ভালোবীজ ছাড়া অধিক ফলন কোন ক্রমেই সম্ভব নয়—–উপ পরিচালক মনিরুল ইসলাম

শামসুজ্জামান ডলার :–

উচ্চ ফলনশীল ধান উদ্ভাবনের মাধ্যমে দেশ আজ খাদ্যে সয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন করেছে। আমাদের কৃষকদের উৎপাদিত ধান দেশের চাহিদা মিটিয়ে বিদেশেও রপ্তানী করা যাচ্ছে। ভালো বীজে অধিক ফলন। তাই ভালো বীজ ছাড়া অধিক ফলন কোন ক্রমেই সম্ভব নয়। আমাদের দেশের কৃষকদের ভালো বীজ দিতে পারলে তারা অধিক ফলন ফলিয়ে দেখাতে পারে। দেশ ক্রমাগতভাবে ভালো বীজ উৎপাদন বৃদ্ধি ও ব্যবহারের মাধ্যমে দেশ আজ খাদ্যে সয়ংসম্পূর্ণ হওয়ার দ্বারপ্রান্তে উপনীত হয়েছে। বীজ উৎপাদন, প্রক্রিয়াজাতকরণ, সংরক্ষণ ও বিতরণ কার্যক্রম প্রযুক্তিনির্ভর। তাই ভালো বীজ কৃষকদের মাঝে বিতরণের জন্য কৃষক পর্যায়েই ভালো বীজ উৎপাদন করছে কৃষি বিভাগ। বুধবার বিকেলে মতলব উত্তর উপজেলার গজরা ইউনিয়নের গজরা ব্লকে আমন ধান ব্রি-৫২ বীজ উৎপাদন (কর্তন পর্যায়) মাঠ দিবস অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে চাঁদপুর জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।

তিনি আরো বলেন, আকস্মিক বন্যায় প্রতি বছর দেশের প্রায় ২০ লাখ হেক্টর জমির ফসল নষ্ট হয়। এতে ক্ষতিগ্রস্থ হয় প্রায় অর্ধকোটি মানুষ। আকস্মিক বন্যার হাত থেকে আমন ফসল রক্ষায় দেশের বিজ্ঞানীরা পানি বা বন্যাসহিষ্ণু নতুন জাতের ধান উদ্ভাবন করেছেন, যা টানা ১৫ থেকে ১৭ দিন পানির নিচে ডুবে থাকলেও নষ্ট হবে না। বন্যার পানি নেমে গেলে এসব জাত আবার স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসবে এবং হেক্টরে চার টন পর্যন্ত ফলন পাওয়া যাবে। ব্রিধান ৫২ নামে বন্যাসহিষ্ণু এ ধান ইতোমধ্যে এ অঞ্চলের কৃষকপর্যায়ে চাষাবাদ শুরু হয়েছে।
মতলব উত্তর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোহাম্মদ আবদুল কাইয়ুম মজুমদারের সভাপতিত্বে ও উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মোঃ মজিবুর রহমানের সঞ্চালনায় মাঠ দিবসের আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন- উপ-সহকারী উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা এসএম সৈয়দ হোসেন, উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা শাহনাজ পারভীন, বিনয় ভূষণ দাস, নরেশ চন্দ্র দাস, আবদুর রউফ, রাসেল মিয়া, কৃষক আলী হোসেন প্রধান, মনোরঞ্জন বণিক, ডা. মোখলেছুর রহমান, হাবিব উল্লাহ প্রধান, কৃষাণী সালেহা বেগম প্রমূখ।

Check Also

কুমিল্লায় তিন গৃহহীন নতুন ঘর পেল

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ– কুমিল্লা সদর উপজেলায় গ্রামীণ উন্নয়ন সংস্থার উদ্যোগে ৪নং আমড়াতলী ইউনিয়নের গৃহহীন নুরজাহান বেগম, ...

Leave a Reply