কুমিল্লায় ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষ : গুলিতে এমপি’র ভাতিজা নিহত, আহত ২

কুমিল্লা প্রতিনিধি :–
কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের জের ধরে কলেজ সংলগ্ন এক ছাত্রলীগ নেতার বাড়িতে ঢুকে প্রতিপক্ষরা অতর্কিত হামলা, ভাংচুর ও গুলি চালায়। এসময় বাধা দিতে গিয়ে গুলিবিদ্ধ হয়ে বেসরকারি নিরাপত্তা সংস্থা গার্ড বাংলাদেশের পরিচালক আহসান হাবিব সুমু নিহত হন। এছাড়া আরো দুই ছাত্রলীগ নেতা গুলিবিদ্ধ হয়ে গুরুতর আহত হন।  বৃহস্পতিবার দুপুরের দিকে নগরীর মুন্সেফবাড়ি এলাকায় এ হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটে। নিহত সুমু কুমিল্লা সদর আসনের সরকার দলীয় এমপি আ.ক.ম বাহাউদ্দিন বাহারের ভাতিজা। সন্ধ্যা ৬টায় কুমিল্লা পুলিশ সুপার টুটুল চক্রবর্তী জানান,ঘটনার সাথে যারা জড়িত রয়েছে তাদের চিহিৃত করা হয়েছে, তাদের গ্রেফতারে পুলিশ অভিযান শুরু করেছে।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজের উচ্চ মাধ্যমিক শাখায় ভর্তি ও কলেজে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে কুমিল্লা পলিটেকনিক ইন্সটিটিউটের সাবেক ভিপি ও ছাত্রলীগ নেতা জহিরুল ইসলাম রিন্টু ও ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক সালেহ আহমেদ রাসেল গ্রুপের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। গতকাল বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে রিন্টু গ্রুপের অনুসারী নগরীর মুন্সেফবাড়ি ইউনিট ছাত্রলীগের আহবায়ক সজিব চক্রবর্তী গিট্টুর ছোটভাই ছুট্টু চক্রবর্তীকে কলেজের সামনে পেয়ে রাসেল গ্রুপের লোকজন তাকে মারধর করে। পরে ছুট্টুর নেতৃত্বে মুন্সেফবাড়ি এলাকা থেকে ছাত্রলীগকর্মীরা সংঘবদ্ধ হয়ে পুনরায় কলেজে গিয়ে রাসেল গ্রুপের উপর হামলা চালায়। এসময় উভয় গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। পরবর্তীতে প্রতিপক্ষ রাসেল গ্রুপ সংঘবদ্ধ হয়ে কলেজের নিকটবর্তী রিন্টু গ্রুপের মুন্সেফবাড়ি এলাকায় গিট্টু চক্রবর্তীর বাড়িঘরে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাংচুর করে। এসময় পার্শ¦বর্তী বাড়ির বাসিন্দা বেসরকারি নিরাপত্তা সংস্থা গার্ড বাংলাদেশের পরিচালক আহসান হাবিব সুমু (৩৫) হামলাকারীদের নিবৃত্ত করতে ঘটনাস্থলে গেলে তাকে লক্ষ্য করে গুলি করা হয়। এসময় সুমু মাটিতে লুটিয়ে পড়লে হামলাকারীরা তাকে বেধড়ক মারধর করে। গুরুতর আহত অবস্থায় স্থানীয়রা সুমুকে উদ্ধার করে কুমিল্লা জেনারেল (সদর) হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। পরে লাশের ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। নিহত সুমু স্থানীয় এমপি আ.ক.ম বাহাউদ্দিনের চাচাতো ভাই সাবেক ব্যাংক কর্মকর্তা মৃত ওমর ফারুকের পুত্র। নিহত সুমুর একমাত্র সন্তান আহসান ইয়ামিন (৯) নগরীর অ্যাথনিকা ইংলিশ মিডিয়াম স্কুলের দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্র। এদিকে ওই সংঘর্ষে ছাত্রলীগ নেতা গিট্টু চক্রবর্তীর চাচাত ভাই পান্না চক্রবর্তীর পুত্র প্রিতম চক্রবর্তী পিংকু (২৫) ও অপর চাচাত ভাই চুন্নী চক্রবর্তীর পুত্র প্রিয়ম চক্রবর্তী রণি (২১) গুলিবিদ্ধ হয়ে আহত হন। এদের মধ্যে পিংকুকে আশংকাজনক অবস্থায় ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। স্ত্রী আরিফা আক্তার সোমা কান্নায় ভেঙ্গে পড়ে তার স্বামীর খুনীদের অবিলম্বে গ্রেফতার ও ফাঁসির দাবি জানান। কোতয়ালী মডেল থানার ওসি খোরশেদ আলম জানান, ময়নাতদন্ত শেষে বিকাল ৪টার দিকে লাশ নিহতের পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে, হত্যাকারীদের ধরতে পুলিশের একাধিক টিম মাঠে কাজ করছে। লাশ দেখে নিহতের স্ত্রী ও তার স্বজনরা কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন। এ ঘটনায় নগরীতে উত্তেজনা ও থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রাখা হয়েছে। এদিকে রাতের মধ্যেই এ বিষয়ে কোতয়ালী মডেল থানায় হত্যা মামলা দায়ের করা হবে বলে নিহতের পারিবার ও পুলিশ জানিয়েছে।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply