নবীনগর ইচ্ছাময়ী পাইলট উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ে নিয়োগ ছাড়াই এক শিক্ষকের ৩৫ বছর চাকুরি

সাধন সাহা জয়: নবীনগর (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি :–

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর ইচ্ছাময়ী পাইলট উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের এক শিক্ষক চাকুরিতে যোগদানের নিয়োগ পএ ছাড়াই ৩৫ বছর ধরে চাকুরি করে যাচেছ বলে অভিযোগ উঠেছে। তিনি নবীনগর ইচ্ছাময়ী পাইলট উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের সিনিয়র শিক্ষক নীহার রঞ্জন চক্রবর্তী। ভুয়া কাগজ পত্র দেখিয়ে এমপিও ভুক্ত হয়ে অবৈধভাবে সরকারি টাকা আত্মসাৎ করে যাচ্ছে বলে স্কুল অফিস থেকে প্রধান শিক্ষককে ওই শিক্ষকের কাগজপত্র যাচাই বাচাইয়ের জন্য লিখিতভাবে অবগত করা হয়।

এদিকে ওই শিক্ষকের কাছে জানতে চাওয়ার কিছুক্ষনের মধ্যেই স্কুলের মিডনাইট কমিটির এক সদস্য আলামনগর গ্রামের যুবলীগ নেতা হবিবুর রহমান হাবিব পেশী শক্তির দাপটে সাংবাদিককে উচ্চ কন্ঠে বলেন, কি পেয়েছেন ? আপনারা স্কুলের কি ? আপনার জানতে চাওয়ার কে ?

লিখিত পত্রে বলা হয়, নীহার রঞ্জন চক্রবার্তী ১৯৭৯ সাল থেকে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তির রেজুলেশন, পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি, আবেদপত্র, সাক্ষাৎকার বোর্ড, সাক্ষাৎকার নিয়োগ রেজুলেশন, নিয়োগের অনুমোদন, নিয়োগপত্র, যোগদানপত্র সহ বৈধ কাগজপত্র ছাড়াই ৩৫ বছর যাবত ভুয়া এমপিও ভুক্তি নং- ১০৯৫১৯ ব্যবহার করে সরকারী ও স্কুলের টাকা আত্মসাৎ করে আসছে।

এছাড়া গত ২১ জুলাই ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে বৈধ কাগজপত্র যাচাই বাচাইয়ের জন্য স্কুল অফিস থেকে প্রধান শিক্ষক ও স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সভাপতিকে লিখিতভাবে অবগতি করানো হয়। অবগতি করানোর পরও প্রধান শিক্ষক কোন প্রকার তদন্ত ছাড়াই ওই শিক্ষকের বেতন মুঞ্জুর করেন বলে গোপন সূত্রে জানা যায়।
সভাপতি তাৎক্ষনিক বিষয়টি অবগত হয়ে, অত্যন্ত স্পর্শকাতর এবং সরকারী টাকা আত্মসাৎ এর শামিল বলে অভিহিত করে সংশ্লিষ্ট শিক্ষকের বিরুদ্ধে বিধি মোতাবেক জরুরী ভিত্তিতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য প্রধান শিক্ষককে লিখিতভাবে নির্দেশ দেন।

এ ব্যপারে অভিযুক্ত শিক্ষক নীহার রঞ্জন চক্রবর্তীর মুঠোফোনে যোগযোগ করা হলে তিনি বিষয়টি এড়িয়ে গিয়ে, প্রধান শিক্ষকের সাথে কথা বলার জন্য বলেন।

এ ব্যপারে ওই স্কুলের প্রধান শিক্ষক কাউসার বেগম অফিস নোটের কথা স্বীকার করে বলেন, যেহেতু তিনি আমার আমলে নিয়োগ হয়নি তাই বিষয়টি আমি অবগত নই। যাচাই বাছাইয়ের কথা যানতে চাইলে তিনি বলেন, এখনও যাচাই বাছাই হয়নি, হলে বলতে পারব।

এ ব্যপারে ওই স্কুলের সভাপতি বশির আহম্মদ সরকার বলেন, বিষয়টি আমি অবগত হওয়ার সাথে সাথে প্রধান শিক্ষককে জরুরী ভিত্তিতে বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা গ্রহনের নির্দেশ দিয়েছি।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply