ফাইনালে কলকাতা নাইট রাইডার্স

ঢাকা:–
সপ্তম আইপিএলের প্রথম দল হিসেবে ফাইনাল নিশ্চিত করেছে বলিউড তারকা শাহরুখ খানের দল কলকাতা নাইট রাইডার্স। বুধবার কলকাতার ইডেন গার্ডেনে প্রথম কোয়ালিফায়ার ম্যাচে কলকাতা নাইট রাইডার্স ২৮ রানে প্রীতি জিনতার কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবকে পরাজিত করে ফাইনালে পৌঁছে।
টস হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে কলকাতা নাইট রাইডার্স নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেটে ১৬৩ রান স্কোর বোর্ডে জমা করে। জবাবে ব্যাট করতে নামা কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের ইনিংস ১৩৫ রানের বেশি এগুতে না পারায় ২৮ রানে জিতে যায় কলকাতা নাইট রাইডার্স।

এ নিয়ে গত সাত আসরে দ্বিতীয়বারের মতো ফাইনালে পৌঁছলো কলকাতা নাইট রাইডার্স। ২০১২ সালে পঞ্চম আসরে প্রথমবারের মতো ফাইনালে খেলেছিল কলকাতা। প্রথমবারের মতো ফাইনালে ওঠেই চেন্নাই সুপার কিংসকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করে কলকাতা। বুধবার প্রথম কোয়ালিফায়ার ম্যাচে এবারের আসরের শক্তিশালী দল কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবকে ২৮ রানে পরাজিত করে প্রথম দল হিসেবে ফাইনাল নিশ্চিত করে। গৌতম গম্ভীরদের সামনে এখন দ্বিতীয়বারের মতো আইপিএলের শিরোপা জয়ের হাতছানি।

অপরদিকে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব গত ছয় আসরেই ফাইনালে যেতে ব্যর্থ হয়। এবারের আসরের অদম্য দল হিসেবে পয়েন্ট তালিকার শীর্ষস্থান দখল করে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব। বুধবার প্রথম কোয়ালিফায়ার ম্যাচে কলকাতা নাইট রাইডার্সের কাছে হেরে ফাইনাল নিশ্চিত করতে ব্যর্থ হয়। তাদের সামনে অবশ্য আরেকটি সুযোগ রয়েছে। তৃতীয় ও চতুর্থ স্থান অর্জনকারী দল চেন্নাই সুপার কিংস ও মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের মধ্যকার বিজয়ী দলের সাথে দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার ম্যাচে মুখোমুখি হবে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব। আগামী ৩০ মে মুম্বাইয়ে হবে ম্যাচটি। ওই ম্যাচে জয় পেলে প্রথমবারের মতো ফাইনালে খেলার যোগ্যতা অর্জন করবে পাঞ্জাব।

কলকাতার ইডেন গার্ডেনে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব অধিনায়ক টস জিতে প্রথমে ব্যাট করার আমন্ত্রণ জানান কলকাতা নাইট রাইডার্সকে। নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেটে ১৬৩ রান করে কলকাতা। দলের হয়ে নিয়মিত রান করে যাওয়া ওপেনার রবিন উথাপ্পা করেন সর্বোচ্চ ৪২ রান। তার ৩০ বলের ইনিংসে চারটি বাউন্ডারি ও দু’টি ছক্কার মার রয়েছে। এছাড়া সাকিব আল হাসান ১৮, ইউসুফ পাঠান ২০ রান করে আউট হন।

শেষদিকে রায়ান টেন ডয়েসচেট ১০ বলে ১৭, যাদব ১৪ বলে ২০ এবং পিযুষ চাওলার ৯ বলে অপ: ১৭ রানের কল্যাণে নির্ধারিত ২০ ওভারে ১৬৩ রান করতে সক্ষম হয় কলকাতা নাইট রাইডার্স। কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের কারানবীর সিং তিনটি এবং মিচেল জনসন ও অক্ষর প্যাটেল দু’টি করে উইকেট নেন।

১৬৪ রানে জয়ের লক্ষ্যে খেলতে নামা পাঞ্জাবকে শুরু থেকেই চেপে ধরে কলকাতার বোলাররা। দলীয় ৫ রানে ওপেনার বীরেন্দর শেবাগকে ফিরিয়ে দেন পেসার উমেশ যাদব। শেবাগ ২ রানের বেশি এগুতে পারেননি। দ্বিতীয় উইকেটে মানান বোহরা এবং ঋদ্ধিমান সাহা কিছুটা চড়াও হয়ে খেলেন। বোহরা আউট হন ১৬ রান করে। ঋদ্ধিমান সাহা সর্বোচ্চ ৩৫ রান করে মাঠ ছাড়েন। এদিন পাঞ্জাবের দুই হার্ডহিটার গ্লেন ম্যাক্সওয়েল ও ডেভিড মিলার ব্যর্থতার পরিচয় দেন। ম্যাক্সওয়েল ৬ এবং মিলার ৮ রান করে বিদায় নেন। শেষদিকে অধিনায়ক জর্জ বেইলির দ্রুতগতির ২৬ রান পরাজয়ের ব্যবধান কমিয়েছে মাত্র।

কলকাতার বোলারদের মধ্যে ডানহাতি ফাস্ট বোলার উমেশ যাদব একাই শিকার করেন তিন উইকেট। তার বোলিং বিশ্লেষণ (৪-০-১৩-৩) দেখলেই বোঝা যায় তিনি পাঞ্জাবের ব্যাটসম্যানদের কতটা আটকে রেখেছিলেন। এছাড়া মরনে মরকেল দু’টি এবং সাকিব আল হাসান ও পিযুষ চাওলা নেন একটি করে উইকেট।

কলকাতার ডানহাতি বোলার উমেশ যাদব ম্যাচসেরার পুরস্কার পান।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply