অবরোধে অচল নিমসার কাচাঁবাজার : বেঁচা-কেনা না থাকায় হতাশ ব্যবসায়ীরা

মো. জাকির হোসেন :–

কুমিল্লার ঐতিহ্যবাহী নিমসার কাঁচাবাজার। অবরোধে কেনা-বেচা প্রায় শূন্যের কোঠায়। প্রতিদিন যেখানে ভোর থেকে শত শত ট্রাক-কভার্ডভ্যান থেকে মালামালা উঠানামায় ব্যস্ত থাকতো ক্রেতা-বিক্রেতারা, সেখানে অবরোধের কারনে যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকায় ব্যবসায়ীদের মাঝে হতাশা বিরাজ করছে। কোন কোন ব্যবসায়ী ঝুঁকি নিয়ে দেশের বিভিন্নস্থান থেকে উচ্চ মূল্যে গাড়ি ভাড়া দিয়ে মালামাল নিয়ে আসলেও ক্রেতা না থাকায় তাদের মালামাল বিক্রি না হওয়ায় লোকসান গুনতে হচ্ছে। পাশাপাশি যানবাহনের অভাবে আমদানী কম থাকায় জেলায় তরকারীর সরবরাহ অনেক কমে গেছে। এতে বেড়ে গেছে খুচরা বাজারের তরকারী মূল্যর। এ অবস্থায় সাধারন মানুষ ও ক্ষুব্ধ।
সরেজমিন ঘুরে বিভিন্ন সুত্রে পাওয়া খবরে জানা যায়, জেলার বুড়িচং উপজেলার মোকাম ইউনিয়নের নিমসার কাঁচাবাজার। ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কের পাশেই এর অবস্থান। প্রতিদিন দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে বহু ট্রাক-কভার্ডভ্যান আসে তরকারী নিয়ে। আবার সেখান থেকে বহু পাইকার সেই তরকারী কিনে আবারো বিভিন্ন জেলায় নিয়ে যায়। মহাসড়কের কোল ঘেষে বাজারটির অবস্থান হওয়ায় ভোর থেকে দুপুর পর্যন্ত প্রতিদিনই এখানে কমবেশী যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে। গত ১১ দিন ধরে বিএনপি সহ ২০ দলের ডাকা দেশব্যাপী অবরোধ ঘোষনার পর থেকে বাজারের চিত্রও বদলাতে থাকে। বাজারে এখন আর আমদানী যেমন একেবারেই কমে গেছে, তেমনি বিক্রয়ও কম। কিছু কিছু ব্যবসায়ী ঝুঁকি নিয়ে উচ্চ মূল্যে ট্রাক-কভার্ডভ্যান ভাড়া করে নিমসার বাজারে তরকারী নিয়ে আসে কিন্তু ক্রেতা না থাকায় তাকে গুনতে হচ্ছে লোকসান। সুত্র জানায়, প্রতিদিন রাজশাহী, দিনাজপুর, রংপুর, ঠাকুরগাঁও, সিরাজগঞ্জ, পাবনা, বগুড়া, টাঙ্গাইল, ঝিনাইদহ, নোয়াখালী, ময়মনসিংহ, জামালপুর প্রভৃতি জেলা হতে আলু, টমেটো, বেগুন, কাচাঁমরিচ, খিরা, শশা, ফুলকপি, বাধাঁকপি, লাউ, শিম, মিষ্টিকুমড়া, গাজর, শালগম, পটল, ঝিঙ্গাসহ বিভিন্ন তরিতরকারী আসে এই বাজারে। পরে এখান থেকে আবার পাইকাররা ক্রয় করে পুনরায় বিভিন্ন স্থানে বিক্রয়ের জন্য নিয়ে যায়। কিন্তু সম্প্রতি বিএনপি সহ ২০ দলের অবরোধ ঘোষনার পর থেকে এই বাজারটিতে যানবাহন সংকটের কারনে মালামাল আসা প্রায় বন্ধ। যদিও কোন কোন ব্যবসায়ী উচ্চ মূল্যে যানবাহন ভাড়া করে পণ্য নিয়ে আসে, কিন্তু ক্রেতা না থাকায় তারা হতাশ। একই ভাবে বাজারে ক্রেতা না থাকায় স্বল্প মূল্যে মালামাল বিক্রি করতে বাধ্য হচ্ছে। এতে লোকসান গুনতে হচ্ছে তাদেও । ফলে বাজারটি এখন ক্রেতা-বিক্রেতা শূণ্য। সুত্র জানায়, আগে যেখানে উত্তরবঙ্গ থেকে আসা প্রতিটি ট্রাকের ভাড়া ছিল ১৭/১৮ হাজার টাকা সেখানে অবরোধে সেই ট্রাকের ভাড়া বর্তমানে ৫৪ খেকে ৪৮ হাজার টাকা। গতকাল তেমনি অবরোধে সিরাজগঞ্জ থেকে ৪৮ হাজার টাকায় ট্রাক ভাড়া কওে বেগুণ নিয়ে এসেছিল এক ব্যবসায়। তিনি জানান,১৫ টাকা কেজি ধরে মাল ক্রয় করলেও নিমসার বাজারে এসে ক্রেতা না থাকায় ৪ টাকা ধরে বেগুণ বিক্রয় করতে বাধ্য হই। এতে তার কমপক্ষে ৬০ হাজার টাকা লোকসান গুনতে হয়। প্রতিদিনের এই চিত্রে বাজারটিতে যেমন স্থবিরতা দেখা দিয়েছে, তেমনি বাজারে বেচাঁ-কেনা সহ বিভিন্নভাবে জড়িত প্রায় ১ হাজার মানুষের দৈনন্দিন রুটি-রুজিঁও বন্ধের সম্মুখিন। এব্যাপারে নিমসার বাজারের সাধারন সম্পাদক আব্দুল কাদের জিলানী জানান, অবরোধে বাজারটির অবস্থা বেহাল। প্রতিদিন এই অবরোধের ফলে প্রায় কোটি টাকার লোকসান গুনতে হচ্ছে বাজারটির।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply