দেবিদ্বারে পুলিশের এসআই’র বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে থানায় মামলা

মোঃ আক্তার হোসেন :—
কুমিল্লার দেবিদ্বারে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে র‌্যাবে কর্মরত পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) মোঃ আব্দুল মান্নান (৩৮) এর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। গত ১২ এপ্রিল দেবিদ্বার থানায় মামলাটি দায়ের করেন তার স্ত্রী তুহিনা আক্তার রেখা (৩৫)।
মামলার অভিযোগ ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, দেবিদ্বার পৌর এলাকার হাজী আব্দুল মতিন সরকারের ২য় মেয়ে তুহিনা আক্তার রেখা সাথে প্রায় ১৫ বছর আগে শরীয়ত মোতাবেক রেজিস্ট্রি কাবিন মূলে বিবাহ হয় উপজেলার রাজামেহার গ্রামের মৃত নুরুল ইসলামরে ছেলে পুলিশের এসআই মোঃ আব্দুল মান্নান’র। তাদের দীর্ঘদিনের দাম্পত্য জীবনে দুই মেয়ে ও এক ছেলে জন্মগ্রহন করে। ফেনী জেলার দাঘনভূইয়া থানার পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) হিসেবে স্বামীর আব্দুল মান্নান চাকুরী করার সুবাধে সন্তানদের নিয়ে ফেনী শহরেই থাকেন তুহিনা আক্তার রেখা। গত প্রায় দু’বছর পূর্বে তুহিনা আক্তার রেখার স্বামী এসআই মোঃ আব্দুল মান্নান মটরসাইকেল ক্রয় করতে দুই লক্ষ টাকা যৌতুক হিসাবে দাবী করলে সুখের কথা চিন্তা করে তার বাবা মটরসাইকেল ক্রয় করে দেন। কিন্তু গত ২১ফেব্রুয়ারীতে তুহিনা আক্তার সহ তার সন্তানদের হঠাৎ করে স্বামীর গ্রামের বাড়ি উপজেলার রাজেমেহারে পাঠিয়ে দেন এবং রাতেই স্বামী আব্দুল মান্নান বাড়িতে আসেন। ওই দিন রাতেই স্বামী, দেবর, ননদ ও ননদের স্বামী সহ কুমিল্লা শহরে ফ্ল্যাট ক্রয় করার জন্যে ২০ লক্ষ (বিশ লক্ষ) টাকা যৌতুক হিসেবে দাবী করেন তুহিনা আক্তার রেখা নিকট। ওই দাবীকৃত যৌতুকের টাকা বাবার নিকট থেকে এনে দিতে অপরগতা প্রকাশ করলে তুহিনা আক্তার রেখার উপর শারীরিক নির্যাতন করে সন্তানদের সহ তাকে বাড়ি থেকে বাহির করে দেওয়া হয়। পরে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা শেষে সামাজিক ভাবে বিষয়টি মীমাংসার চেষ্টা করা হয় এবং কোন সমাধান না হওয়ায় গত ১২ এপ্রিল স্বামী সহ ৬ জনকে আসামী করে দেবিদ্বার থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন/২০০০ সংশোধন (০৩) এর ১১ (গ)/ ৩০ ধারায় মামলা দায়ের করেন। মামলা নাম্বার-৭, তারিখ- ১২/০৪/২০১৫ ইং। স্বামী আব্দুল মান্নান ছাড়াও মামলার অন্য আসামীরা হলো- মোঃ আব্দুল হান্নান (৩২), মোঃ সাইফুল ইসলাম (২৫), মোঃ মেহেদী হাসান (২১), রাবেয়া খাতুন (২৭) ও জালাল উদ্দিন।
এ বিষয়ে মামলার বাদী তুহিনা আক্তার রেখা জানান, গত দুই বছর ধরে স্বামী এবং তার আত্বীয় স্বজনদের নির্মম অত্যারের পরেও সন্তানদের সুখের কথা চিন্তা করে দীর্ঘদিন ধরে সামাজিক ভাবে বিষয়টি সমাধানের চেষ্টা করেছি। কিন্তু কোন প্রকার সমাধান না পেয়ে অবশেষে মামলা করি। এদিকে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা দেবিদ্বার থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) নুরুল ইসলাম মজুমদারের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, মামলাটির তদন্ত চলছে এবং মামলার প্রধান বিবাদী আব্দুল মান্নান বর্তমানে ফেনী জেলার দাঘনভূইয়া থানা থেকে র‌্যাব হেড কোয়ার্টারে বদলী হয়েছে।
তবে মামলার প্রধান আসামী পুলিশের এসআই আব্দুল মান্নানের মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।
এ ব্যাপারে দেবিদ্বার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ মিজানুর রহমান কুমিল্লাওয়েব ডটকম’কে জানান, অভিযোগ পেয়ে মামলা নেওয়া হয়েছে এবং তদন্ত চলছে। শুনেছি মামলার ১নং বিবাদী এসআই আব্দুল মান্নান ফেনীর দাঘনভূইয়া থানা থেকে র‌্যাবে বদলী হয়েছেন।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...