মুরাদনগর প্রতিনিধি:–

বড় কাকা ও কাকাতো ভাই মিলে আমাকে মাইরা ফেলানের জন্য পানিতে ফালাইয়া লাঠি সোটা দিয়ে এলোপাতারি পিটাইতে থাকে, আমার চিৎকারে মামা এসে বাঁচানের চেষ্টা করে। এক পর্যায়ে জেঠা আমাকে বল্লম দিয়ে গাই দেয়, আমাকে ধাক্কা দিয়ে ফালাই দিলে মামার পেটে বিদে বল্লম।’ হাসপাতালের বেডে শুয়ে কথা গুলো বলছিলেন, মৃত সোকেশ মিয়ার ছেলে ছাইফুল ইসলাম (১৫)।

শুক্রবার সকাল এগারটায় মুরাদনগর উপজেলার শ্রীকাইল ইউপির রোয়াচালা গ্রামে এই ঘটনাটি ঘটে। থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

ভাগিনাকে বাঁচাতে গিয়ে মামার পেটে বল্লম এমন খবরে মামাকে দেখতে, উপজেলা সদরসহ আশে-পাশের কয়েক গ্রামের উৎসুক জনতা ভিড় জমায় হাসপতাল প্রাঙ্গনে। পেটে বল্লম নিয়ে অচেতন মামা হাসপাতালের বেডে, এই দৃশ্য দেখতে এসে আলম নামের একজন মূর্ছাও যান।

উপজেলা স্বাস্থ্য কপ্লেক্স’র ডা মতিউর রহমান বলেন, আহতের পেট থেকে বল্লম বাহির করতে হলে অপারেশন থিয়েটার ও উন্নত চিকিৎসা প্রস্তুত রাখতে হবে। নতুবা অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে সে মারাও যেতে পারে। তাই তাকে প্রথমিক চিকিৎসা দিয়ে কুমেক হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, দীর্ঘদিন যাবত ভাতিজা ও জেঠার মধ্যে জমি নিয়ে বিরোধ চলছিল। আর সেই বিরোধীয় জমিতে ভাতিজা ছাইফুল ধইঞ্চা কাটতে যায়। খবর পেয়ে জেঠা লন মিয়া (৬০) ও তার ছেলে জিয়া (৩০) ঘটনাস্থলে গেলে তাদের মধ্যে কথা কাটা-কাটির একপর্যায়ে ভাতিজা ছাইফুলকে মারধর করে। তখন তার চিৎকার শুনে একই গ্রামের মামা মাসুম (২৬) বাঁচাতে এসে নিজেই বল্লমবিদ্ধ হয়।

অভিযুক্ত জেঠা লন মিয়ার মুঠো ফোনে বারবার চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি। ঘটনার পর থেকে পরিবারবর্গ নিয়ে গ্রেফতার হওয়ার ভয়ে অন্যত্র গা ঢাকা দিয়েছে বলে এলাকাবাসি জানায়।

থানার ওসি (তদন্ত) বিপুল চন্দ্র ভট্ট জানান, এই বিষয়ে থানায় কেউ অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply