হারবাল কোম্পানীর অশ্লীল পোস্টারে ছেয়ে গেছে মনোহরগঞ্জ

আকবর হোসেন, মনোহরগঞ্জ প্রতিনিধি:—

মনোহরগঞ্জ উপজেলা সদরসহ প্রত্যন্ত অঞ্চলের সর্বত্রই বিভিন্ন হারবাল কোম্পানীর অশ্লীল পোস্টারে ছেয়ে গেছে। এসব কোম্পানীর ঔষধ সেবন করে রোগ নিরাময়ের কোন ভালো ফলাফল না পেলেও তাদের লাগানো পোস্টারের কারণে পরিবার পরিজন নিয়ে বাড়ির বাইরে বের হওয়া দুঃসাধ্য হয়ে পড়েছে এলাকাবাসীর। উপজেলাবাসী বিব্রতকর এ অবস্থা থেকে পরিত্রাণ চায়। মনোহরগঞ্জ উপজেলা ১১টি ইউনিয়নে ছোট বড় সব হাট বাজারে এসব কথিত হারবাল কোম্পানীর সাইনবোর্ড ঝুলিয়ে ব্যবসা করলেও বর্তমানে তারা আইনের প্রতি বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে পোস্টার সাটানোর প্রতিযোগিতায় নেমে পড়েছে। অফিস-আদালত, স্কুল-কলেজ, ঘর-বাড়ির গেইট ও হাট বাজারের দোকানপাটে একের পর এক নোংরা ও নগ্ন ছবিসম্বলিত পোস্টার লাগিয়ে চলছে। অশ্লীল ও কু-রুচি বাক্যে পরিপূর্ণ পোস্টার দেখে কিছু মানুষ হারবাল প্রতিষ্ঠানে হুমড়ি খেয়ে পড়ছে এবং প্রতারণার শিকার হচ্ছে। স্থানীয় একটি চক্র ছাড়াও ঢাকা, চট্টগ্রাম, আনন্দ, আধুনিক, ইন্ডিয়া, কলিকাতা, ফারুকিয়া, ভারতসহ বিভিন্ন হারবাল প্রতিষ্ঠানের নামে এসব পোস্টার সাটানো হচ্ছে। এসব অশ্লীল পোস্টার এত বেশি পরিমাণ সাটানো হয়েছে যে, যেকেউ দেখলে মনে করবে এখানে কোন নির্বাচন হচ্ছে। আনাচে কানাচে সাটানো এসব অশ্লীল পোস্টার দেখলে অনেক পথচারিকে তাদের সঙ্গে ছোট ছোট ছেলে মেয়েদের নিয়ে বিব্রতকর অবস্থার মধ্যে পড়তে হয়। আবার স্কুল-কলেজগামী ছাত্র-ছাত্রীদেরকে অত্যন্ত মনোযোগ সহকারে সাটানো পোস্টার পড়ে হাসতে দেখা যায়। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের একজন ডাক্তার জানান, কথিত হারবাল কোম্পানীগুলোর বেপরোয়া পোস্টার ও অপচিকিৎসায় অনেক মানুষ প্রতারিত হচ্ছে এবং এসব ঔষধ খেয়ে নিজেকে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিচ্ছে। মনোহরগঞ্জ উপজেলার সচেতন মানুষের দাবি অচিরে এসব কু-রুচিপূর্ণ পোস্টার সাটানো ও চিকিৎসার নামে সাধারণ মানুষ থেকে হাজার হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়ে সাধারণ মানুষকে হয়রানী ও প্রতারণা করছে। তাই এসব অপচিকিৎসা থেকে পরিত্রাণ চায় মনোহরগঞ্জবাসী।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...