মনোহরগঞ্জে ইউপি চেয়ারম্যান ও আ.লীগ নেতা মোস্তফা কামালের সাংবাদিক সম্মেলন

আকবর হোসেন, মনোহরগঞ্জ প্রতিনিধি:–

বুধবার কুমিল্লার মনোহরগঞ্জে মৈশাতুয়া ইউপি চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতা মোস্তফা কামাল সাংবাদিক সম্মেলন করছেন। দৈনিক কালের কন্ঠ পত্রিকার ৮ মার্চ ২০১৫ তারিখের সংখ্যার শেষ পৃষ্ঠার প্রথম কলামে “কালের কন্ঠের সাংবাদিককে পেটালেন আ.লীগ নেতা” ও কয়েকটি জাতীয় দৈনিকে একাধিক শিরোনামে তার বিরুদ্ধে মিথ্যা সংবাদ প্রকাশের প্রতিবাদে গতকাল বুধবার মৈশাতুয়া ইউপি কার্যালয়ে তিনি এ সাংবাদিক সম্মেলন করেন। সাংবাদিক সম্মেলনে চেয়ারম্যান মোস্তফা কামাল বলেন, আমি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের উপজেলা সদস্য, মনোহরগঞ্জ বাজার পরিচালনা কমিটির সভাপতি এবং বিভিন্ন সমাজ সেবামূলক কর্মকান্ডে সম্পৃক্ত। কুমিল্লা-৯ (লাকসাম-মনোহরগঞ্জ) আসনের মাননীয় জাতীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব মো. তাজুল ইসলামের উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড যেন গতিশীল থাকে এবং এই এলাকার জনগণ শান্তি-নিরাপত্তার সাথে ব্যবসা-বাণিজ্য, চাকুরী, কৃষিসহ সকল পেশায় সুষ্ঠভাবে চলতে পারে সেদিকে অনেকের মত আমি লক্ষ্য রাখি। বেশ কিছুদিন ধরে লক্ষ্য করছি যে, দৈনিক কালের কন্ঠের সাংবাদিক আবদুর রহমান উপজেলা পরিষদের বিভিন্ন সরকারী দপ্তরে গিয়ে কর্মকর্তা-কর্মচারীগণকে ভয়-ভীতি দেখায় এবং চাঁদা দাবী করছে। এতে সরকারী দপ্তরগুলিতে কাজ-কর্মে ব্যাঘাত ঘটছে এবং কর্মকর্তা-কর্মচারীগণ ক্ষোভ প্রকাশ করছেন। বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধানগণকে হুমকিসহ চাঁদা দাবী করেছে ওই সাংবাদিক। বড় কেশতলা উচ্চ বিদ্যালয় ও মনোহরগঞ্জ মাদ্রাসায় তার অপতৎপরতা জন-সম্মুখে প্রমাণিত হয়েছে। মনোহরগঞ্জ বাজারে কেউ দোকান ঘর নির্মাণ করলে তার নিকট চাঁদা দাবী করে ওই সাংবাদিক। ব্যবসায়ী আবু জাফর এ ব্যাপারে ভূক্তভোগী। গত ৬ মার্চ ২০১৫ তারিখ সাংবাদিক আবদুর রহমান বিভিন্ন সরকারী প্রজেক্টের কাজ বাধাগ্রস্থ করে আমার নিকট চাঁদা দাবী করে। এ ব্যাপারে হলুদ সাংবাদিকতা পরিহার এবং চাঁদাবাজী বন্ধ করার জন্য বললে সাংবাদিক আবদুর রহমান আমাকে দেখে নেওয়ার হুমকি প্রদান করে। তারই ধারাবাহিকতায় ৮ মার্চ ২০১৫ তারিখে দৈনিক কালের কন্ঠ পত্রিকায় আমার সুনাম ক্ষুন্ন করে সংবাদ ছাপানো হয়। আমি সাংবাদিক আবদুর রহমানকে না পিটালেও সে সাংবাদিক মহলে আমার রাজনৈতিক ক্যারিয়ার ক্ষতি করার অপপ্রয়াস চালিয়েছে। আমি তার হলুদ সাংবাদিকতা, চাঁদাবাজীর প্রতিবাদ জানাচ্ছি এবং আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা, ভিত্তিহীন ও বানোয়াট সংবাদ প্রকাশ করায় তার তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করছি এবং এ ব্যাপারে কালের কন্ঠ পত্রিকায় প্রতিবাদ পাঠিয়েছি। মিথ্যা সংবাদ প্রকাশসহ চাঁদাবাজীর বিষয়ে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের প্রক্রিয়া চলছে। সকল মিডিয়াকে সত্য সংবাদ প্রকাশের জন্য ধন্যবাদ জানাচ্ছি। সাংবাদিক সম্মেলনে উপজেলার সকল সাংবাদিক, স্থানীয় সুধী ও বিশিষ্টজনেরা উপস্থিত ছিলেন। এদিকে দৈনিক কালের কন্ঠ পত্রিকায় মনোহরগঞ্জ উপজেলার মৈশাতুয়া ইউপি চেয়ারম্যান ও আওয়ামীলীগ নেতা মোস্তফা কামালের বিরুদ্ধে মিথ্যা সংবাদ প্রকাশ করে মানহানি ও বিবিধ বানোয়াট তথ্য সরবরাহের প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছে স্থানীয় এলাকাবাসী। এসময় সাংবাদিক সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন মৈশাতুয়া ইউপি সদস্য ও প্যাণেল চেয়ারম্যান মফিজুর রহমান, ৫নং ওয়ার্ড মেম্বার শেখ ফরিদ, মৈশাতুয়া বাজার ব্যবসায়ী কমিটির সভাপতি আব্দুল মন্নান সওদাগর, আওয়ামীলীগ নেতা আসু মিয়া, মৈশাতুয়া ইউনিয়ন যুবলীগ নেতা আহসান উল্যাহ, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা বেল্লাল হোসেন, উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ন-সাধারণ সম্পাদক শেখ ফরিদ,ছাত্রলীগ নেতা শেখ মজিব, মৈশাতুয়া ইউনিয়ন তথ্য সেবা কেন্দ্রের পরিচালক ঝুটন ভট্টাচার্য্য সহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...