দেবিদ্বারে মাদকের টাকা না দেয়ায় মাদকাসক্ত পুত্রের হাতে পিতা খুন

স্টাফ রিপোর্টারঃ–

মাদক সেবনের জন্য দাবীকৃত টাকা না দেয়ায় এক মাদকাসক্ত পুত্রের হাতে প্রাণ দিতে হল মোঃ ইউনুছ(৫০) নামে হতভাগ্য এক পিতাকে। ঘটনাটি ঘটে শনিবার সন্ধ্যায় দেবিদ্বার পৌর এলাকার মরিচাকান্দা (চক্রকান্দিপাড়া) গ্রামে।
পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, মরিচাকান্দা গ্রামের মৃতঃ আয়েত আলীর ছেলে মোঃ ইউনুছ মিয়া(৫০)’র কাছে তার মাদকাসক্ত পুত্র মোঃ সোহেল রানা(২৫) মাদক সেবনের জন্য ২হাজার টাকা দাবী করে। পিতা তা দিতে অস্বীকৃতি জানালে দা’ দিয়ে কুপিয়ে মারাত্মক রক্তাক্ত ও জখম করে পালিয়ে যায়। স্থানীয়রা তাকে প্রথমে দেবিদ্বার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রথমিক চিকিৎসা সেবা প্রদান করে, পরে আশংকাজনক অবস্থায় কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তরিত করে। কুমেক হাসপাতালেও তার অবস্থা অবনতি ঘটলে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়। ঢামেক হাসপাতালে নেয়ার পথে রাত সাড়ে ৭টায় তিনি মারা যান।
মোঃ ইউনুছ মিয়া(৫০)’র ৪ছেলে ও ১মেয়ের মধ্যে মোঃ সোহেল রানা দ্বিতীয়। ইউনুছ মিয়া দুই ছেলেকে নিয়ে প্রবাসে ছিলেন, পুত্রের অবনতিতে তিনি দুই পুত্রকে প্রবাসে রেখে দেশে এসে মরিচাকান্দা মসজিদ মার্কেটে ‘সৌরভী ডেকোরেটর’ নামে একটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খুলেন। সোহেল রানা বিগত কয়েক বছর যাবৎ মাদকাসক্ত হওয়ার কারনে এলাকায় বিভিন্ন নাশকতার সাথে যুক্ত হয়ে পড়ে। সর্বশেষ তার মাদকের টাকা এবং বিভিন্ন অপকর্মের জরিমানা পরিশোধে একটি সিএনজি চালিত অটোরিক্সা বিক্রি করে তার মা’ ওই টাকা পরিশোধ করেন। পিতা ইউনুছ মিয়া দেশে এসে পুত্র সোহেল রানাকে ‘মাদক নিরাময় ক্লিনিকে’ ভর্তি করায়, দির্ঘসময় নিরাময় ক্লিনিকে থাকার পর ক্লিনিকের টাকা বকেয়ার কারনে তাকে ক্লিনিক মালিক ৪/৫মাস পূর্বে বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়। বাড়িতে এসে আবারো নেশায় জড়িয়ে পড়ে।
দেবিদ্বার থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) মোঃ মিজানুর রহমান বলেন, ওই ঘটনায় দেবিদ্বার থানার উপ-পরিদর্শক(এসআই) মোঃ জাকির হোসেন বদী হয়ে মোঃ সোহেল রানাকে একমাত্র আসামী করে মামলা দায়ের করেছেন। আসামিকে গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত আছে।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply