ফার্স্ট লেডি অবিবাহিত

ঢাকা :—

গ্রিসের নতুন প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়েছেন আলেকসিস টিটিপ্রাস। আর এজন্য দুটি কোয়ালিশন গড়ে তুলতে হয় তাকে। প্রথম কোয়ালিশন বামদের সঙ্গে লড়ে আইনসভার নির্বাচনে জিতেছেন। কিন্তু সে জেতাই যথেষ্ট ছিল না।

আরো কিছু ভোটের জন্য তাকে কোয়ালিশন সরকার গঠন করতে হয় স্বাধীন গ্রিক দলগুলোর সঙ্গে। তবে গ্রিসের চে গুয়েভারা খ্যাত আলেকসিসের সাফল্যের মূলে শোনা যাচ্ছে এক নারীরও নাম। এমিলি ট্রাপ নামে পরিচিত হলেও তার আসল নাম পেরিসেটেরা বাতৎসিয়ানা।

তিনি আলেকসিসের শিশুকালের প্রণয়িনী, জীবনসঙ্গিনী। কিন্তু অন্য ফার্স্ট লেডিদের মতো জনসমক্ষে সহজে আসেন না তিনি। যাকে বলে ক্যামেরা শাই, তিনি আসলে তাই। নিকটজনের কাছে বেটি নামে পরিচিত এ নারী হতে যাচ্ছেন গ্রিসের প্রথম অবিবাহিত ফার্স্ট লেডি।

বিস্ময়কর হলেও সত্য যে, বিয়ের বিষয়টা নেই তাদের মাথায়। আলেকসিস-বেটি যুগল তাদের তিরিশ বছরের প্রণয় সম্পর্ক রেখেছেন যথাসাধ্য আড়ালে। বেটির আগে সকল ফার্স্ট লেডিই থেকেছেন গ্রিক প্রধানমন্ত্রীর সরকারি মাকসিমোস ম্যানসনে, কিন্তু এখনো সেই বিলাসউজ্জ্বল পরিবেশের দিকে আগ্রহ দেখাননি তিনি।

বর্তমানে তিনি বসবাস করছেন এথেন্সের কিপসেলি এলাকায় শ্রমজীবীদের প্রাণকেন্দ্রে অবস্থিত একটি ফ্ল্যাটে। সেখানে দুই তরুণ সন্তান ও সঙ্গীকে নিয়ে জীবন কাটিয়ে এসেছেন তিনি। তাদের ওই দুই সন্তানেরই মাঝের নাম আরনেসতো। মধ্য গ্রিসের থেসালিতে বেড়ে ওঠা বেটি মাধ্যমিক স্কুলে থাকতে ঝুঁকে পড়েন বাম রাজনীতিতে।

সেখানে ১৯৮৭ সালে তার পরিচয় আলেকসিসের সঙ্গে। দুজনেই আশির দশকে আথেন্সের ছাত্র আন্দোলনে যোগ দেন। তখনই মূলধারার রাজনীতিক ও শিক্ষাসংস্কারের প্রতি হতাশ হয়ে পড়েন তারা। বেটি পরে পাটরাস বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়েন ইলেকট্রিকাল ইনজিনিয়ারিং বিষয়ে।

ছাত্রজীবনের যুদ্ধংদেহী মনোভাব তখনও দাউদাউ করে জ্বলতে তার মধ্যে। নিজের প্রাপ্ত পিএইচডি রক্ষা করতে তিনি তার এক অধ্যাপকের বিরুদ্ধে লড়াই করেছেন কোর্টে। আলেকসিসের আগেই বেটি যোগ দেন কমিউনিস্ট ইউথ পার্টিতে। বোঝা যায় তার প্রণোদনাতেই তিনি সহযোদ্ধা হয়েছেন তার।

Check Also

কুমিল্লায় তিন গৃহহীন নতুন ঘর পেল

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ– কুমিল্লা সদর উপজেলায় গ্রামীণ উন্নয়ন সংস্থার উদ্যোগে ৪নং আমড়াতলী ইউনিয়নের গৃহহীন নুরজাহান বেগম, ...

Leave a Reply