তিতাসে বিদ্যালয়ের ভবন নির্মাণ নিয়ে দু’পক্ষের টানাহেছড়া নির্মাণ কাজ বন্ধ : উত্তরমুখী ও দক্ষিণমুখী গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ৮

নাজমুল করিম ফারুক :—

উত্তরমুখী না দক্ষিণমুখী। এ বির্তকের কারনে বন্ধ হয়ে গেছে কুমিল্লার তিতাস উপজেলার দুঃখিয়ারকান্দি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভবন নির্মাণের কাজ। স্থানীয় দু’পক্ষের পাল্টাপাল্টি বিক্ষোভ মিছিল ও স্মারকলিপি প্রদানের ফলে অবশেষে প্রশাসনের পক্ষ থেকে উদ্যোগ নেয়া হয়েছে সমঝোতার। মঙ্গলবার দুপুর সাড়ে ১২টায় এ সিদ্ধান্ত হলেও বিকাল সাড়ে ৪টায় উত্তরমুখী ও দক্ষিণমুখী গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষে আহত হয়েছে মহিলাসহ ৮ জন।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বিশ্বব্যাংকের অর্থায়নে ৮৪ লাখ ৯৮ হাজার টাকা ব্যয়ে উপজেলার দুঃখিয়ারকান্দি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নতুন ভবন নির্মাণের জন্য উত্তরমুখী করে লে-আউট দেয়া হয়। উক্ত ভবন নির্মাণের পাইলিং এর সময় এক পক্ষ এতে বাঁধা দিলে বির্তকের সৃষ্টি হলে বিষয়টি স্থানীয় এমপি, উপজেলা চেয়ারম্যান ও প্রশাসনের নজরে আসে এবং তারা ঘটনাস্থলে পরিদর্শনে যান। এদিকে কুমিল্লা অঞ্চলের স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলীর স্বাক্ষরিতপত্রে বিষয়টি উপজেলা শিক্ষা কমিটি বা ম্যানেজিং কমিটির পরামর্শক্রমে কাজটি বাস্তবায়ন করার সিদ্ধান্ত দিলেও পূর্বের লে-আউট পরিবর্তন করে পুনরায় দক্ষিণমুখী করে লে-আউট করে ভবন নির্মাণের কাজ চালু করায় রবিবার গ্রামবাসী উত্তরমুখী ভবন নির্মাণের দাবীতে গৌরীপুর-হোমনা সড়কের বিক্ষোভ মিছিল এবং প্রশাসনের বিভিন্ন স্তরে স্বারকলিপি প্রদান করে। অপরদিকে বিদ্যালয়ের ভবনটি দক্ষিণমুখী নির্মাণের জন্য মঙ্গলবার অপরপক্ষ গৌরীপুর-হোমনা সড়কে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রশাসনের বিভিন্ন স্তরে স্মারকলিপি প্রদান করে। বিষয়টি নিয়ে এলাকায় উভয় পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা সৃষ্টি হওয়ায় আইন শৃঙ্খলা রক্ষায় মঙ্গলবার দুপুরে পুলিশ প্রশাসনের মাধ্যমে নির্মাণ কাজ বন্ধ করে দেয়া হয়।
এদিকে বিকাল সাড়ে ৪টায় উত্তরমুখী ও দক্ষিণমুখী গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ বাঁধলে দুঃখিয়ারকান্দি গ্রামের সুবেদ আলীর ছেলে মোঃ হাসান (৩৬), মৃত বাদশা মিয়ার ছেলে নুরুল আমিন (৩৮), ধনু মিয়ার ছেলে আবু তাহের (২৫), নুরুল আমিনের ছেলে জাকারিয়া (১৭), বাবুল মিয়ার ছেলে মুন্না (২০), মুসলেম মিয়ার ছেলে লোকমান হোসেন (৩০), বাচ্চু মিয়ার স্ত্রী সুফরা খাতুন (৫৫) ও মঙ্গল মিয়ার স্ত্রী জোসনা বেগম (৪০) আহত হয়। আহতদের তিতাস উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এদের মধ্যে মোঃ হাসান মিয়ার অবস্থা গুরুতর হওয়ায় ঢাকা কলেজ মেডিকেলে প্রেরণ করা হয়। সংঘর্ষের ঘটনা খবর পৌছে তিতাস থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।
সংঘর্ষের ঘটনার পূর্বে বিদ্যালয়ের ভবন নির্মাণের ব্যাপারে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ কামাল হোসেন বলেন, সরকারী নীতিমালা অনুযায়ীই নির্মাণ কাজ হওয়া উচিত। উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সালাহ উদ্দিন সরকার বলেন, উভয় পক্ষের মতমত নিয়েই ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে, যদি না হয় তাহলে নীতিমালা ও শিক্ষা কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ীই ভবন নির্মাণ করা হবে। উপজেলা প্রকৌশলী মোহাম্মদ শাহজাহান জানান, যেহেতু ভবন নির্মাণ নিয়ে জটিলতা সৃষ্টি হয়েছে এটা স্থানীয় জনগণ, উপজেলা শিক্ষা কমিটি যে সিদ্ধান্ত দেবে সেই আলোকে নির্মাণ কাজ সম্পূর্ণ করা হবে। এদিকে আজ বুধবার বিকাল ৪টায় উপজেলা পরিষদের সভাকক্ষে উভয়পক্ষের মধ্যে সমঝোতার জন্য প্রশাসনের পক্ষ থেকে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply