কুমিল্লার মেঘনায় জনতার হাতে ভণ্ডপীর আটক : গণপিটুনি

দাউদকান্দি প্রতিনিধি :–

কুমিল্লায় মেঘনা উপজেলার ভাওয়রখোলা ইউনিয়নের চেঙ্গাকান্দি গ্রামের আফসার উদ্দিনের ছেলে মনির শাহ (২৮) নামে এক ভণ্ডপীর জনতার হাতে ধরা পড়েছে। আটককৃত ভণ্ডপীর প্রায় ৪ বছর ধরে আস্তানা গেড়ে মহিলাদেরকে চিকিৎসার নামে অনৈতিক কর্মকাণ্ড করে আসছে। রোববার রাতে দশম শ্রেণীর এক স্কুলছাত্রীকে পরীক্ষায় ভালো ফলাফল করতে তার মা ভণ্ডপীরের কাছে নিয়ে গেলে তাকে ধর্ষণের চেষ্টা করে মনির। এ সময় স্থানীয় জনতা হাতেনাতে ধরে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করে লম্পট মনির শাহকে। সোমবার মামলা দায়েরের পর মনির শাহকে কুমিল্লা জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, প্রায় ৪ বছর আগে উপজেলার আফসার উদ্দিনের ছেলে মনির শাহ সাধু বেশে গ্রামে এসে আস্তানা বসায়। এরপর থেকে গ্রামের লোকজনকে তেল পড়া, পানি পড়া ঝার-ফুঁ দিয়ে রোগী ভালো হওয়া খবর বিভিন্ন এলাকায় ছড়িয়ে পড়ে। তার মহিলা ভক্তের মাধ্যমে সংবাদ ছড়ায় তার দর্শনে এলে বিয়ে, ও সন্তান লাভের অলৌকিক ঘটনা ঘটে। তিনি বিনা পয়সায় চিকিৎসা দেন। সন্তান লাভ বা মেয়েদের বিয়ে হলে তার বার্ষিক ওরফে গরু ও খাসি দিলেই চলে। এমনি এক মহিলা ভক্ত তার দশম শ্রেণী পড়–য়া মেয়ের পরীক্ষায় ভালো ফলাফল করার জন্য রমজান মাসের ইফতার সামগ্রী নিয়ে ভণ্ডপীরের আস্তানায় আসে। রোববার সন্ধ্যায় ইফতার শেষে ভণ্ডপীর মনির শাহ তার মহিলা মুরিদানের মেয়েকে ভেতরের কক্ষে রেখে তাকে বাইরের একটি কক্ষে বসতে বলে। ভণ্ডপীর ছাত্রীকে ঝারফুঁক দিয়ে তার কাপড় খুলে ধর্ষণের চেষ্টা করে। এ সময় সে চিৎকার দিলে মেয়েটির মা এগিয়ে এলে তাকে ভেতরে ঢুকতে না দিলে সেও চিৎকার করে। তাদের চিৎকারে আশপাশের লোকজন এসে মেয়েটিকে উদ্ধার করে। উত্তেজিত জনতা ভণ্ডপীর মনির শাহকে গলধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করে।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply