তিতাসে পিতা-মাতাহীন কিশোরীর রহস্যজনক মৃত্যু

নাজমুল করিম ফারুক :–

কুমিল্লার তিতাসে পিতা-মাতাহীন এক কিশোরীর রহস্যজনক মৃত্যুকে ঘিরে এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। সোমবার তিতাস থানা পুলিশ উপজেলার জগতপুর দ্বিতীয় দশানীপাড়া গ্রামের প্রাবাসী নাছির উদ্দিনের বসতঘরে ঝুলন্ত অবস্থায় মুক্তা আক্তার (১৬) এর লাশ উদ্ধার করে কুমিল্লা মর্গে প্রেরণ করে। নিহত মুক্তা আক্তার একই গ্রামের মৃত মনির হোসেনের কন্যা।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, মুক্তা আক্তারের বাবা মারা যাওয়ার পর তার মা অন্যত্র সংসার জীবনের জড়িয়ে গেলে মুক্তা আক্তার একা হয়ে যায়। সেই থেকে মুক্তার প্রবাসী চাচা নাছির উদ্দিনের সহযোগিতায় তার স্ত্রী ও মা সাথে একই ঘরে বসবাস করে আসছে। মুক্তার চাচী শারীরিক সমস্যার কারণে কিছুদিন আগে তার বাবার বাড়িতে চলে যায়। গত কয়েকদিন যাবৎ মুক্তা ও তার দাদী একই ঘরের আলাদা রুমে বসবাস করে আসছে। নিহতের দাদী জানান, রবিবার রাতে একই সাথে রাতের খাবার শেষে যার যার রুমে ঘুমাতে যায়। সোমবার সকালে অনেক ডাকাডাকি করেও কোন সারা শব্দ না পেয়ে দরজা খুলে ঘরের ভেতর গলায় ফাঁস লাগানো মুক্তাকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখা যায়। দাদীর চিৎকারে আশে-পাশের লোকজন এসে লাশ দেখে থানায় খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করেন। এসআই শফিকুর রহমান ভূঁইয়া ঝুলন্ত লাশ উদ্ধারের সত্যতা স্বীকার করে বলেন, নিহতের শরীরে আঘাতের তেমন কোন চিহ্ন নেই তবে ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পেলে বিস্তারিত জানা যাবে। প্রাথমিকভাবে ধারনা করা হচ্ছে এটি আত্মহত্যা। এদিকে পিতৃমাতৃহীন মুক্তার আত্মহত্যার কোন কারণ না থাকায় এই মৃত্যুকে ঘিরে রহস্যের সৃষ্টি হয়েছে এবং এলাকায় নানা গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply