যৌন কেলেংকারীর অভিযুক্ত পৌর কাউন্সিলরের ছেলে নবীনগরে পুলিশের নজরদারী থেকে পলাতক

সাধন সাহা জয়: নবীনগর (ব্রাহ্মণবাড়িয়া):–

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর পৌরসভার ১.২.৩ নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর রশিদা বেগমের ছেলে যৌন কেলেংকারীর অভিযোগে অভিযুক্ত ফরহাদ মিয়া (২৪) পুলিশের নজরদারী থেকে পালিয়েছে।

যৌন হয়রানীর শিকার মাদ্রাসার ছাত্রী উপজেলার পৌরসদর পশ্চিম পাড়ার মনির হোসেন এর কন্যা পৌর মহিলা মাদ্রাসার দশম শ্রেনীর ছাত্রী ফাতেমা আক্তার জেরিন বাদী হয়ে ৪জনকে আসামী করে নবীনগর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেন, মামলা নং-২২।

এ ঘটনায় এলাকাবাসি সাংবাদিকদের কাছে ঘটনার বনর্না তুলে ধরে দ্রুত আসামীকে গ্রেফতারের দাবী জানান।

জানা যায়- এলাকার চিহিৃত দুশ্চরিত্রকারী ওই বখাটে ফরহাদ মেয়েটিকে দির্ঘদিন যাবত মাদ্রাসায় আসা যাওয়ার পথে উপ্তপ্ত করত ও কু-প্রস্তাব দিত। বিষয়টি তার পরিবারকে জানানো হলেও তার পরিবার কোন ব্যবস্থা নেয়নি উল্টো তার কু-প্রস্তাবে রাজি না হলে এসিড দিয়ে ঝলসে দেবার হুমকি দেয়।

গত রোববার বিকেলে ওই বখাটে ও তার সহযোগিরা মাদ্রাসা থেকে বাড়ি যাওয়ার পথে মেয়েটিকে জোরপূর্বক সিএনজিতে উঠিয়ে অপহরন করে নিয়ে কলেজ পাড়ার একটি বাড়িতে অজ্ঞান করে ফেলে রাখে। জ্ঞান ফিরলে ওই বখাটে রাতে ধর্ষণের চেষ্টা করলে মেয়েটির আত্বচিৎকারে এলাকারবাসী টের পেয়ে ওই বাড়িতে ঘেড়াও দিয়ে তাদের আটক করে গণধোলাই দেয় এবং আহত ওই বখাটেকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে পাঠায়। সেখান পুলিশের নজরদারিতে থাকা অব্স্থায় পালিয়ে যায় সে।
এ বিষয়ে অভিযুক্ত ফরহাদ মিয়া মা মহিলা পৌর কাউন্সিলর রশিদা বেগম সাংবাদিক কে বলে আমি এই বিষয়ে এখন কিছুই বলতে পারিবোনা, পরে বলবো।

এ ঘটনায় নবীনগর থানার ওসি রূপক কুমার সাহা বলেন, ‘পুলিশের নজরদারীতে ছিল ঠিক না,বিষয়টা সম্পর্কে অবগত ছিলাম,এলাকাবাসী গনধোলাই দিয়ে হাসপাতালে পাঠায়। সেখান থেকে সে পালিয়ে যায়। এরপর রাতে মামলা হয়। তাকে গ্রেফতারের অভিযান চলছে’ ।

Check Also

আশুগঞ্জে সাজাপ্রাপ্ত আসামির মরদেহ উদ্ধার

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি :– ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে মো. হারুন মিয়া (৪৫) নামে দুই বছরের সাজাপ্রাপ্ত এক আসামির ...

Leave a Reply