কুমিল্লার তিতাসের কলেজ ছাত্রী ময়না হত্যা বিচারের দাবীতে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে মানববন্ধন সমাবেশ

আলমগীর হোসেন/নাজমুল করিম ফারুক:–
কুমিল্লার তিতাস উপজেলার নারানন্দিয়া ইউনিয়নের দড়িকান্দি গ্রামের মোঃ মোতালেব মিয়ার কন্যা, দাউদকান্দি উপজেলার গৌরীপুর মুন্সি ফজলুর রহমান সরকারী ডিগ্রি কলেজের প্রাক্তন ছাত্রী ও কুমিল্লা প্যারামেডিকেলের মেধাবী ছাত্রী ময়না আক্তার (২০) এর হত্যার বিচারের দাবীতে আজ মঙ্গলবার সকাল ১১ টায় ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কে দাউদকান্দির গৌরীপুরে মানববন্ধন ও সমাবেশ আনুষ্ঠিত হয়েছে। এসময় গৌরীপুর এলাকায় ব্যাপক আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য মোতায়েন করা হয়। কলেজের কয়েক শতাধিক ছাত্র-ছাত্রী গৌরীপুর বাসষ্ট্যান্ড থেকে পেন্নাই দিঘীরপাড় এলাকা পর্যন্ত শান্তিপূর্ণ ভাবে প্রায় এক ঘন্টা এ মানববন্ধন ও সমাবেশ করেন। মানববন্ধন শেষে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, নিহতের মা আমেনা বেগম, কলেজ শিক্ষার্থী মোঃ মেহেদী হাসান, মোঃ ইব্্রাহিম রাসেল, সামছুন নাহার, আছমা খাতুন, আনোয়ার হোসেন প্রমুখ। বক্তরা অবিলম্ভে ময়না হত্যাকারীদের গ্রেফতার এবং বিচারের দাবী জানান। Daudkandi Photo-(16-09-14)
নিহত ছাত্রী ময়না আক্তারের মা আমেনা বেগম কান্না জড়িত কন্ঠে বলেন, অনেক কষ্ঠ করে আমার মেয়ে লেখাপড়া করেছিল। গৌরীপুর কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক পাশ করে কুমিল্লা প্যারামেডিকেল কলেজে লেখা-পড়া করত। আমার দেবরের বউ হালিমা আক্তার এ হত্যার সাথে জড়িত। হালিমা আক্তার সহযোগিতা করে আমার স্বামীকে দ্বিতীয় বিয়ে করিয়ে আমার সোনার সংসার তছনছ করে দিয়েছে। আমার মেয়ের লেখা-পড়ার খরচ বন্ধ করে দেয়। অবশেষে টিউশনি করে ময়না লেখা-পড়ার করচ চালাত। তাতেও তারা ক্ষান্ত হয়নি। বাড়িতে একা পেয়ে বালিশ চাপা দিয়ে আমার মেয়েকে হত্যা করেছে ঝুলিয়ে রেখে আত্মহত্যা বলে চালিয়ে দেয়। ময়না হত্যার পর আমার স্বামী মোঃ মোতালিব মিয়া ও দেবরের বউ হালিমা বেগম পালিয়ে যায়। যদি তারা ময়না হত্যার সাথে জড়িত না থাকে তবে কেন পালিয়ে বেড়াচ্ছে। পুলিশ এখনো কাউকে আটক করেনি। আমি ময়না হত্যাকারীদের বিচার এবং ফাঁসি চাই। উল্লেখ্য গত ৩ সেপ্টেম্বর বুধবার তিতাস উপজেলার নারানন্দিয়া ইউনিয়নের দড়িকান্দি গ্রামের বাড়ি থেকে ময়না আক্তারের লাশ উদ্ধার করে তিতাস থানা পুলিশ। ময়নার মৃত্যুর পর পিতা মোঃ মোতালিব মিয়া ও চাচি হালিমা বেগম পালিয়ে থাকায় এলাকাবাসী তাদের সন্দেহ করেন। এ ব্যাপারে তিতাস থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (সার্বিক) তারেক মোঃ আবদুল হান্নান বলেন, তাদের পারিবারিক কলহ রয়েছে। ময়না তদন্তের রির্পোট পাওয়ার পর সকল রহস্যে উদঘাটন হবে। এব্যাপারে একটি অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করা হয়েছে।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply