জাইকার উদ্যেগে রাজধানীতে রট্রোফিট টেকনোলোজি বিষয়ক সেমিনার অনুষ্ঠিত

কুমিল্লাওয়েব ডেস্ক:–

ভূমিকম্প সহনশীল ভবন নির্মাণে ন্যাশনাল বিল্ডিং কোড মানার পাশাপাশি রেট্রোফিট টেকনোলোজি ব্যবহার জরুরী বলে মন্তব্য করেছেন গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রী প্রকৌশলী মোশাররাফ হোসেন।
আজ রাজধানীর একটি হেটেলে জাপান ইন্টারন্যাশনাল কো-অপারেশন এজেন্সী-জাইকার সহযোগিতায় পি ডব্লিউ ডি’র উদ্যোগে আয়োজিত ”ঝুঁকিপূর্ণ ভবনসমূহের রেট্রোফিটিং এবং নিরাপদ শহর নিশ্চিত করতে ভবন নির্মাণে গুণগতমান নিশ্চিতকরণ” শীর্ষক সেমিনারে বক্তৃতা কালে এ অভিমত ব্যাক্ত করেন তিনি।
গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. গোলাম রাব্বানীর সভাপতিত্বে সেমিনারে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জাইকার বাংলাদেশ প্রতিনিধি দলের প্রধান মিকিও হাতায়েদা, প্রকৌশলী কবির আহমেদ ভূঁইয়া ও সিএনসিআরপি’র প্রকল্প পরিচালক মো.আব্দুল মালেক শিকদার।
সেমিনারে গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রী প্রকৌশলী মোশাররাফ হোসেন বলেন, প্রাকৃতিক দূর্যোগ মোকাবেলায় বাংলাদেশ ইতিমধ্যে বিশ্বের কাছে মডেল হয়ে আছে। এদেশের মানুষ সাইক্লোনের মত বড় ধরনের প্রাকৃতিক দূর্যোগ খুব সহজেই মোকাবেলা করছে। জাইকা ভূমিকম্প বিশেষজ্ঞদলের প্রধান ফুমিও কানেকো জানান,বাংলাদেশ বিশ্বের অন্যতম প্রধান ভূমিকম্পের ঝুঁকিপূর্ণ দেশ হওয়া সত্ত্বেও এদেশের অধিকাংশ মানুষই জানেন না ভূমিকম্পের সাবধানতা, ভয়াবহতা এবং ভূমিকম্প পরবর্তী পরিস্থিতি মোকাবেলায় করনীয় সম্পর্কে।
গণপূর্ত বিভাগের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী ও সিএনসিআরপি’র প্রকল্প ব্যবস্থাপক প্রকৌশলী মো. আব্দুল মালেক সিকদার বলেন, রেট্রোফিটিং এমন একটি প্রযুক্তি যা দিয়ে কোন ঝুঁকিপূর্ণ ভবন না ভেঙ্গে সেটাকে শক্তিশালী করে ভূমিকম্প সহনশীল করা সম্ভব। ঢাকার মত নগরী যেখানে অসংখ্য ভবন ঝুঁকিপূর্ণ সেখানে রেট্রোফিটিং পদ্ধতিই কার্যকর ভূমিকা রাখতে পারে। ভূমিকম্পসহ নানা প্রাকৃতিক দূর্যোগ মোকাবেলায় ঝুঁকিপূর্ণ ভবন না ভেঙ্গে রেট্রোফিট টেকনোলোজি ব্যবহার করা গেলে ৬০ থেকে ৭০ ভাগ আর্থিক খরচ কমানো সম্ভব বলেও জানান আব্দুল মালেক সিকদার।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply