কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডে ছেলেরা এগিয়ে, পিছিয়ে মেয়েরা

কুমিল্লা প্রতিনিধি :–
কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডের অধীন ৬ জেলার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে ফলাফলে ছেলেরা এগিয়ে এবং মেয়েরা পিছিয়ে রয়েছে। গত বছরের তুলনায় বোর্ডে শতভাগ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সংখ্যাও কমেছে। এছাড়া গত বছরের চেয়ে এ বছর বোর্ডে পাশের হার কমলেও প্রায় দেড়গুণ বেড়েছে জিপিএ-৫।
বোর্ড সূত্রে জানা যায়, প্রকাশিত ফলাফলে এ বছর বোর্ডের অধীন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে বিজ্ঞান, ব্যবসায় শিক্ষা ও মানবিক বিভাগের মোট ১ লাখ ৪৫ হাজার ১৩ জন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে। এর মধ্যে উত্তীর্ণ হয়েছে ১ লাখ ৪৪ হাজার ৪২১ জন। গড় ফলাফলে পাশের হারে মেয়েরা পিছিয়ে রয়েছে। এক্ষেত্রে বিজ্ঞান বিভাগে ছেলেদের পাশের হার ৯৫.২৯ ও মেয়েদের ৯৪.০৫, মানবিক বিভাগে ছেলেদের পাশের হার ৮২.৯৭ ও মেয়েদের ৮২.০১ এবং ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগে ছেলেদের ৯২.২৫ ও মেয়েদের ৯০.৫৬। জিপিএ-৫ প্রাপ্তিতেও মেয়েরা পিছিয়ে রয়েছে। এ বছর ১০ হাজার ৯৪৫ জন শিক্ষার্থী জিপিএ-৫ অর্জন করেছে। এরমধ্যে ছেলে ৫ হাজার ৬৮৬ ও মেয়ে ৫ হাজার ২৫৯ জন। অপরদিকে এ বোর্ডে শতভাগ উত্তীর্ণ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সংখ্যাও গত বছরের তুলনায় কমেছে। গত বছর শতভাগ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা ছিল ২৭৫টি, যা এ বছর কমে হয়েছে ১৬৭টি।

বিজ্ঞান বিভাগের পরীক্ষার্থী কম:  
এ বছর ব্যবসায় শিক্ষা ও মানবিক বিভাগের তুলনায় বিজ্ঞান বিভাগের পরীক্ষার্থী ছিল কম। এ বিভাগে ২৯ হাজার ১৫৩ জন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেছে। এদের মধ্যে উত্তীর্ণ হয়েছে ২৭ হাজার ৬২৩ জন। অপরদিকে মানবিক বিভাগে ৩৪ হাজার ২০৮ জন ও ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগে ৮১ হাজার ৬০ জন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে যথাক্রমে ২৮ হাজার ১২০ ও ৭৪ হাজার ১২৫ জন পাশ করেছে।
ফলাফল প্রসঙ্গে কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক কায়সার আহমেদ জানান, এ ফলাফলের কৃতিত্ব শুধুমাত্র ছাত্র-ছাত্রী, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কর্তৃপক্ষ এবং অভিভাবকদের। আগামীতেও বোর্ডের সাফল্যের ধারা অব্যাহত রাখতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সংশ্লিষ্টদের উৎসাহ এবং নির্দেশনা দেয়া হবে।

Check Also

দাউদকান্দিতে গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু

হোসাইন মোহাম্মদ দিদার :কুমিল্লার দাউদকান্দিতে শান্তা বেগম (২৪) নামে এক গৃহবধুর রহস্যজনক মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। ...

Leave a Reply