ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেনের ৬৯ তম জন্মদিন

আলমগীর হোসেন,দাউদকান্দি :–

আজ বুধবার কারাবন্দী ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেনের ৬৯তম জন্মদিন। তিনি ১৯৪৬ সালের ১ অক্টোবর কুমিল্লা জেলার দাউদকান্দি উপজেলার গয়েশপুর গ্রামে এক সম্ভ্রান্ত পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বিএনপি’র স্থায়ী কমিটির সিনিয়র সদস্য, মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, সাবেক মন্ত্রী, প্রথিতযশা ভূ-বিজ্ঞানী, খ্যাতিমান লেখক ও গবেষক। মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষে বিশ্ব জনমত সৃষ্টির লক্ষ্যে তিনি ’৭১-এ বিলাত প্রবাসীদের সংগঠিত করেন এবং ছাত্র সংগ্রাম পরিষদের আহ্বায়ক হিসেবে বলিষ্ঠ নেতৃত্ব দেন। তিনি দাউদকান্দি হাইস্কুল থেকে ’৬২ সালে এসএসসি, ’৭০ সালে লন্ডন বিশ্ববিদ্যালয়ের ইম্পেরিয়াল কলেজ থেকে এমএসসি, ’৭৩ সালে ডিআইসি ডিপ্লোমা এবং ’৭৪ সালে লন্ডন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচডি ডিগ্রী লাভ করেন। ’৭৫ সালে দেশে ফিরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূ-তত্ত্ব বিভাগে সহকারী অধ্যাপক হিসাবে শিক্ষকতা শুরু করেন এবং পর্যায়ক্রমে অধ্যাপক পদে উন্নীত হন। ’৮৭ থেকে ’৯০ সাল পর্যন্ত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভূ-তত্ত্ব বিভাগের চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করেন। ড. মোশাররফ বর্তমান সরকারের সময়ে গাড়ী পোড়ানো ও সচিবালয়ে বোমা নিক্ষেপের মামলায় দীর্ঘদিন কারাভোগ করেন। মানি লন্ডারিংয়ের মামলায় গত ১২ মার্চ গ্রেফতার হয়ে তিনি বর্তমানে কারাগারে অন্তরীন রয়েছেন। ড. মোশাররফ ’৭৯ সালে শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের আহবানে সাড়া দিয়ে বিএনপিতে যোগদান করেন। তিনি কুমিল্লা (উ.) জেলা বিএনপি’র সভাপতি এবং বিএনপি’র ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক ও যুগ্ম মহাসচিব পদে দায়িত্ব পালন করেন। ’৯৪ সাল থেকে তিনি বিএনপি’র স্থায়ী কমিটির সদস্য পদে অধিষ্ঠিত রয়েছেন। তিনি কুমিল্লা-২ আসন থেকে ৪ বার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। ’৯১-’৯৬ সময়ে তিনি বিএনপি সরকারের বিদ্যুৎ, জ্বালানী ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রী, ’৯৬ সালে স্বল্প মেয়াদে সরকারের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এবং ২০০১-০৬ সময়ে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন স্বাস্থ্য মন্ত্রী থাকাকালে দাউদকান্দির উত্তরাঞ্চলে ‘নতুন উপজেলা তিতাস’ প্রতিষ্ঠাসহ এলাকায় প্রায় ৫শ কোটি টাকার উন্নয়ন কর্মকান্ড বাস্তবায়ন করেছেন। তাঁর প্রতিষ্ঠিত ড. মোশাররফ ফাউন্ডেশন লি. বৃহত্তর দাউদকান্দিতে ২টি কলেজ, ৩টি হাইস্কুল এবং ১টি মাদ্রাসা ও এতিমখানা প্রতিষ্ঠা করেছে। ড. মোশাররফ প্লাবণ ভূমিতে মৎস্য চাষ পদ্ধতি উদ্ভাবনের মাধ্যমে বাংলাদেশে মৎস্য খাতের উন্নয়নে আলোড়ন সৃষ্টি করেছেন। এই মৎস্য চাষ পদ্ধতি “দাউদকান্দি মডেল” হিসেবে সরকারী স্বীকৃতি পেয়েছে এবং তিনি এ ক্ষেত্রে অবদানের জন্য জাতীয় পুরস্কার স্বর্ণপদক লাভ করেন। ড. মোশাররফ রচিত ‘মুক্তিযুদ্ধে বিলাত প্রবাসীদের অবদান’, ‘প্লাবণ ভূমিতে মৎস্য চাষ: দাউদকান্দি মডেল’, ‘সংসদে কথা বলা যায়’, ‘এই সময়ের কিছু কথা’, ‘ফখরুদ্দিন-মইন উদ্দিনের কারাগারে ৬১৬ দিন’, ‘রাজনীতির হালচাল’ এবং ‘সময়ের ভাবনা’ নামের ৭টি গ্রন্থ প্রকাশিত হয়েছে। আরো ৪টি গ্রন্থ প্রকাশের অপেক্ষায় রয়েছে। এ ছাড়া জাতীয় ও আন্তর্জাতিক সাময়িকিতে ৫০টির বেশি ‘বৈজ্ঞানিক প্রবন্ধ’ প্রকাশিত হয়েছে। ভূ-বিজ্ঞানের ক্ষেত্রে মৌলিক গবেষণা ও অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ তাঁর জীবন বৃত্তান্ত ‘হু ইজ ইন দি ওয়ার্ল্ড’ কেমব্রিজ বায়োগ্রাফি জার্নাল এবং আমেরিকান বায়োগ্রাফিক্যাল ইন্সটিটিউড প্রকাশিত পুস্তকে অন্তর্ভূক্ত হয়েছে। ভূ-তত্ত্ব বিষয়ে স্ট্রাকচারাল এ্যানালাইসিসে তাঁর নতুন উদ্ভাবন ‘হোসাইন’স মেথড অব এক্সটেনশন’ আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি লাভ করেছে। তিনি নোবেল পুরস্কার বিজয়ী বিজ্ঞানী প্রফেসর আব্দুস সালাম প্রতিষ্ঠিত আইসিটিটি এর এসোসিয়েট সদস্য এবং থার্ড ওয়ার্ল্ড একাডেমি অব সায়েন্সের একজন ফেলো। আগামীকাল বুধবার ড. মোশাররফের জন্মদিনে তাঁর মুক্তি ও মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে জাতীয় প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে এক প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হবে। এতে প্রধান অতিথি থাকবেন, বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply