দেবিদ্বারে চাদাবাজীর অভিযোগে ১৪ দিনের সাজা

এবিএম আতিকুর রহমান বাশার :–

দেিবদ্বারে সিএনজি চালিত অটো রিক্সা ষ্ট্যাশনে চাদাবাজীর অভিযোগে রুবেল বক্শি(২২) নামে এক যুবককে ১৪দিনের কারাদন্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমান আদালত। সাজাপ্রাপ্ত রুবেল বক্শি দেবিদ্বার উপজেলার ওয়াহেদপুর গ্রামের মোঃ বাচ্চু মিয়ার পুত্র।
মঙ্গলবার বিকেলে ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) দাউদ হোসেন চৌধূরীর নিজ কার্যালয়ে ওই রায় প্রদান করেন। এসময় দেবিদ্বার থানার উপ-পরিদর্শক(এসআই) মোঃ জাকির হোসেন ও ভূমি অফিসের অন্যান্য কর্মকর্তাগন উপস্থিত ছিলেন।
পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলার ওয়াহেদপুর বাজারে সিএনজি চালিত অটো রিক্সা থামিয়ে রুবেল বক্শি নামে এক যুবক চাদা আদায় করে আসছিল। এসময় ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) দাউদ হোসেন চৌধূরীসহ ভূমি অফিসের কয়েকজন কর্মকর্তা ও কর্মচারী রসুলপুর এলাকায় খাস জমি পরিদর্শন শেষে একটি সিএনজি চালিত অটো রিক্সাযোগে ফেরার পথে ওয়াহেদপুর বাজারে রুবেল বক্শি তাদের বহনকারী সিএনজি চালিত অটো রিক্সাটি গতিরোধ করেন। এসময় চালক এসিল্যান্ড গাড়িতে আছেন বলে জানালেও গাড়ির সামনের গ্লাসে সজোরে থাপ্পর মেরে সিএনজি ষ্ট্যাশনের ২০টাকা জিবি দাবী করে।
নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট তার পরিচয় জানতে চাইলে সে উক্ত ষ্ট্যাশনের ইজারাদারের কেরানী পরিচয় দেন। সিএনজি ষ্ট্যাশনের ইজারা নেয়ার বৈধ কাগজপত্র দেখাতে বললে সে জানায় তার কাগজ পত্র সবই আছে। পরে কাগজপত্র দেখাতে না পারলে তাকে এ্যসিল্যান্ড অফিসে নিয়ে আসেন। বিকেল ৫টা পর্যন্ত বৈধ কাগজপত্র দেখাতে না পারায় দঃবিঃ ১৮৬০’র ১৮৬ ধারায় ৬মাসের কারাদন্ড প্রদানের করেন।
স্থানীয়রা আরো জানান, দেবিদ্বার পৌর এলাকার দু’টি সিএনজি চালিত অটো রিক্সা ষ্ট্যাশন ছাড়া আর কোন ষ্ট্যাশন ইজারার আওতায় না থাকলেও একটি প্রভাবশালী মহল প্রশাসনের অনুমতি ছাড়াই উপজেলার বিভিন্ন ষ্ট্যাশন আড়াই লক্ষ টাকা থেকে পাঁচ লক্ষ টাকা নিয়ে ইজারা প্রদান করে আসছেন। এ ছাড়াও সরকারের তদারকীর অবর্তমানে দেবিদ্বার পৌর এলাকার ইজারাদার প্রতিটি সিএনজি চালিত অটো রিক্সা থেকে এক হাজার টাকা করে নিবন্ধন ফি আদায় করছেন। নিবন্ধন ফি’র কয়েক কোটি টাকা আদায় হলেও ওই টাকা সরকারী কোষাগারে জমা হচ্ছেনা।
উপজেলার প্রায় পাঁচ হাজার সিএনজি চালিত অটো রিক্সা থাকলেও প্রশাসনের নেই কোন তদারকী। অতিরিক্ত জিবি আদায়সহ নানা ভাবে চালক ও মালিকরা হয়রানী হচ্ছেন। নিয়ন্ত্রন না থাকায় যাত্রীরাও সীমাহীন ভোগান্তি পোহাচ্ছেন। দেবিদ্বার থেকে পোনরা বাজার পর্যন্ত পাঁচ টাকার ভাড়া পনের টাকা আদায় এবং দেবিদ্বার থেকে বাগুর বাস ষ্ট্যাশনের বিশ টাকার ভাড়া চল্লিশ টাকা থেকে পঞ্চাশ টাকা আদায় হচ্ছে। এছাড়াও সিএনজি চালক থেকে তিন টাকার জিবির স্থলে চল্লিশ টাকা আদায় হচ্ছে। ইচ্ছে স্বাধীনভাবে চালকরা যাত্রীদের কাছ থেকে ভাড়া আদায় করলেও সংশ্লিষ্ট ঠিকাদার ও প্রশাসনের কোন তদারকী না থাকায় যাত্রীদের সাথে চালকের প্রায়ই ঝগড়া-হাতা হাতি, বাগ বিতন্ডা চলে আসছে। চালক, মালিক ও যাত্রীদের চলাচলে নীতিমালা প্রণয়নে প্রশাসনের প্রতি জোর আবেদন জানিয়েছেন ভোক্তভূগিরা।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply