তিতাসে দু’গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন

নাজমুল করিম ফারুক :–
কুমিল্লার তিতাসের কড়িকান্দি বাস স্টেশন (হাসপাতাল গেইট) এলাকায় বুধবার আওয়ামীলীগ ও ছাত্রলীগের সংঘর্ষের ঘটনায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। উক্ত ঘটনাকে কেন্দ্র করে উভয়পক্ষের লোকজনদের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বুধবার তিতাস উপজেলার কড়িকান্দি বাজারে সোনালী ব্যাংকের শাখার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যোগ দেয়ার জন্য কড়িকান্দি বাস স্টেশন (হাসপাতাল গেইট) এলাকায় কুমিল্লা (উত্তর) জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সারওয়ার হোসেন বাবু ও উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান ও উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক মুন্সি মজিবুর রহমানের নেতৃত্বে লোকজন জুড়ো হতে থাকে। এসময় উদ্বোধনী অনুষ্ঠান থেকে উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সাহিনুল ইসলাম সোহেল শিকদার গাজীপুরে যাওয়ার পথে তাঁর লোকজন তাদেরকে বাধা প্রদান করলে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এসময় পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। পরবর্তীতে গৌরীপুর হোমনা সড়কের গাজীপুরে বাস ষ্টেশনে সোহেল শিকদারের লোকজন এবং কড়িকান্দি বাস ষ্টেশন হাসপাতাল গেইটে সারওয়ার হোসেন বাবুর লোকজন মারমুখী অবস্থান নিলে তৎক্ষণিক কুমিল্লা থেকে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়। এদিকে পরিস্থিতি শান্ত রাখার জন্য গভীর রাত পর্যন্ত উপজেলার বিভিন্ন স্থানে চেকপোষ্ট বসানো হয়।
কুমিল্লা (উত্তর) জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ছারোয়ার হোসেন বাবু বলেন, সোনালী ব্যাংকের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যোগ দিতে যাওয়ার জন্য ছাত্রলীগের অফিসে জড়ো হই। এসময় ভাইস চেয়ারম্যান সোহেল সিকদারের লোকজন ছাত্রলীগের অফিস ভাংচুর করে এবং তাদের উপর হামলা চালায়। এতে গাজীপুর কলেজ শাখার ছাত্রলীগের সভাপতি ইয়াছিনসহ ছাত্রলীগ ও যুবলীগের ৮ জন আহত হয়।
অপরদিকে, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও উপজেলা ভাইস-চেয়ারম্যান শাহিনুর ইসলাম সোহেল সিকদার বলেন, সোনারী ব্যাংকের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আমাকে বিশেষ অতিথি করায় ওইখানে আমি চলে যাই। অনুষ্ঠানস্থল থেকে জানতে পারি সারোওয়ার হোসেন বাবু ও যুবলীগ নেতা মুন্সি মজিবুর রহমান উপজেলা ছাত্রলীগের অফিসে রক্ষিত বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি ভাংচুর করে আমাকে ফাঁসানোর চেষ্টা করছে। অফিস ভাংচুরের ভবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গেলে ছাত্রলীগ ও যুবলীগের ক্যাডার বাহিনী আমার উপর হামলার চেষ্টা করলে পুলিশ আমাকে রক্ষা করে।
তিতাস থানার ওসি তারেক মোঃ আবদুল হান্নান বলেন, দীর্ঘদিন যাবৎ দুই গ্র“পের মধ্যে দ্বন্দ্ব চলে আসছে। বুধবার উভয়পক্ষ ৩টি স্থানে সংঘর্ষের জন্য জড়ো হলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ওসি তারেক মোঃ আব্দুল হান্নান মুঠোফোনে জানান পরিস্থিতি অনুকূলে না আসা পর্যন্ত অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন থাকবে।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...