তিতাসের ভয়ঙ্কর সন্ত্রাসী মোয়াজ্জেম গ্রেফতার

নাজমুল করিম ফারুক :–

কুমিল্লার তিতাসে আতাউর রহমানকে হত্যার পর লাশ গুম করার মামলার অন্যতম আসামী ভয়ঙ্কর সন্ত্রাসী মোয়াজ্জেম হোসেন (৩৫) কে গ্রেফতার করেছে তিতাস থানা পুলিশ। শনিবার রাত ২টায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের শহীদনগর বাস ষ্টেশন থেকে তাকে গ্রেফতার করে সোমবার কুমিল্লা জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়। গ্রেফতারকৃত মোয়াজ্জেম হোসেন উপজেলার দড়িকান্দি গ্রামের আঃ করিম ওরফে করম আলীর ছেলে। এদিকে নিখোঁজ হওয়া দু’বছর পেরিয়ে গেলেও সন্ধান মেলেনি উপজেলার শিবপুর গ্রামের দেলোয়ার হোসেনের ছেলে জাহাঙ্গীর আলমের। এলাকাবাসীর অনেকের ধারনা আতাউর রহমানকে হত্যা পর লাশ গুম করা চক্রটিই জাহাঙ্গীর আলমকে হত্যা করে একই কায়দায় লাশ গুম করতে পারে।
তিতাস থানার এসআই শহিদুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানা যায়, আতাউর রহমান হত্যাকাণ্ডের অন্যতম আসামী মোয়াজ্জেম হোসেন চট্টগ্রামের উদ্দেশ্যে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের শহীদনগর বাস ষ্টেশনে অপেক্ষা করছে। তাৎক্ষণিক পুলিশ অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করে থানা হাজতে নিয়ে আসে। ঘটনার বিবরণে জানা যায়, গত নভেম্বর মাসের ১৪ তারিখে মজিদপুর গ্রামে বেড়াতে গিয়ে নিখোঁজ হয় আতাউর। নিহতের বড় ভাই জিয়াউর রহমান বাদী হয়ে একটি অভিযোগপত্র দাখিল করলে তথ্য প্রমাণের ভিত্তিতে একই উপজেলার দড়িকান্দি গ্রামের বাদশা মিয়ার ছেলে আনোয়ার হোসেন (২৫), খবির মিয়ার পুত্র সুমন আহম্মেদ (২৪), সফিকুল ইসলামের ছেলে আমজারুল ইসলাম (২৫) ও একই উপজেলার শিবপুর গ্রামের রফিকুল ইসলামের ছেলে সালাউদ্দিন (২৬)কে গ্রেফকার করে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা স্বীকার করে আতাউরকে হত্যা করে লাশ মাটির নীচে চাপা দিয়ে রেখেছে। গত ৪ ডিসেম্বর আটককৃত আনোয়ার হোসেনকে নিয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে এবং তার তথ্যমতে ফসলী জমির ৫ ফুট মাটির নীচ থেকে আতাউর রহমানের লাশ উদ্ধার করে। টাকা লেনদের ও ভ্রাম্যমান পতিতা দিয়ে যৌন ব্যবসার ঘটনায় বাঁধা প্রদানের জের ধরে আতাউর রহমানকে হত্যা করা হয় বলে মামলার বাদী দাবি করেন। এদিকে গত বছরের ৩ জানুয়ারি নিখোঁজ হয় উপজেলার শিবপুর গ্রামের দেলোয়ার হোসেনের ছেলে জাহাঙ্গীর আলম। ৬ জানুয়ারি জাহাঙ্গীরের পিতা দেলোয়ার হোসেন একটি ডিজি করেন। নিখোঁজের পর থেকে আতাউর হত্যাকাণ্ডের আসামীদের জাহাঙ্গীরকে হত্যা করে লাশ গুম করেছে বলে দেলোয়ারের পরিবার থেকে দাবী করা হলেও দু’বছরে সন্ধান মেলেনি জাহাঙ্গীরের। এলাকাবাসী অবিলম্বে গ্রেফতারকৃত ৫ আসামীকে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদের মাধ্যমে জাহাঙ্গীরকে জীবিত অথবা মৃত উদ্ধারের দাবি জানিয়েছে।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply