নাঙ্গলকোটের গোহারুয়া হাসপাতালটি এখন গো-চারণ ভূমি

 

মো. আলাউদ্দিন :–
কুমিল্লার নাঙ্গলকোট উপজেলার গোহারুয়া হাসপাতালটি এখন গো-চারণ ভূমিতে পরিণত হয়েছে। উদ্বোধনের পর দীর্ঘ ৮ বছর কার্যক্রম না থাকায় লতা-পাতায় ঢেকে আছে হাসপাতালের ছোট-বড় ৯টি ভবন। স্থানীয় এলাকাবাসী হাসপাতাল এলাকাটিকে এখন গরু-ছাগল বিচরণের স্থান হিসেবে ব্যবহার করছে। এদিকে ডাক্তার-নার্সসহ ১৩টি পদে ১৮ জনবল মঞ্জুরি থাকলেও হাসপাতালটির শুরু থেকে রোগী-ডাক্তার কারোরই কোন উপস্থিতি নেই।
সরজমিনে ঘুরে জানা যায়, ২০০৬ সালের ১৭ অক্টোবর ৬ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত গোহারুয়া ২০ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতালটি উদ্বোধন করা হয়। উদ্বোধনের পর হাসপাতালের বহির্বিভাগে হাতেগোনা মাত্র কয়েকদিন রোগী দেখা হয়। ডাক্তার, নার্স এবং নিরাপত্তাপ্রহরী না থাকায় বর্তমানে হাসপাতাল এলাকাটি এখন গো-চারণভূমিতে ভূমিতে পরিণত হয়েছে। রাতের আঁধারে চোরের দল দরজা-জানালা খুলে নিয়ে যাচ্ছে।
এ বিষয়ে উপজেলার জোড্ডা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলী আক্কাস বলেন, গোহারুয়া ২০ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতালটি চালু হলে কুমিল্লার নাঙ্গলকোট, মনোহরগঞ্জ ও নোয়াখালীর সেনবাগ উপজেলার প্রায় ৩ লক্ষ মানুষ চিকিৎসাসেবা পেতেন।
নাঙ্গলকোট উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মোঃ সামছুউদ্দিন জানান, বকেয়া বিলের জন্য গোহারুয়া ২০ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতালটির বিদ্যুৎ লাইন কেটে দেওয়া হয়েছে। খুলে নেওয়া হয়েছে বৈদ্যুতিক মিটারটিও। ডাক্তার-নার্সদের জন্য থাকার জায়গা নেই। নেই বিদ্যুৎ ও পানির ব্যবস্থাও। নিরাপত্তা প্রহরী না থাকায় হাসপাতালের অনেক জিনিসপত্র চুরি হয়ে গেছে। এখন হাসপাতালটি চালু করতে হলে এখানকার অবকাঠামো নিশ্চিতের পাশাপাশি পূর্ণাঙ্গ জনবল নিয়োগ দিতে হবে। এ বিষয়ে বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তাদের অবহিত করেছি।
কুমিল্লা সিভিল সার্জন অফিস সূত্র জানায়, এই হাসপাতালে ১৩টি পদে ১৮জন জনবল মঞ্জুরি রয়েছে। পূর্ণাঙ্গ সেট জনবল নিয়োগ দিয়ে তাদের ওই হাসপাতালে ২ বছর টানা দায়িত্ব পালনের নির্দেশ দিতে হবে। কারণ বিচ্ছিন্নভাবে নিয়োগ দিলে কেউ গ্রাম এলাকায় থাকতে চাইবে না।
কুমিল্লা সিভিল সার্জন ডা. মুজিবুর রহমান বলেন, গোহারুয়া হাসপাতালটিতে বর্তমানে বিদ্যুৎ সংযোগ ও পানি সরবরাহের কোন ব্যবস্থা নেই। রয়েছে জনবল সংকট। আমরা অতিদ্রুত জনবল নিয়োগ দেওয়ায় চেষ্টা করছি। এছাড়া হাসপাতালের ভবন সংস্কারের জন্য জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল বিভাগকে জানানো হয়েছে।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...