নাসিরনগরে যুবলীগের কাউন্সিল শুক্রবার

আকতার হোসেন ভুইয়া,নাসিরনগর :–

টানা এগার বছর পর আগামী ৫ ডিসেম্বর শুক্রবার বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের নাসিরনগর উপজেলা শাখার সম্মেলন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। দুপুর ২ ঘটিকায় উপজেলা পরিষদ চত্বরে অনুষ্ঠিতব্য সম্মেলনে প্রধান অতিথি থাকবেন মৎস্য ও প্রানী সম্পদ মন্ত্রী এডভোকেট মোঃ ছায়েদুল হক এমপি। উপজেলা যুবলীগ সভাপতি অঞ্জন কুমার দেবের সভাপতিত্বে উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলামের পরিচালনায় অনুষ্ঠিতব্য সম্মেলনে বিশেষ অতিথি থাকবেন উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি ডাঃ রাফিউদ্দিন আহমেদ ও উপজেলা আওয়ামীলীগ সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা চেয়ারম্যান এটিএম মনিরুজ্জামান সরকার। সম্মেলনের উদ্বোধন করবেন জেলা আওয়ামী যুবলীগের সভাপতি এড্যাভোকেট মাহবুবুল আলম খোকন । প্রধান বক্তার বক্তব্য রাখবেন জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ সিরাজুল ইসলাম ফেরদৌস । এদিকে সম্মেলনের তারিখ ঘোষনার পর থেকেই নেতাকর্মীদের মধ্যে চাঙ্গাভাব বিরাজ করছে। সম্মেলনকে কেন্দ্র করে যুবলীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে বিরাজ করছে উৎসবের আমেজ। কর্মীদের মাঝে এমন সাড়ম্বর আয়োজন নতুন উদ্দীপনা তৈরি করছে । এ রিপোর্ট খেলা পর্যন্ত সাধারণ সম্পাদক পদে বর্তমান সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম বেলায়েতের বিকল্প কোন প্রার্থীর নাম শোনা না গেলেও সভাপতি পদে একজন প্রার্থীর নাম মাঠে চাউর আছে। ইলেকশন হবে নাকি সিলেকশন- এ নিয়ে উপজেলা জুড়ে চলছে আলোচনা। দলীয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের সর্বশেষ ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন ২০০৩ সালের ২৫ মে অনুষ্ঠিত হয়েছিল । এরপর ১১ বছরের বেশি সময় পেরিয়ে গেলেও আর সম্মেলন হয়নি। এই সম্মেলনকে ঘিরে প্রাণচাঞ্চ্যলতা বইছে তৃণমূল নেতাকর্মীদের মধ্যে। চলছে নানান জল্পনা কল্পনা। পদ প্রত্যাশি নেতারা প্রকাশ্যে না বললেও নীরবে কাউন্সিলারদের কাছে ধর্ণা দিচ্ছে। আর্শীবাদ নিচ্ছেন দলীয় নেতাদের। সম্মেলনকে ঘিরে তৃণমূল পর্যায়ের নেতা কর্মীরা প্রতিদিনই ভিড় করছে উপজেলা সদরে। এ মুহুর্তে কদর বেড়েছে ইউনিয়ন পর্যায়ের যুবলীগ নেতাকর্মিদের। গঠনতন্ত্র অনুযায়ী ইউনিয়ন পর্যায়ের নেতাদের ভোটেই গঠন করা হবে উপজেলা যুবলীগের কমিটি। সভাপতি, সম্পাদক সহ প্রত্যেক ইউনিয়নের ১৫ জন হবেন কাউন্সিলার। সেই হিসাবে উপজেলা মোট ভোটার সংখ্যা ২১০ জন। নির্বাচন হবে নাকি শেষ পর্যন্ত বর্তমান কমিটিই বহাল থাকবে এ নিয়ে আহগ্র সবার। একাধিক কাউন্সিলর মতে ভোট হলে দলের মধ্যে গ্রুপিং বাড়ে,কর্মীদের মধ্যে দূরত্ব তৈরি হয়। এজন্য সবার মতামতের ভিত্তিতে কমিটি হলেই ভাল হয়। তাদের ধারনা শেষ পর্যন্ত সমঝোতার ভিত্তিতেই কমিটি হবে।
উপজেলা যুবলীগ সভাপতি ও উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান অঞ্জন কুমার দেব বলেন সম্মেলনে তৃর্ণমূল পর্যায়ের নেতাকর্মীদের মতামতের প্রতিফলন ঘটবে। দলকে সুসংগঠিত করতে যাদের প্রয়োজন তারাই নেতৃত্বে আসবে।

Check Also

আশুগঞ্জে সাজাপ্রাপ্ত আসামির মরদেহ উদ্ধার

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি :– ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে মো. হারুন মিয়া (৪৫) নামে দুই বছরের সাজাপ্রাপ্ত এক আসামির ...

Leave a Reply