কুমিল্লায় জমজমাট গরুর বাজার : ক্রেতাদের ভীড় লক্ষ্যনীয়, দাম নাগালের মধ্যে

মো.জাকির হোসেন :–
ঈদুল আযহা কে কেন্দ্র কওে জমে উঠেছে কুমিল্লার গরুর হাটগুলো। বাজাওে ক্রেতাদেও ভীড় যেমন লক্ষ্যনীয় তেমনি বিক্রেতারাও অনেকটা নিরাপদে ক্রয় কওে নিচ্ছেন তাদেও পছন্দেও গরু সহ বিভিন্ন ধরনের পশু। বাজাওে গরুর চাহিদাও যেমন ছিল বেশী তেমনি দামও ছিল সাধ্যেও মধ্যে। যা গতবারের তুলনায় অনেকটা কম।
গরেজমিন কুমিল্লার চান্দিনা, বরুড়া, বুড়িচং ,ব্রাক্ষণপাড়া, দেবিদ্বার সহ বিভিন্ন উপজেলার গরুর হাটগুলো ঘুওে পাওয়া তথ্যে জানা যায়,এবার গরুর হাটগুলোতে গরুর আমদানী সন্তোষজনক।প্রতিটি বাজারেই ছিল অনেক পশু। ক্রেতাদেও নজর এবারও অন্যান্যবারের মত মাঝারি আকারের গরুর দিকে। এদিকে ঈদুল আযহাকে কেন্দ্র কওে গরু মোটাতাজাকরণ কওে বিক্রি করা গরু স্বাস্থ্যহানীর কারণ বলে বিভিন্ন টিভি চ্যানেলে এশাধিক প্রতিবেদন,ডাক্তারদেও মন্তব্যে ক্রেতারা ওই সকল গরু ক্রয়ে উৎসাহ হারিয়ে ফেলায় অনেক ক্রেতা পথে বসার উপক্রম হয়েছে। হাটগুলোতে দেশী গরুর পাশাপাশি ভারতীয় গরুর সংখ্যাও উল্লেখ করার মত।হাটগুলোতে গতকাল পাওয়া চিত্রে দেখা যায় বেশীর ভাগ ক্রেতারই লক্ষ্য ছিল ছোট ও মাঝারি মানের গরুর দিকে। তাদেও চাহিদা ২৫ থেকে ৪৫/৫০ হাজার টাকার মধ্যে। বিক্রিও ছিল সন্তোষ জনক। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে কুমিল্লার চান্দিনা বাজাওে কথা হয় বিক্রেতা জলিলের সাথে । তিনি জানান,তার ৩ টি গরু এই বাজাওে বিক্রির জন্য এনেছেন। নিজ এলাকা বিক্রি না কওে কিছুটা অধিক দামে বিক্রির জন্য এখানে আসলেও গুবারের তুলনায় এবারের দাম কিছুটা কম। তার দুটি গরু বিক্রি হলেও একটা হয়নি। আজ শুক্রবার ময়নামতি বাজার সেকানে বিক্রির চেষ্টা করবো। বাজাওে কোরবানীর গরু ক্রয় করতে আসা কুমিল্লার শাসনগাছার এবাদুল জানান,তিনি ৪৮ হাজার টাকায় একটি গরু ক্রয় করেছেন। তার কাছেও মনে হয়েছে,এবার গরুর দাম গুবারের তুলনায় কিছুটা কম। ঈদেও আর বাকী ৩ দিন । এরই মাঝে আজ শুক্রবার ময়নামতি,শনিবার কাবিলা,রোববার ময়নামতি ক্যান্টনমেন্ট গরুল হাট বসবে। প্রতিটি বাজারেই নিরাপত্তার কথা চিন্তা কওে ব্যাপক আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী সহ হাট ইৎারাদাররা নিজস্ব লোকজনদেও দিয়ে নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়েছেন ক্রেতা-বিক্রেতাদেও লক্ষ্য করে। অনাকাঙ্খিত ঘঁনা এড়াতে প্রশাসনের নজরদারীও বাড়ানো হয়েছে। এদিকে ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কের পাশে কাবিলা,নিমসার,চান্দিনায় গরুর হাট থাকায় প্রশাসনের নজর সেই হাট সংলগ্ন এলাকায় বেশী। হাটের কারনে ক্রেতা-বিক্রেতাদেও ভীড়ে মহাসড়কে যেন কোন যানজটের সৃষ্টি হতে না পাওে সেজন্য রাত-দিন টানা দায়িত্ব পালন করছেন সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের লোকজন। সরেজমিন ঘুওে আরো দেখা যায়,উল্লেখিত হাটগুলোতে দেশের উল্টরাঞ্চল থেকেই অধিক গরু এসেছে। ব্যবসায়ীদেও নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হাট ইজারাদাররা বিশেষ ব্যবস্থা নিয়েছেন। হাটগুলোতে ৪৫/৫০ হাজার টাকার মধ্যে গরু ক্রয় করা ক্রেতার সংখ্যা বেশী হলেও অনেকে ৮০/৯০ হাজার টাকাও পশু ক্রয় করছেন। আর বিশেষ পদ্ধতিতে গরু মোটাতাজা কওে বিক্রি করতে আসা ব্যাপারীরা তাদেও পশু বিক্রি না হওয়ায় চরম হতাশার মাঝে। তবুও অনেক বিক্রেতা অপেক্ষা করবেন ঈদেও পূর্ব মুহুর্ত পর্যন্ত এাঁই জানান কেউ কেউ। কুমিল্লার বুড়িচংয়ের ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কের পাশে নিমসার এলাকায় গরুর হাট কে কেন্দ্র কওে যানজটের আশংকায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আ. ন .ম. নাজিম উদ্দিন বলেন,দেশের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ এই মহাসড়কের পাশে গরুর হাটকে কেন্দ্র কওে আমরা অতিরিক্ত নিরাপত্তার দায়িত্ব নিয়েছি। আমি সহ প্রশাসনের লোকজন গতকাল সারাদিন এখানে উপস্থিত থেকে সার্বক্ষণিক নিরাপত্তা দেয়ার চেষ্টা করেছি। কোথাও কোন অনাকাঙ্খিত ঘঁনা ঘটেনি। ক্রেতা-বিক্রেতাদেও সকলেও অনেকটা স্বাচ্ছন্দে তাদেও ক্রয়-বিক্রয় সম্পন্ন করেছেন অনেকটা নিরাপদে।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply