দেবিদ্বারে ইভটিজিং’র দায়ে ভ্রাম্যমান আদালতে ২ যুবকের ৩ ও ১ যুবকের ৬ মাসের কারাদন্ড

এবিএম আতিকুর রহমান বাশার :–

কুমিল্লার দেবিদ্বারে স্কুল ছাত্রীদের উত্ত্বক্ত করার দায়ে স্থানীয়দের সহযোগীতায় দু’ ইভটিজারকে আটক করে পুলিশে সোপার্দ। পরে ভ্রাম্যমান আদালতে প্রেরন। আদালত তাদের ৩ মাস করে সশ্রম কারাদন্ড প্রদান করেন। ঘটনাটি ঘটে মঙ্গলবার সকালে, উপজেলার মাশিকাড়া উচ্চ বিদ্যালয় সংলগ্নে।
স্থানীয়রা জানান, এক দল বখাটে মাশিকাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ে আসা ছাত্রীদেও প্রায়ই উত্তক্ত করে আসছিল, প্রায়ই ছাত্রীদের প্রেমের প্রস্তাব, অসালিন উক্তি এমনকি হাত ধরে টানা টানি, হাতের ব্যাগ, বই-খাতা, কলম, টাকা ছিনতাইয়ের মতো ঘটনাও ঘটিয়ে আসছিল। এসব অপকর্মের প্রতিবাদ করলে সংঘবদ্ধ বখাটেরা ছোরা, লাঠিসহ প্রতিবাদকারীদের উপর চড়াউ হত।
অতিষ্ট অভিভাবকরা মঙ্গলবার সকাল ৮টায় এক স্কুল ছাত্রীর হাত ধরে টানা টানির সময় দু’বখাটে ইভটিজার মাশিকাড়া গ্রামের মোঃ মোতালেব’র ছেলে রুবেল(১৯) এবং একই গ্রামের আবদুর রশিদ’র ছেলে সুমন খান(১৯)কে আটক করে পুলিশকে খবর দেয়। সংবাদ পেয়ে দেবিদ্বার থানার উপ-পরিদর্শক (এস আই) গোলাম কিবরিয়া একদল পুলিশ নিয়ে অভিযান তাদের আটক করে ভ্রাম্যমান আদালতে হাজির করেন।
ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ হোসেন’র আদালতে অবিযুক্ত দু’যুবক নিজেদের দোষ স্বীকার করলে উভয়কে ৩ মাস করে সশ্রম কারাদন্ড প্রদান করেন। পরে তাদের কুমিল্লা জেল হাজতে প্রেরন করা হয়।
অপরদিকে কলেজ ছাত্রীদের উত্ত্বক্ত করার দায়ে মোঃ মোর্শেদ আলম(২০) নামে এক যুবককে ভ্রাম্যমান আদালতে সোপার্দ করেছে দেবিদ্বার থানা পুলিশ। অভিযুক্ত মোর্শেদ আলম(২০) তার দোষ স্বীকার করলে আদালত তাকে ৬ মাসের সশ্রম কারাদন্ড প্রদান করেন। ঘটনাটি ঘটে মঙ্গলবার বিকেল ৪টায়, উপজেলার বড়শালঘর আদর্শ কলেজে। উল্লেখিত আটক অভিযুক্ত মোর্শেদ প্রায়ই বড়শালঘর কলেজ ক্যাম্পেসের সামনে অবস্থান করে কলেজ ছাত্রীদের ইভটিজিং’র মত বিভিন্ন অপকর্ম করে আসছিল ওই কলেজ’র শিক্ষার্থীরা জানিয়েছেন।
মঙ্গলবার একই নিয়মে এক কলেজ ছাত্রীকে উত্তক্ত করার অভিযোগের সংবাদ পেয়ে দেবিদ্বার থানার উপ-পরিদর্শক (এস আই) গোলাম কিবরিয়া একদল পুলিশ নিয়ে অভিযান তাকে আটক করে ভ্রাম্যমান আদালতে হাজির করেন। পুলিশ জানায় আটক ইভটিজার মোর্শেদ ব্রাহ্মনবাড়ীয়া জেলার কসবা উপজেলার বাগাবাড়ী গ্রামের মৃত আলী আজ্জম’র পুত্র।
ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ হোসেন’র আদালতে অভিযুক্ত মোর্শেদ তার দোষ স্বীকার করলে তাকে ৬ মাসের সশ্রম কারাদন্ড প্রদান কওে জেল হাজতে প্রেরনের নির্দেশ দেন। পরে তাকে সন্ধ্যায় কুমিল্লা জেল হাজতে প্রেরন করা হয়।
দেবিদ্বার থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) মোঃ মিজানুর রহমান বলেন, ইদানিং ইভটিজারদেও উৎপাত বেড়ে গেছে। বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ইভটিজারদের দৌরাত্ম কমাতে পুলিশি অভিযান অব্যাহত আছে।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply