নেইমার ঝলকে জয় পেল ব্রাজিল

ঢাকা:–

২-০, ৩-০ নাকি ৪-০! কত গোলে ক্রোয়েশিয়াকে হারাবে ব্রাজিল? এই নিয়ে যখন বাজির রেট বাড়াচ্ছিলেন সমর্থকরা তখনই কিনা উল্টো ১১ মিনিটে গোল হজম করে বসে ব্রাজিল! তবে সেই ধাক্কা সামলে নেইমার ঝলকে শেষ পর্যন্ত এবারের বিশ্বকাপের উদ্বোধনী ম্যাচে ৩-১ গোলের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে স্বাগতিকরা। শুরুতে গোল খেয়ে আর লম্বা একটা সময় চাপে থেকেও ৩-১ গোলের জয়ে ব্রাজিল বোঝাল লম্বা রেসের ঘোড়া তারা।

সৌরজগতের বৃহস্পতি হয়ে উদ্বোধনী ম্যাচের ম্যাচের সবটুকু আলো ছিল নেইমারের ওপর। তার জ্বলে উঠতে দরকার ছিল বারুদে বিস্ফোরণ। অনন্ত চাপ সামলে সেটা করেছেনও এই ব্রাজিলিয়ান। নেইমারের জোড়া গোলে ৩-১ ব্যবধানে ক্রোয়েশিয়াকে হারিয়ে বিশ্বকাপ অভিযান শুরু করেছে স্বাগতিক ব্রাজিল। অন্য গোলটা করেন অস্কার। উদ্বোধনী ম্যাচে ব্রাজিলের জয় সঙ্গে নেইমার জাদু, দর্শকদের চাওয়ার পূরণ হয়েছে সবটুকুই। তবে আত্মঘাতি গোল হজম করে শুরুতে চাপে পড়ে গিয়েছিল ব্রাজিল।

সেই ১৯৩০ থেকে বিশ্বকাপে ৯৭টি ম্যাচে কখনই আত্মঘাতি গোল হজম করেনি ব্রাজিল। গর্বের সেই রেকর্ডটা ভাঙ্গল এবার। নিজেদের মাটিতে অনুষ্ঠিত এবারের বিশ্বকাপের ১১ মিনিটেই আত্মঘাতি গোল হজম করে ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে পিছিয়ে পড়ে তারা। জটলা থেকে আসা ওলিচের শট ফেরাতে যেয়ে মার্সেলো জড়িয়ে দেন নিজেদেরই জালে। উৎসবে মেতে থাকা সাও পাওলো স্টেডিয়ামে কবরের নিস্তব্ধতা নেমে আসে এরপর। সবার যেখানে ধারণা ছিল ক্রোয়েশিয়াকে গোলবন্যায় ভাসাবে স্বাগতিকরা সেখানে উল্টো গোল হজম করাটা ছিল অপ্রত্যাশিত।

এই গোলটা খেয়েই জেগে ওঠে ব্রাজিল। ১৯ মিনিটে গোলরক্ষককে একা পেয়েও সোজা তার হাতে বল তুলে দেন সাও পাওলোর স্থানীয় ছেলে পাওলিনিও। কিছুক্ষণ পর অস্কারের দূরপাল্লার আগুণে শট দূর্দান্ত ডাইভিংয়ে ফেরান ক্রোয়েশিয়ান গোলরক্ষক।

২৯ মিনিটে নেইমারের জাদুকরী শটেই সমতা ফেরায় ব্রাজিল। ডিবক্সের অনেক বাইরে থেকে নেয়া নেইমারের শটে জোর ছিল না তেমন তবে প্লেসিং ছিল দূর্দান্ত। ক্রোয়েশিয়ান গোলরক্ষক ডাইভ দিয়েও নাগাল পাননি সেটার। এই গোলের আগে অবশ্য একটা হলুদ কার্ডও দেখা হয়ে গিয়েছিল তার। বিরতির পর ৭১ মিনিটে পেনাল্টি থেকে লক্ষ্যভেদ করে ব্রাজিলকে এগিয়ে দেন নেইমার। বক্সে লোভারন ব্রাজিলের ফ্রেদকে ধাক্কা দেয়ায় পেনাল্টি পায় ব্রাজিল। যদিও এর যৌক্তিকতা নিয়ে রেফারিকে ঘিরে ধরে মাঠেই প্রতিবাদ জানায় ক্রোয়াটরা। নেইমারের নেয়া শট গোলরক্ষকের আঙ্গুল ছুঁয়ে জড়িয়ে যায় জালে।

এরপর আক্রমণ শাণিয়ে গোলের সুযোগ তৈরি করেছিল দুই দলই। তবে লক্ষ্যভেদ করতে পারেনি ক্রোয়েশিয়া। উল্টো ম্যাচের শেস দিকে অস্কার দিয়ে বসেন দলের হয়ে তৃতীয় গোল। তাই বিশ্বকাপের উদ্বোধনী ম্যাচে স্বাগতিকদের না হারার রেকর্ড নিয়ে মাঠ ছাড়ে স্কলারির দল। একটা হলুদ কার্ড থাকায় ম্যাচ শেষের কিছুক্ষণ আগে নেইমারকে তুলে নেন স্কলারি। তারপরও ম্যাচের নায়ক নিঃসন্দেহে নেইমারই।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply