সৌদিতে আগুনে পুড়ে নিহত সর্বশেষ তিতাস হোমনা ও মেঘনার ৩ জনের লাশ হস্তান্তর

নাজমুল করিম ফারুক :–
সৌদি আরবের রিয়াদে অগ্নিকান্ডে নিহত ৯ বাংলাদেশি মধ্যে সর্বশেষ কুমিল্লার তিতাস হোমনা ও মেঘনার ৩ জনের লাশ তাদের অভিভাবকের কাছে হস্তান্তর করা হয়। মঙ্গলবার বিকাল সাড়ে ৪টায় বাংলাদেশ বিমানের ফ্লাইটে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে লাশ এসে পৌছলে স্ব-স্ব অভিভাবকদের কাছে তাদের লাশ হস্তান্তর করার পর গ্রামে বাড়ীতে নিয়ে আসেন।
জানা যায়, গত ১২ মে স্থানীয় সময় রাত ১০টার দিকে রিয়াদের শিফা সানাইয়াতে ‘তিতাস ফার্নিচার’ ফ্যাক্টরিতে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে ৯ বাংলাদেশির মধ্যে কুমিল্লার তিতাসে ৩ জন, হোমনার ৩ ও মেঘনা উপজেলার ১ জন নিহত হয়। নিহতের মধ্যে সর্বশেষ মঙ্গলবার তিতাসের ১জন, হোমনার ১জন ও মেঘনার ১জনের লাশ আসে। তিতাসের নারান্দিয়া চকের বাড়ির মৃত জমসের আলীর ছেলে মোঃ নাজির হোসেন (২৭) এর লাশ তার মা জুলেখা বেগম ও ছোট ভাই কবির হোসেন, হোমনার চান্দেরচর গ্রামের ইসমাইল হোসেনের ছেলে বাহাউদ্দিন (২৬) এর লাশ তার বাবা ইসমাইল হোসেন ও স্ত্রী সাহিনা বেগম এবং মেঘনার শিবনগরের নুরুল ইসলামের ছেলে আঃ গাফফার (২৫) এর লাশ তার বাবা নুরুল ইসলাম ও ছোট ভাই মিজানুর রহমান গ্রহণ করে দেশের বাড়ীতে নিয়ে আসে। লাশগুলো নিজ নিজ বাড়ীতে পৌছতে গভীর রাত হওয়ায় বুধবার সকাল ৯টা থেকে ১০টার মধ্যে তাদের দাফন করা হবে নিহতদের অভিভাবকগণ জানান। লাশ গ্রহনের সময় প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে প্রতিটি পরিবারকে লাশ দাফন বাবদ ৩৫ হাজার টাকার ব্যাংক চেক প্রদান করা হয়।
গত ১২ মে স্থানীয় সময় রাত ১০টার দিকে রিয়াদের শিফা সানাইয়াতে ‘তিতাস ফার্নিচার’ ফ্যাক্টরিতে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে ৯ বাংলাদেশির মধ্যে কুমিল্লার তিতাসে ৩ জন, হোমনার ৩ ও মেঘনা উপজেলার ১ জন এবং নোয়াখালীর সেনবাগের ১ জন ও মাদারীপুরের শিবচরের ১ জন নিহত হয়। উল্লেখ্য, গত শুক্রবার শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে তিতাসের দুলারামপুর চাঁনপুর গ্রামের মো. জালাল (৩৫) এর লাশ তার বাবা হাজী রোস্তম আলী, কালিপুর গ্রামের মো. শাহ আলম (৩৫) এর লাশ তার বাবা হাবিবুর রহমান এবং হোমনার কলাগাছিয়া গ্রামের মো. মতিউর রহমান (৩২) এর লাশ তার বাবা আব্দুল করিম, চান্দেরচর গ্রামের মো. সেলিম (৩৫) এর লাশ তার বড় ভাই শাহ পরাণ, নোয়াখালীর সেনবাগের রাজারামপুর গ্রামের সাহাবুল্লাহর ছেলে জাকির হোসেন (৪৭) এর লাশ তার ১৬ বছরের মেয়ে নাসরিন আক্তার আঁখি ও মাদারীপুরের শিবচর সেনারবাত গ্রামের খোরশেদ আলম আক্কাস (৫৮) এর লাশ স্ত্রী জাহানারা বেগম গ্রহণ করে দেশের বাড়ীতে নিয়ে আসে এবং শনিবার তাদের পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply