কুমিল্লায় বিএনপি-আওয়ামী লীগ সংঘর্ষ; পুলিশসহ আহত-১৮

মো. আলা উদ্দিন, কুমিল্লা:–

কুমিল্লা নগরীর কান্দিরপাড় এলাকায় বিএনপি-আওয়ামী লীগের মধ্যে সংঘর্ষে চার পুলিশ সদস্যসহ ১৮ জন আহত হয়েছেন। এদের মধ্যে ছাত্রদলের তিনজন গুলিবিদ্ধসহ ১৪ নেতাকর্মী আহত হয়েছেন বলে দাবি করেছেন ছাত্রদল। এ সময় শতাধিক ককটেল বিস্ফোরণ ও গুলি বিনিময়ের ঘটনা ঘটেছে। এছাড়াও মহানগরীর কান্দিরপাড়ে অবস্থিত জেলা বিএনপির কার্যালয় ভাঙচুর ও জামায়াত সমর্থক আখতার হোসেনের একটি মোটরসাইকেল পুড়িয়ে দেয় ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা। রোববার দুপুরে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।
এদিকে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে গিয়ে বিএনপি-আ.লীগের ছোড়া ইট-পাটকেলের আঘাতে চার পুলিশ সদস্য আহত হন। তারা হলেন-কোতোয়ালি থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) শামসুজ্জামান, উপ-পরিদর্শক (এসআই) নাসির, সেকেন্ড অফিসার সালাউদ্দিন ও কনস্টেবল আনোয়ার। তবে আহত বিএনপি নেতাকর্মীদের পরিচয় পাওয়া যায়নি।
স্থানীয় সূত্র জানায়, দুপুরে বিএনপি ও ছাত্রদল নেতাকর্মীরা জেলা বিএনপি কার্যালয়ে অবস্থান করছিল। এদিকে, আওয়ামী লীগ ও ছাত্রলীগ-যুবলীগ নেতাকর্মীরা হরতাল ও অবরোধ বিরোধী মিছিল নিয়ে কান্দিরপাড় এলাকা অতিক্রম করছিল। এসময় উভয় গ্র“প একে অপরকে পাল্টা-পাল্টি ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করে। একপর্যায়ে উভয় গ্র“প অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এতে রণক্ষেত্রে পরিণত হয় কান্দিরপাড় এলাকা।
এছাড়া একইদিন সকালে হরতালের সমর্থনে ২০ দলের নেতাকর্মীরা মিছিল নিয়ে চকবাজার এলাকায় আসলে ছাত্রলীগ-যুবলীগের নেতাকর্মীদের সঙ্গে তাদের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া হয়। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ৬ রাউন্ড শর্টগানের গুলি ও ১টি টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে। সংঘর্ষ চলাকালীণ সময় ৭টি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটানোর বিষয়টিও নিশ্চিত করেছে পুলিশ।
কোতোয়ালি থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) শামসুজ্জামান জানান, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে প্রায় ৭০/৮০ রাউন্ড রাবার বুলেট ও ২০টি টিয়ারশেল নিক্ষেপ করা হয়। এদিকে সংঘর্ষ পরবর্তী নাশকতা এড়াতে নগরীর মোড়ে মোড়ে পুলিশ, র‌্যাব ও বিজিবি টহল দিচ্ছে।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply