মুরাদনগরে আ’লীগ নেতার বিরুদ্ধে হিন্দু সম্পত্ত্বি দখল করার অভিযোগ

মো: মোশাররফ হোসেন মনির, মুরাদনগর :–

কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার টনকী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি নেছার আহাম্মদ রাজুর বিরুদ্ধে আদালতের নিষেধাজ্ঞা থাকা সত্ত্বেও হিন্দু সম্পত্ত্বি দখল করে অবৈধ ভাবে ড্রেজারের মাধ্যমে মাটি ভরাট করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। বিষয়টি নিয়ে এলাকায় বিরুপ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে। ভূক্তভোগী পরিবারটি প্রশাসনের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।
কাগজপত্র পর্যালোচনা করে দেখা যায়, চৈনপুর মৌজার সাবেক ১৩১৫ হালে ১৭৭৮ দাগের ৪৩ শতক আন্দরে ৩০ শতক সম্পত্ত্বির পৈত্রিক সূত্রে মালিক ওই গ্রামের মহিন চন্দ্র দে’র ছেলে মনিন্দ্র চন্দ্র দে। তিনি মারা যাওয়ার পর তার ছেলে কানাই লাল দে থেকে ক্রয় সূত্রে মালিক হন একই গ্রামের সুরেন্দ্র চন্দ্র দে’র ছেলে শংকর চন্দ্র দে (যার দলিল নং ১৬২১, তারিখ : ০৬/০৩/১৯৭৯ ইং)। তিনি মাঠ জরিপের সময় উক্ত সম্পত্তি বি-এস খতিয়ানভূক্ত করান (যার নং ১১৭৬, ডি.পি-৮৯০)। উক্ত জমিটি রাস্তার পাশে হওয়ার সুবাধে কু-নজর পড়ে টনকী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি নেছার আহাম্মদ রাজুসহ একটি প্রভাবশালী মহলের। তারা উক্ত সম্পত্ত্বির ভূয়া মালিকানার কাগজ সৃজন করে প্রকৃত মালিক শংকর চন্দ্র দেকে ভয়ভীতি প্রদর্শণ দেখিয়ে গ্রাম ছাড়া করে দেয়। এ সুযোগে নেছার আহাম্মদ রাজুর মাছের প্রজেক্টে ড্রেজার বসিয়ে মাটি ভরাট করছে একই এলাকার মৃত আব্দুল মজিদের ছেলে আবুল কাশেম, আব্দুল বারেকের ছেলে আব্দুল হক, আব্দুল মালেকের ছেলে আব্দুস ছাত্তার, মৃত আলতাব আলীর ছেলে শাহজাহান মোল্লা, মৃত জব্বার আলীর ছেলে চান মিয়া, মৃত মমতাজ উদ্দিনের ছেলে নুরু মিয়া, মৃত মন্তাজ উদ্দিনের ছেলে মোসলেম মিয়া, রজ্জব আলীর ছেলে আব্দুল জলিল, মৃত আক্তার মিয়ার ছেলে মোঙ্গল সওদাগর।
সোমবার বিকেলে সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়, উক্ত জমিটি ড্রেজারের মাধ্যমে মাটি ভরাট করা হচ্ছে। এ সময় উপস্থিত এলাকাবাসীকে জিজ্ঞাসাবাদ কালে তারা জানায়, জমিটির মালিকানা নিয়ে দীর্ঘদিন যাবত দ্বন্দ্ব চলে আসছে। আদালতের নিষেধাজ্ঞা থাকা সত্ত্বেও প্রভাব খাটিয়ে টনকী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি নেছার আহাম্মদ রাজু দ্বন্দ্ব নিরসন ছাড়াই একটি সন্ত্রাসী ও ভাড়াটে বাহিনী দিয়ে জমিটি ভরাট করছেন।
জমির মালিক শংকর চন্দ্র দে’কে খুঁজে পাওয়া যায়নি। তিনি ভূমিদস্যুদের ভয়ে বাড়ি-ঘর ছেলে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন বলে জানা গেছে। তবে শংকর চন্দ্র দে মোবাইল ফোনে সাংবাদিকদের জানান, ভূমিদস্যুরা তাকে সামনে পেলে জীবনে শেষ করে ফেলবে বলে হুমকি-ধমকি দিচ্ছেন। বর্তমানে তিনি চরম নিরাপত্ত্বাহীনতায় ভূগছেন বলে জানান।
এ ব্যাপারে টনকী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি নেছার আহাম্মদ রাজু জানান, উক্ত জমি নিয়ে তার কোন সম্পৃক্ততা নেই। আমি তাদের নিকট মাটি বিক্রি করেছি। এ জন্য আমার উপর দোষ চাপাচ্ছে। তিনি আরো জানান, অহেতুক শংকর চন্দ্র দে’র লোকজন প্রকৃত মালিকদের মামলা দিয়ে হয়রানি করছে।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply