দাউদকান্দিতে উপ-বৃত্তির টাকা আনতে গিয়ে পঞ্চম শেণির ছাত্রী গণধর্ষণের শিকার ॥ হাসপাতালে ভর্তি

আলমগীর হোসেন,দাউদকান্দি :–

দাউদকান্দিতে উপ-বৃত্তির টাকা আনতে গিয়ে বখাটেদের গণধর্ষণের শিকার হয়েছে দশপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সদ্য অনুষ্ঠিত প্রাথমিক সমপানী পরীক্ষার্থী। ঘটনাটি ঘটেছে গত শুক্রবার সন্ধ্যায় সুন্দলপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নিকটে পুকুর পাড়ের একটি ঝোঁপের মধ্যে। রাতেই ছাত্রীকে উদ্ধার করে আহত অবস্থায় গৌরীপুর হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ শুক্রবার রাতে ২ বখাটেকে গ্রেফতার করে। এ ব্যাপারে ছাত্রীর অভিভাবক দাউদকান্দি মডেল থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। পুলিশ ও ছাত্রীর অভিভাবক সূত্রে জানা যায়, শুক্রবার উপজেলার সুন্দুলপুর ইউনিয়নের সকল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের উপ-বৃত্তির টাকা দেওয়া হচ্ছিল। অন্যান্য ছাত্রীদের সাথে ওই ছাত্রীও সুন্দুলপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে উপ-বৃত্তির টাকার জন্য যায়। ব্যাংক কর্মকর্তাদের সেই টাকা বিতরণ করতে দিন শেষে সন্ধ্যা হয়ে যায়। ছাত্রী যখন টাকা নিয়ে সন্ধ্যায় বাড়ি ফিরছিল তখন ছাত্রীকে জোর পূর্বক পুকুর পাড়ে ধরে নিয়ে যায় সুন্দুলপুর গ্রামের বসু মিয়ার ছেলে রবিউল (২৮), তার বন্ধু হৃদয় (২৪), রিয়াদ (২৫) ও সুমন (২৪)। পরে মুখ চেপে ধরে ঝোঁপের মধ্যে নিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণ করে তাকে অসুস্থ অবস্থায় ফেলে রেখে পালিয়ে যায় বখাটেরা। ছাত্রীর চিৎকার শুনে আসে-পাশের লোকজন এগিয়ে যায়। ছাত্রীর অবস্থা দেখে এলাকাবাসী থানা পুলিশকে খবর দেওয়া হয়। পুলিশ ছাত্রীকে উদ্ধার করে প্রথমে গৌরীপুর হাসপাতাল পরে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজে হাসপাতালে ভর্তি করে। ছাত্রীর মায়ের সাথে আলাপকালে তিনি বলেন, অন্যান্য ছাত্রীদের সাথে আমার মেয়েকেও উপ-বৃত্তির টাকার জন্য গিয়েছিল। কিন্তু নরপশুরা আমার ছোট মেয়েটির এমন সর্বনাস করবে তা কখনো ভাবতে পারি নাই। আমি এ ঘটনার বিচার ও তাদের ফাঁসি চাই। স্কুলের প্রধান শিক্ষিকা হাতেমা আক্তার বলেন, ধর্ষণকারীদেরকে গ্রেফতার করতে আমরা প্রশাসনের কাছে জোর দাবি জানাচ্ছি। তাদের গ্রেফতার ও দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবীতে স্কুলের ছাত্র/ছাত্রীরা মানব বন্ধন সহ বিভিন্ন কর্মসূচী করবে। এ ব্যাপারে দাউদকান্দি মডেল থানার অফিসার ইনর্চাজ মোহাম্মদ আবু ছালাম মিয়া জানান, ছাত্রীকে উদ্ধার করে গৌরীপুর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। এদিকে ধর্ষণকারীদেরকে মধ্যে দুইজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অন্যদের ধরার জন্য পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে। গ্রেফতারকৃতরা হলো সুন্দুলপুর গ্রামের বসু মিয়ার ছেলে একটি হত্যা মামলার আসামী রবিউল (২৮) এবং একই গ্রামের আবুল হাসেমের ছেলে সুমন মিয়া (২৪)। অন্যরা পলাতাক রয়েছে। এদিকে আজ শনিবার বখাটে ধর্ষণকারীদেরকে গ্রেফতার ও দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবিতে সুন্দলপুর বাজারে বিক্ষোভ মিছিল করেছে এলাকাবাসী।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply