লাকসাম-চাঁদপুর ও লাকসাম-নোয়াখালী রুটে সাড়ে ৩ মাস পর রেল সড়কে ডেম্যু ট্রেন

মোঃ আবুল কালাম, লাকসাম (কুমিল্লা):–
একটানা প্রায় সাড়ে ৩ মাস বন্ধ থাকার পর অবশেষে লাকসাম-চাঁদপুর ও লাকসাম-নোয়াখালী রেলপথে স্বাভাবিকভাবে চলাচল করছে ডেমু ট্রেন। রোববার বিকেল থেকে ওই রুটগুলোতে ডেম্যু চলাচল শুরু করে। কিন্তু গতকাল বুধবার বিএনপি জোটের হরতালের ডাক দিতেই ফের বন্ধ হয়ে যায়। বুধবার স্টেশনে ডেম্যু ট্রেনগুলো দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায়। এর আগে চলতি বছরের শুরুতে বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোট লাগাতার অবরোধ-হরতালের ডাক দিতেই ওই রুটগুলোতে অনির্দিষ্টকালের জন্য ডেম্যু ট্রেনের চলাচল বন্ধ করে দেয় রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ। ওই সময়ে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ জানায়, অবরোধ-হরতালে নাশকতার আশংকায় ডেমু ট্রেনের চলাচল বন্ধ রাখা হয়।
লাকসাম রেলওয়ে জংশন সূত্রে জানা গেছে, প্রতিদিন সকাল-বিকেল লাকসাম-চাঁদপুর, লাকসাম-নোয়াখালী রেলপথে ২টি করে মোট ৪টি কমিউটার ট্রেন ডেম্যু চলাচল শুরু করেছে। ট্রেনগুলো লাকসাম থেকে চাঁদপুর যাওয়ার পথে চিতোষী, শাহরাস্তি রোড, মেহের, উয়ারুক, হাজীগঞ্জ, বলাখাল, মধুরোড, শাহ্তলী, মৈশাদী, চাঁদপুর কোর্ট ও চাঁদপুর স্টেশনে যাত্রা বিরতি করবে। আর লাকসাম থেকে নোয়াখালী যাওয়ার পথে দৌলতগঞ্জ, খিলা, নাথেরপেটুয়া, বিপুলাসার, সোনাইমুড়ি, বজরা, চৌমুহনী, মাইজদী, মাইজদীকোর্ট, হরিনারায়নপুর ও নোয়াখালী স্টেশনে যাত্রা বিরতি করবে। এছাড়া, ওই ট্রেনগুলো লাকসাম-কুমিল্লা রেলপথে কোনো যাত্রা বিরতি না থাকায় কুমিল্লা রেলওয়ে স্টেশন গিয়ে আবার পুনরায় লাকসাম রেলওয়ে জংশনে ফিরে আসবে। এতে ওই রুটের যাত্রীরা চলাচলে ব্যাপক সুবিধা পাবে। উচ্চ গতিসম্পন্ন দু’টি বগির এ ডেম্যু ট্রেনে ৩শ’ যাত্রী বসে ও শতাধিক যাত্রী দাঁড়িয়ে গন্তব্যে যাতায়াত করার সুযোগ পাবে।
জানা গেছে, বিএনপিসহ ২০ দলীয় জোট চলতি বছরের গত ৫ই জানুয়ারি ঢাকায় সমাবেশের ডাক দিলে নাশকতার আশংকায় এর দু’দিন আগ থেকেই রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ পূর্ব কোনো ঘোষনা ছাড়া লাকসাম-চাঁদপুর, লাকসাম- নোয়াখালী এবং কুমিল্লা রেলপথে চলাচলকারী আধুনিকমানের কমিউটার ট্রেন ডেমুর চলাচল বন্ধ করে দেয়। এদিকে, দীর্ঘ সময় পর ওই রুটগুলোতে ডেম্যু ট্রেনের চলাচল স্বাভাবিক হওয়ায় যাত্রীরা চরম ভোগান্তি থেকে রক্ষা পেয়েছে বলে অনেকে জানিয়েছেন।
এসব রুটে চলাচলকারী যাত্রীরা বলেন, প্রতিদিন সকাল-বিকেল এ রুটগুলোতে ডেমু ট্রেনে চলাচল করে। ডেমুতে চড়ে যাত্রীরা খুব আরামেই লাকসাম থেকে নোয়াখালী ও চাঁদপুর আসা-যাওয়া করতে পারবে। যাত্রীরা আরো জানায়, একটানা সাড়ে তিন মাস ডেমু বন্ধ থাকায় আমাদের চলাচলে খুবই কষ্ট করতে হয়েছে। কারণ এ রুটের অন্য ট্রেনগুলো ঢাকা ও চট্টগ্রাম থেকে ছেড়ে আসায় সময়সূচীর কোনো মিল পাওয়া যায় না। তাই অনেক সময় ঘন্টার পর ঘন্টা যাত্রীদের স্টেশনে অপেক্ষা করতে হয়।
এ বিষয়ে লাকসাম রেলওয়ে জংশনের উপ-সহকারী প্রকৌশলী (পথ) মোঃ লেয়াকত আলী মজুমদার জানান, রোববার থেকে লাকসাম-চাঁদপুর ও লাকসাম-নোয়াখালী রুটে ডেম্যু ট্রেন চলাচল শুরু করেছে। এর আগে হরতাল-অবরোধের কারনে রেলওয়ের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে নাশকতার আশংকায় ডেমু ট্রেনের চলাচল বন্ধ থাকে।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...