লাকসাম-চিনকি আস্তানা ডাবল রেল লাইন চালু; বেড়েছে গতি কমেছে সময়

মো. আলাউদ্দিন :—

ক্রসিংয়ের কোনো ঝামেলা নেই। কুমিল্লার লাকসাম রেল স্টেশন থেকে ছেড়ে গেল চট্টগ্রাম অভিমুখী ডেমু ট্রেন। কাছাকাছি সময়ে স্টেশনে ঢুকল ঢাকা অভিমুখী আন্তনগর মহানগর গোধূলি ট্রেন। ১৮ এপ্রিলের পর থেকে লাকসাম রেলওয়ে স্টেশনে একই সঙ্গে দুই ট্রেনের প্রবেশ ও বের হওয়ার ঘটনা এখন নিত্যদিনের।
ঢাকা-চট্টগ্রাম-সিলেট রেলপথের লাকসাম থেকে চিনকি আস্তানা পর্যন্ত ডাবল লাইন নির্মাণের কারণে এখন প্রতিদিনই ক্রসিং ছাড়াই উল্লিখিত এলাকার বিভিন্ন স্টেশনে একই সঙ্গে ট্রেন প্রবেশ করছে এবং বের হচ্ছে। শুরু থেকেই এর সুফল পাওয়া যাচ্ছে। ৬১ কিলোমিটার এলাকায় নতুন করে ডাবল লাইন নির্মাণ উদ্বোধনের পর প্রায় নির্ধারিত সময়েই ট্রেন চলতে শুরু করেছে। গতকাল রবিবার সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলে বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া গেছে। এতে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন সংশ্লিষ্ট সবাই।
ঢাকা-চট্টগ্রাম রেলপথের ডাবল লাইন প্রকল্পের আওতায় লাকসাম থেকে চিনকি আস্তানা পর্যন্ত ৬১ কিলোমিটার মেইন লাইন ও ২০ কিলোমিটার শাখা লাইন নির্মাণ করা হয়েছে। ১৮ এপ্রিল শনিবার বিকেলে গণভবনে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ৬১ কিলোমিটার ডাবল লাইনে ট্রেন চলাচলের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। একই দিন প্রধানমন্ত্রী চট্টগ্রাম স্টেশনে নির্মিত ইয়ার্ড রি-মডেলিং প্রকল্প ও ডুয়েল গেজ ডাবল লাইনের নির্মাণকাজের উদ্বোধন ঘোষণা করেন।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, উদ্বোধনের পর থেকে আপ ও ডাউন লাইনে আলাদাভাবে ট্রেন চলাচল করছে। আগে এক লাইনে ৩০টি ট্রেন চললেও এখন চলছে ১৫টি করে। যে কারণে উল্লিখিত ৬১ কিলোমিটারে উল্টো দিক থেকে ক্রসিংয়ের ঝামেলা এড়ানো গেছে। তাতে ক্রসিংয়ের জন্য যে অতিরিক্ত সময় লাগত, তা থেকে রক্ষা পাওয়া গেছে। নতুন লাইন হওয়ায় আগের থেকে গতিও বেড়েছে ট্রেনের। সব মিলিয়ে লাকসাম-চিনকি আস্তানা ডালব রেল লাইন চালু হওয়ার পর থেকে প্রায় সব কয়টি ট্রেনই নির্ধারিত সময়ে চলাচল করছে।
লাকসাম রেলওয়ে জংশনের স্টেশন মাস্টার মো. জালাল উদ্দিন বলেন, ডাবল লাইন চালু হওয়ার পর এখন তিনভাবে লাভবান হওয়া যাবে। এখন আর ওই জায়গায় উল্টো দিক থেকে আসা ট্রেনের জন্য অপেক্ষা করতে হচ্ছে না অন্য ট্রেনকে। যে কারণে অনেক সময় বেঁচে যাবে। এ ছাড়া এক লাইনে ট্রেন দুর্ঘটনায় পড়লে চলাচল বন্ধ না রেখে অন্য লাইন দিয়ে চালানো যাবে। তাতে যাত্রীদের পাশাপাশি রেলওয়ে বিভাগও লাভবান হবে। ‘ঢাকা-চট্টগ্রাম রেলপথের পুরোটা ডাবল লাইন হয়ে গেলে আমাদের সীমিত সম্পদের মাধ্যমেই যাত্রীদের উন্নত সেবা দেওয়া যাবে। লাকসাম-চিনকি আস্তানা ডাবল লাইন চালু হওয়ার পর ইতিমধ্যে এর সুফল পাওয়া গেছে।’

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...