ময়নামতিতে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযানে ভূয়া মহিলা ডাক্তারের ৬ মাসের কারাদন্ড

মো.জাকির হোসেন :–

কুমিল্লার ময়নামতি ক্যান্টনমেন্ট সেনানিবাস এলাকায় মঙ্গলবার দুপুরে কুমিল্লা সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নেতৃত্বে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করে একটি বাসা থেকে সরকারী ঔষধ, অবৈধ গর্ভপাতের সরঞ্জামাদী ও বিপুল পরিমানের সুই-সিরিজ উদ্ধার করা হয়েছে। এসময় ওই বাসার মালিক ভূয়া ডাক্তার সুরাইয়া আক্তারকে ৬ মাসের সাজা প্রদান করেছে ভ্রাম্যমান আদালত।
জানা যায়, দীর্ঘদিন যাবত কুমিল্লা ক্যন্টনমেন্ট সেনানিবাস সংলগ্ন ময়নামতি জেনারেল হাসপাতালের পিছনে নিশ্চিন্তপুর এলাকায় সুুরাইয়া আক্তার নামে গাইনী ডাক্তার পরিচয়দারী এক মহিলা তার বাসায় অবৈধ্য ভাবে মহিলাদের গর্ভপাতসহ মহিলাদের বিভিন্ন রোগের চিকিৎসা করে আসছে। এ খবরে মঙ্গলবার ৩১ মার্চ মঙ্গলবার দুপুর সাড়ে ১২ টায় কুমিল্লা সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ হেলাল উদ্দিন ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেন। এসময় সদর উপজেলা সহকারী কমিশনার শামীম আহাম্মেদ, ভারপ্রাপ্ত ডেপুটি সিভিল সার্জন ডাঃ শাহাদাত হোসেন, নাজিরা বাজার পুলিশ ফাঁড়ীর এস আই সাইফুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন। অভিযানে সুরাইয়া আক্তারের বাসা থেকে বিক্রয় নিষিদ্ধ সরকারী ঔষধ, গর্ভপাতের কাজে ব্যবহৃত যন্ত্রপাতি, গর্ভপাতের জন্য জরুরী ইঞ্জেকশন, বিপুল পরিমান সুই-সিরিজ-সেলাইন উদ্ধার করা হয়। ভ্রাম্যমান আদালতের কাছে সুরাইয়া আক্তার নিজেকে পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা দাবী করলে সে কোন কাগজপত্র কিংবা কোন সরকারী অভিজ্ঞতা সনদ দেখাতে পারেনি। ৪ ঘন্টাব্যাপী অভিযান শেষে ভ্রাম্যমান আদালত ওই বাসার সকল যন্ত্রপাতি ও অবৈধ্য সব ঔষধ জব্দ করে এবং অবৈধ্য এই কাজে জড়িত থাকার অপরাধে সুরাইয়া আক্তারকে ৬ মাসের সাজা প্রদান করে। স্থানীয়রা জানায়, ৭/৮ বছর ধরে সুরাইয়া আক্তার এই ব্যবসা পরিচালনা করে আসছে। তার স্বামীর নাম রহমত আলী, সে পেশায় একজন এডভোকেট, তাদের নিজ বাড়ী দেবিদ্বার উপজেলায়।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...