মুরাদনগরে রহস্য জনক কারনে মামলার আসামীকে ছেড়ে দিয়েছে পুলিশ

মুরাদনগর প্রতিনিধি:–

মুরাদনগর থানা পুলিশ অজামিনযোগ্য মামলার এজহার নামীয় ও প্রথমিক তদন্তে এফ আই আর ভ’ক্ত এক আসামীকে রহস্য জনক কারনে ছেড়ে দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।বিষয়টি নিয়ে স্থানীয় লোকজনের মাঝে ক্ষোভের সঞ্চার হয়েছে।
স্থানীয় সুত্র ও মামলার বিবরনে প্রকাশ, গত ১৯-০৭-২০১৪ তারিখে মুরাদনগর থানায় এজহারকৃত নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন সহ যৌতুকের জন্য মারপিট ও সহায়তা এবং বেআইনী জনতাবদ্ধে পথরোধ করে প্রানে হত্যার উদ্দেশ্যে মারপিট করে গুরুতর জখম, চুরি ও হুমকি করার অপরাধ প্রাথমিক ভাবে প্রমানিত হওয়ায় ওই দিনই মামলাটি মুরাদনগর থানায় এফ আই আর করা হয়। মামলার বাদী থানার করিমপুর গ্রামের মোহাম্মদ হোসেনের স্ত্রী রোসনা বেগম জানান, থানায় মামলা করার পর হতে এজহার নামীয় আসামীরা আমাকে আমার পরিবারের লোকজন সহ এ মামলার স্বাক্ষীদেরকে বিভিন্ন ভাবে হুমকি প্রদান করে আসছে। গতকাল বৃহস্পতিবার মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মুরাদনগর থানার এস আই হারুন সকালে মামলার এজহার ও এফ আই আর ভূক্ত ৪নং আসামী করিমপুর গ্রামের মৃত রিয়াজ উদ্দিনের ছেলে জব্বার ডাক্তার(৫৫) কে গ্রেফতার করে। গ্রেফতার কৃতকে কুমিল্লা জেল হাজতে চালান করে । কুমিল্লার উদ্দেশ্যে মুরাদনগর হতে ৩০ কি:মি অতিক্রম করার পর রহস্য জনক কারনে তাকে আবার থানায় এনে ছেড়ে দেয়া হয়। এ বিষয়ে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মুরাদনগর থানার এস আই হারুন জানান, জব্বার ডাক্তারের বিরুদ্বে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা থাকায় তাকে গ্রেফতার করেছি।তবে তার এজমা থাকায় অফিসার ইনচার্জর ক্ষমতা বলে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।
এ বিষয়ে মুরাদনগর থানার অফিসার ইনচার্জ নাজিম উদ্দিন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, এজহারে জব্বার ডাক্তারের বয়স ৫৫ থাকলেও তার বয়স হবে ৭০বৎসর সে এজমা রোগী এ কারনে তাকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply