নাঙ্গলকোটে জামায়াত-শিবির নেতাকর্মীদের সাথে পুলিশের সংঘর্ষ; ওসিসহ আহত-৪, আটক-২

মো. আলা উদ্দিন :–

কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে জামায়াত-শিবির নেতাকর্মীদের সাথে পুলিশের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। রবিবার ভোর রাতে কুমিল্লা-নোয়াখালী আঞ্চলিক মহাসড়কের নাঙ্গলকোট উপজেলার আদ্রা ইউপির লুদুয়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এতে নাঙ্গলকোট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নজরুল ইসলাম পিপিএমসহ ৪জন আহত হয়েছে। এছাড়া ঘটনাস্থল থেকে ১২টি ককটেল ও ১টি পেট্রোল বোমাসহ গুলিবিদ্ধ অবস্থায় দুই জামায়াত কর্মীকে আটক করেছে পুলিশ। পুলিশ সূত্রে জানা যায়, রাত ৩টার দিকে নাশকতার উদ্দেশ্যে বিভিন্ন এলাকার জামায়াত-শিবির নেতাকর্মীরা কুমিল্লা-নোয়াখালী সড়কের লুদুয়া পেট্রোলপাম্প এলাকায় জড়ো হয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছালে তাদের উপস্থিতি টের পেয়ে জামায়াত-শিবির নেতাকর্মীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে ককটেল, পেট্রোলবোমা এবং ১৫/২০ রাউন্ড গুলি নিক্ষেপ করে। এতে ওসি নজরুল ইসলাম পিপিএম ও কনস্টেবল কামাল হোসেন আহত হন। তখন পুলিশও জামায়াত-শিবিরকে লক্ষ্য করে ৮ রাউন্ড গুলি নিক্ষেপ করে। এতে উপজেলার দৌলখাঁড় ইউপির বাম গ্রামের আবদুল হালিমের ছেলে জামায়াত কর্মী বেলায়েত হোসেন (৪৫) এবং একই গ্রামের মৃত হাদির আলীর ছেলে শিবির কর্মী বেল্লাল হোসেন (২৬) গুলিবিদ্ধ হয়। অবস্থা বেগতিক দেখে জামায়াত-শিবিরের অন্যান্য নেতাকর্মীরা পালিয়ে যায়। পুলিশ আহত ওসি, কনস্টেবল ও গুলিবিদ্ধ দুই জামায়াত কর্মীকে উদ্ধার করে নাঙ্গলকোট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। অবস্থার অবনতি ঘটলে ভোর রাতেই আহত জামায়াত কর্মীদের কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। এ বিষয়ে রবিবার সকালে নাঙ্গলকোট থানার এসআই বাবর আলী বাদী হয়ে দ্রুত বিচার আইনে ২০ জনের নাম উল্লেখসহ জামায়াত-শিবিরের ৩০ নেতাকর্মীর নামে মামলা দায়ের করেন।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply