দগ্ধদের বরাত দিয়ে বিশ্ব সাহিত্য কেন্দ্রের পরিচালক মোহাম্মদ মাসুদ জানান, রাতে রাজধানীর ফকিরাপুল থেকে ইউনিক পরিবহনের একটি নাইটকোচে রাঙামাটি যাচ্ছিলেন তারা। বাসটি কুমিল্লার চান্দিনায় পৌঁছালে দুর্বৃত্তরা এতে পেট্রলবোমা মারে। এতে বিশ্ব সাহিত্য কেন্দ্রের উপদেষ্টা অঞ্জন কুমার দে (৪০) ও রাঙামাটি সরকারি কলেজের শিক্ষক সঞ্জিত শর্মাসহ (৩৫) বেশ কয়েকজন দগ্ধ হন।
চান্দিনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রসুল আহমেদ জানান, দগ্ধদের প্রথমে কুমিল্লা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখান থেকে গুরুতর দগ্ধ দুইজনকে ঢামেক হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে প্রেরণ করা হয়েছে। এছাড়া বাকি দুজনকে প্রাথমিক চিকিৎসার পর ছেড়ে দেয়া হয়েছে। বাকিদের পরে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়েছে।

আহতদের মধ্যে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তিকৃতরা হলেন- রাঙামাটি সদরের বড়ধোনা এলাকার যুক্তমনি চাকমার ছেলে খোকন চাকমা (৩৩), রাঙামাটি সদরের সুনীল চন্দ্র নাথের ছেলে সুমন চন্দ্রনাথ (৩০), গোপালগঞ্জ সদরের এমরান (২৫)। এছাড়া প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ থানার আবুল হোসেনের ছেলে জহিরুল ইসলাম ফারুক (২৫) ও তার স্ত্রী লাভলী আক্তার।
এব্যাপারে কুমিল্লার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জাহাঙ্গীর হোসেন জানান, এখন কোন রাজনৈতিক কর্মসূচি না থাকা সত্বেও হঠাৎ কেন, কী কারণে এঘটনা ঘটেছে তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।এর পেছনে রাজনৈতিক নেতাদের কোন সংশ্লিষ্টতা আছে কি তাও খতিয়ে দেখা হবে।

এদিকে বুধবার সকালে ডিজিএফএই কর্ণেল একেএম নামজুমল হাসান, কুমিল্লা জেলা প্রশাসক হাসানুজ্জামান কল্লোল, পুলিশ সুপার শাহ আবিদ হোসেন, হাইওয়ে পুলিশ (বাংলাদেশ পূর্বাঞ্চল) রেজাউল কবির, র‌্যাব-১১ এর কোম্পানী কমান্ডার খুরশিদ আলম, চান্দিনা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা তপন বক্সীসহ উর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

এসময় জেলা প্রশাসকের পক্ষ থেকে গুরুতর আহতদের প্রত্যেককে ১৫ হাজার ও বাকিদের ১০ হাজার টাকা করে অর্থ সাহায্য দেয়ার ঘোষণা করা হয়েছে। অপরদিকে এ ঘটনা তদন্তে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসককে প্রধান করে ৫ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...