নবীনগর সরকারী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স জরুরী বিভাগে ৮ টি সেলাইয়ের দাম ৭০০ টাকা

সাধন সাহা জয়: নবীনগর(ব্রাহ্মণবাড়িয়া)প্রতিনিধি :–

আমার মায়া আমার বড় চাচাত ভাইয়ের বউ আইছিল আমারে লইয়া আমি অজ্ঞান ছিলাম পরে মায়া বলেছে সেলাই করার পর নাকি তারা ৭০০ টাকা দিছে, কথাগুলো কষ্ঠে কষ্ঠে কুমিল্লাওয়েব ডটকম কে বললেন রিক্সাচালক জলিল মিয়া।

সরজমিনে গিয়ে জানা যায়, ব্রাহ্মণবাড়িয়া নবীনগর উপজেলার মালাই বাঙ্গরা উ: পাড়ার চাচা-শুশুরের শালার সাথে ঝগড়া হওয়ার পর জলিল মিয়া সহ আরো কয়েক জন আহত হয়। গত শনিবার সকালে নবীনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে জলিল মিয়া আহত অবস্থায় জরুরি বিভাগ-২ তে নিয়ে গেলে তার ডান হাতে ৮ টি সেলাই করার পর রোগির মেয়ের কাজ থেকে ১০০০ টাকা দাবি কারার পর ৭০০ টাকা দিয়ে মিট করে।
নবীনগর উপজেলার যুব ফোরামে সাধারন সম্পাদক মো: ওমর ফারুক, তারেক ছিদ্দীক সোহাগ, পৌর ছাএলীগের সভাপতি মোজাম্মেল হক লিমন, ইকবাল ও আলম স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ছিল এবং এই বিষয় নিয়ে নার্স ও জরুরি বিভাগের লোকদের সাথে অনেক কথা কাটাকাটির পর চলে আসে। তারা গৃহকোণের কাছে অভিযোগ করে বলে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে দিন দিন নোংরা হয়ে গেছে, মহিলা ওয়ার্ডের ২৫/২৬ সিটের উপরের পাখাটা অনেক দিন ধরে নষ্ট হয়ে আছে, রোগিদের কষ্ট হচ্ছে, বিভিন্ন ভাবে এভাবেই রোগিদের সঠিক ভাবে সেবা দিচ্ছেনা, যে কোন রোগি আসলে তাদের কাছ থেকে চাঁদার মত টাকা আদায় করে।

এই ব্যাপারে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্মকর্তা ডা: মো: সাদেক মিয়া কুমিল্লাওয়েব ডটকম কে বলেন জরুরি বিভাগের দেওয়ালে লেখা আছে কেউই টাকা চাইলে সাথে সাথে ফোন করবে। গৃহকোণ প্রশ্ন করেছে সবাইতো পড়াশুনা জানেনা ওনি বলে তাহলে আমার কিছু করার নেই, এবং বিষয়টি তদন্ত সাপেক্ষে আমি দেখতাছি।

Check Also

কুমিল্লায় তিন গৃহহীন নতুন ঘর পেল

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ– কুমিল্লা সদর উপজেলায় গ্রামীণ উন্নয়ন সংস্থার উদ্যোগে ৪নং আমড়াতলী ইউনিয়নের গৃহহীন নুরজাহান বেগম, ...

Leave a Reply