নবীনগরে বিকাশ গ্রাহকদের দুর্ভোগ-নামেই বিকাশ কাজে নেই

সাধন সাহা জয়, নবীনগর :–

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলা বিকাশ গ্রাহকরা চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছে । সময়মত টাকা না পাওয়ায় তাদের মাঝে ক্ষোভ বিরাজ করছে । গ্রাহকরা দুই তিনদিন ঘোরেও টাকা পাচ্ছেন না, বিকাশ এজেন্টরা তাদের গ্রাহকদের টাকা সময়মত দিতে পারছে না। এজেন্টরা বলছে ডিলারদের কাছে থেকে তারা সময়তম টাকা না পাওয়ায় চাহিদা মত তারা গ্রাহকদের টাকা দিতে পারে না। নাম প্রকাশে অনেচ্ছুক এজেন্ট ব্যবসায়ীরা জানান আমাদের টাকা আমাদেরকে ফেরত দিতে হিমসিম খাচ্ছে ডিলারের অর্থের অভাবে এ সমস্যা সৃষ্ঠি হচ্ছে। কথা হয় বিকাশ এজেন্ট রুবেল টেলিকম, হারুন টেলিকম, মৌ পল্লি ফোন, নুর টেলিকম এর সাথে তারা বলেন বিকাশের ডিলারের বাড়ি বাঙ্গরা তাকে সময়মত পাওয়া যায় না বিধায় আমরা সময়মত গ্রহকদের টাকা ডেলিভারী দিতে পারছি না। খোজ নিয়ে জানা গেছে বিকাশের জনবল সংকট ও অদক্ষ ম্যানেজমেন্টের এর কারনে এ সমস্যা সৃষ্টি হয়েছে। মেসার্স মাহমুদুল্লাহ ট্রেডার্স ডিলারশীপে শর্ত ছিল ৫টি মটর সাইকেল এ অফিসে আছে মাত্র ১টি মটর সাইকেল। থাকার কথা ১২০০ বর্গ ফুটের অফিস আছে মাত্র একটি বাসায় দুই রুমের ২৫০ বর্গ ফুটের দুটি কক্ষ। বি.এস.আর পদে ৮ জন থাকার কথা থাকলেও আছে মাত্র ৪ জন । সুপারভাইজার ২টি পদের মধ্যে আছে ১টি, সেলস্ম্যান নেই। কমপ্লেইন অফিসার ও আইটি পদে ২টি করে পদ থাকেলেও আছে ১জন করে। এসব বিষয়ে টেরিটরি ও এরিয়া ম্যানেজারকে এজেন্ট ব্যবসায়ীরা বার বার ফোন করেও তার প্রতিকার পাইনি বলে স্থানীয় বিকাশ এজেন্ট ব্যবসায়ীরা জানান। নবীনগর বিকাশে জি.এম পদ খালি রয়েছে, টিএসএম পদে ২জন থাকলেও আছে একজন। নবীনগর উপজেলা প্রশাসনের উর্দ্ধতন কর্মকর্তাদের থেকে শুরু করে অধিকাংশ মানুষ এ বিকাশের মাধ্যমে টাকা লেনদেন করে থাকে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু শাহেদ চৌধুরী, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেন সরকার, ওসি রুপক কুমার সাহা, এস আই কাউছার আহম্মেদ, দুপ্রক সভাপতি আবু কামাল খন্দকার, প্রেসক্লাব সভাপতি মাহাবুব আলম লিটন, মানিক, বিপ্লব সহ শত শত ভুক্তভোগী গ্রাহকরা দ্রুত বিকাশের আভ্যন্তরিন জটিলতা নিরশন করে ১০০% গ্রহাক সেবা নিশ্চিত করার দাবী জানিয়েছেন।

Check Also

কুমিল্লায় তিন গৃহহীন নতুন ঘর পেল

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ– কুমিল্লা সদর উপজেলায় গ্রামীণ উন্নয়ন সংস্থার উদ্যোগে ৪নং আমড়াতলী ইউনিয়নের গৃহহীন নুরজাহান বেগম, ...

Leave a Reply