বুড়িচংয়ে জামায়াত-পুলিশ সংঘর্ষে ৭ পুলিশ আহত॥ র‌্যাব-বিজিব মোতায়েন : আটক ৯, শতাধিক রাউন্ড গুলি বর্ষন

মো. জাকির হোসেন :–

আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লার বুড়িচংয়ের সৈয়দপুর-ডাকলাপাড়া এলাকায় জামায়াত-শিবির কর্মীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে কুমিল্লা সহকারী পুলিশ সুপার, বুড়িচং থানার ওসি তদন্তসহ ৭ পুলিশ সদস্য আহত হয়। জামায়াত-শিবির কর্মীদের ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশ শতাধিক রাউন্ড গুলি করে। পরে ঘন্টাব্যাপী র‌্যাব-পুলিশ-বিজিবির যৌথ অভিযানে জামায়াত শিবির সন্দেহে ৯ জনকে আটক করা হয়।
জামায়াত নেতা আল্লামা দেলোয়ার হোসেন সাঈদির মুক্তির দাবীতে জামায়াতের ডাকা সকাল সন্ধ্যা হরতালে বৃহস্পতিবার দুপুর সোয়া ১২ টায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার মোকাম ইউনিয়নের সৈয়দপুর-ডাকলাপাড়া এলাকায় জামায়াত-শিবির কর্মীরা হরতাল সমর্থনে একটি মিছিল বের করে মহাসড়কে ট্রায়ারে আগুন দিয়ে অবরোধ করে। এসময় শিবির কর্মীরা গাড়ী ভাংচুর করে আগুন দেয়ার চেষ্টা করে। এসময় পুলিশ তাদের বাঁধা দিলে জামায়-শিবির কর্মীরা পুলিশকে লক্ষ করে ইট-পাটকেল ও ককটেল নিক্ষেপ করে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে পুলিশ এসময় ১শ’ত ২ রাউন্ড সর্টগানের গুলি, ৩ রাউন্ড পিস্তলের গুলি ও ২ রাউন্ড টিয়ার সেল নিক্ষেপ করে। জামায়াত শিবির কর্মীদের ইট-পাটকেল নিক্ষেপে এসময় কুমিল্লা সহকারী পুলিশ সুপার মোঃ শাহজাহান, বুড়িচং থানার ওসি তদন্ত নেয়ামুল সাফী খাঁন, এস আই ইমাম হোসেন, এস আই সাইফুল ইসলাম, কন্সটেবল হারুন, বাদল ও আবু ছিদ্দিক আহত হয়। খবর পেয়ে কুমিল্লা থেকে অতিরিক্ত র‌্যাব, পুলিশ ও বিজিবি ঘটনাস্থলে আসে। পরে বুড়িচং উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আনম নাজিম উদ্দীনের নেতৃত্বে র‌্যাব, পুলিশ, বিজিবির যৌথ একটি টিম, আদর্শ সদর উপজেলা কালিরবাজার ইউনিয়নের সৈয়দপুর ও বুড়িচং উপজেলার কালাকচুয়া গ্রামে জামায়াত-শিবির নিয়ন্ত্রিত এলাকায় অভিযান চালায়। প্রায় দুই ঘন্টা ব্যাপী যৌথ অভিযানে পুলিশ জামায়াত শিবির সন্দেহে ৯ জনকে আটক করে। আটকৃতরা হলো সৈয়দপুর গ্রামের আবদুল মালেকের ছেলে এনামুল হক, একই গ্রামের আবদুল কাদের দুধু মিয়ার ছেলে জসিম, কালাকচুয়া গ্রামের সামসুল হকের ছেলে ফারুক, একই গ্রামের রফিকুল ইসলামের ছেলে জসিম, সেলিম মিয়ার ছেলে মানিক, মহসিন বাবুলের ছেলে মোঃ সুমন, ফরিদ মিয়ার ছেলে মোঃ সোহেল, সদর দক্ষিণ উপজেলার বাগমাড়া গ্রামের হাজী আবদুল মালেকের ছেলে আবদুস ছালাম।
এবিষয়ে বুড়িচং থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ জহিরুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে কুমিল্লাওয়েব ডটকম’কে বলেন, হরতালের সমর্থনে মহাসড়কে কিছু জামায়াত-শিবির কর্মী মিছিল বের করে। এসময় তাদের বাঁধা দিলে তারা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল ছুড়ে এতে ৭ পুলিশ সদস্য আহত হয়। পরে অভিযান চালিয়ে জামায়াত শিবিরের ৯ নেতা কর্মীকে আটক করা হয়েছে। এবিষয়ে থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply