মনোহরগঞ্জে ছেলের হাতে মা আহতঃ ছেলে আটক

আকবর হোসেন, মনোহরগঞ্জ প্রতিনিধিঃ-

মা শব্দটি বড়ই মধুর, আর এই মা অনেক কষ্ট করে তার সন্তানকে মানুষ করে। যে নিজে না খেয়ে সন্তানকে খাওয়ায় সেই জগৎ জননী মাকে আঘাত করলে সেটা সহ্য করা যায় না। এমনি এক ঘটনা ঘটেছে সোমবার মনোহরগঞ্জ উপজেলার হাসনাবাদ ইউনিয়নের বাদুয়াড়া গ্রামে। প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, গতকাল সোমবার উপজেলার হাসনাবাদ ইউনিয়নের বাদুয়াড়া গ্রামের তাজুল ইসলাম (১৭) নামে এক ছেলে তার মাকে নির্মমভাবে লাঠি দিয়ে এলোপাথাড়ি হাতে-পায়ে আঘাত করে আহত করে। স্থানীয় এলাকাবাসী এ খবর শুনতে পেয়ে ঐ ছেলেকে আটক করে। ছেলের হাতে আহত অভাগিনী মায়ের নাম নাজমা বেগম (৪৫)। বাদুয়াড়া গ্রামের বিশিষ্ট সমাজসেবক এনামুল হক জানান, মাকে মেরে আহত করা এটা খুবই হৃদয় বিদারক ঘটনা। তাজুল ইসলামের বাড়ী নোয়াখালীর চাটখিল উপজেলার বানসা গ্রামে। সে ঐ গ্রামের মৃত হারুন মিয়ার ছেলে। তার মা নাজমা বেগম তাকে ও তার ছোট ভাই রবীকে নিয়ে নানার বাড়ী বাদুয়াড়া গ্রামে থাকে। অভাবের তাড়নায় নাজমা বেগম মানুষের বাড়ী বাড়ী কাজকর্ম করে দুই ছেলেকে নিয়ে খেয়ে না খেয়ে কোনোভবে জীবিকা নির্বাহ করছে। কিন্তু তাজুল ইসলাম কোনো কাজকর্ম না করে প্রতিদিন তার মায়ের কাছে টাকা-পয়সা চাইতো। প্রতিদিনের ন্যায় ঐ দিন টাকা চাইলে তার মা বলে, আমার কাছে কোন টাকা নেই। একথা বলার পর তাজুল বলে- ‘আমাকে প্রতিদিন দুটি করে ডিম খাওয়াতে হবে, না হলে তোমাকে আমি মারবো’। পরে তার মা বলে- কাজকর্ম করে খেতে পারিস না? একথা শুনার পর হঠাৎ করে তাজুল তার মায়ের উপর ক্ষিপ্ত হয়ে মাকে লাঠি দিয়ে আঘাত করে। এক পর্যায়ে ছেলের হাতে আহত নাজমা বেগম মাটিতে লুটিয়ে পড়ে। তখন আমরা এলাকাবাসী দৌড়ে গিয়ে নাজমা বেগমকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যাই এবং তাজুল ইসলামকে স্থানীয় চেয়ারম্যান কার্যালয়ে নিয়ে বন্ধি করে রাখলে আব্দুল কাদের নামে একজন গ্রাম পুলিশ তাকে সারা দিন পাহারা দেন। স্থানীয় এলাকাবাসী আরও জানান, এভাবে তাজুল ইসলাম তার মাকে প্রায় মারধর করে। হাসনাবাদ ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ আবদুল মুনাফ জানান- মায়ের গায়ে আঘাত করা এরকম নির্মম ঘটনা মেনে নেওয়া যায় না। কারণ মায়ের পায়ের নিচে সন্তানের বেহেশত। মাকে মারার দায়ে তাজুল ইসলামকে স্থানীয় এলাকাবাসী আটক করে। আমরা পুলিশে খবর দিয়েছি তাকে পুলিশ হেফাজতে দিয়ে দেয়া হবে। হাসনাবাদ ইউনিয়নে ভবিষ্যতে এ ধরনের ঘটনা কেউ ঘটালে সাথে সাথে তার বিরুদ্ধেও আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply