বাজেটের পূর্বেই বাজারে সিগারেটের সংকট দেখিয়ে মূল্য বৃদ্ধির অভিযোগ

সৌরভ মাহমুদ হারুন:—
গত একমাস যাবত কুমিল্লা বিভিন্ন উপজেলায় বাজেটের পূর্বেই ব্রিট্টিশ টোব্যাকো কোম্পানির বিভিন্ন ব্যান্ডের সিগারেট বেনসন,গোল্ডলিফ, স্টারফিল্ডার সহ সব সিগারেটের সংকট  কিংবা  সাপলাই না থাকার অযুহাত দেখিয়ে স্থানীয় এজেন্টরা সিগারেটের মূল্য বৃদ্ধি করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। সরেজমিনে ঘুরে,দোকানিদের অভিযোগে জানা গেছে-একমাস পূর্ব হতে প্রতিবছরের ন্যায় সিগারেট কোম্পানি গুলো এজেন্ট কিংবা সেলসম্যানরা আসন্ন বাজেটকে সামনে রেখে ব্রিট্টিশ টোব্যাকো কোম্পানি বিভিন্ন ব্যান্ডের সিগারেট বাজারে যথেষ্ট পরিমাণ সরবরাহ না করে সু-কৌশলে সংকট দেখিয়ে অধিক মুনাফা লাভের আশায় মূল্য বৃদ্ধির অভিযোগ উঠেছে। অপরদিকে ওই সমস্ত কোম্পানির প্রতিনিধিরা বলছেন উল্টো কথা,যেন বাজারে সিগারেটের কোন সংকট নেই! বরংচ কিছু অসাধু সিগারেট ব্যবসায়ী তাদের প্রয়োজনের অধিক সিগারেট ক্রয় করতে চাইলে কোম্পানির এজেন্ট তা দিতে না পারায় তারা এখন এ ধরনের কথা বলছে।
কুমিল্লা মহানগরীর কান্দিরপাড়ের বিভিন্ন দোকানিরা অভিযোগ করে বলেন যে, বেনসন প্রতিটি সিগারেটের মূল্য পূর্বে ছিল ৯ টাকা করে,বর্তমানে বাজেটের পূর্বেই বিক্রয় হচ্ছে ১০ টাকা করে! এমনি করে প্রতিটি ব্যান্ডের সিগারেটের মূল্য সেই হারে বৃদ্ধি করা হয়েছে।
কান্দিরপাড়, শাসনগাছা ,পদুয়ার বাজার বিশ্বরোড,ক্যান্টনমেন্ট, কোটবাড়ী,বুড়িচং, বরুড়া,বি-পাড়া, নাঙ্গলকোটসহ জেলার বিভিন্ন এলাকার নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন ব্যবসায়ী জানায়, তার দোকানে প্রতিদিন ৪০ থেকে ৫০টি প্যাকেট সিগারেট খুচরা বিক্রয় করা হয়। এছাড়া অন্যান্য ব্যান্ডের খুচরা বিক্রয় করা হয়। একমাস ধরে তিনি স্থানীয় এজেন্ট থেকে প্রয়োজন মাফিক সিগারেট অর্ডার দিলেও সেই মাফে সিগারেট সরবরাহ করা হয় না। যেখানে ৪/৫ কার্টুন সিগারেট এর অর্ডার দেওয়া হয়, সেখানে ৪/৫ প্যাকেট সিগারেট সরবরাহ করা হয়। তিনি আরো অভিাযোগ করেন যে, এজেন্টদেরকে জিজ্ঞেস করলে তারা জানান কোম্পানিতে মালের সংকট, যথেষ্ট পরিমাণ মাল সরবরাহ করতে পারছে না বাজারে । এছাড়া আরও অনেক ব্যবসায়ী জানিয়েছে এক শ্রেণীর মুনাফালোভী প্রতারকরা বাজেটকে কেন্দ্র করে বাজার থেকে সিগারেট উধাও করে নিয়ে গুদামে মজুদ রাখছেন। বাজেটের পর তারা অধিক লাভে বাজারজাত করবেন। যার ফলে এখন বাজারে সিগারেট সংকট দেখা দিয়েছে। এছাড়া আরো অনেক ব্যবসায়ী জানায় এজেন্ট সংকট দেখিয়ে প্রয়োজনীয় সিগারেট সরবরাহ না করলেও দেখা যায়,রাজগঞ্জ পাইকারী সিগারেট বাজারে সিগারেটের কোন সংকট নেই।
এ ব্যাপারে টোব্যাকো কোম্পানির কুমিল্লা গর্জন খোলা এলাকার এজেন্ট জুয়েল মুঠোফোনে বলেন সিগারেটের কোন সংকট নেই। এছাড়া আমাদের এই কোম্পানি সিগারেটের কোন মূল্য বৃদ্ধি করা হয়নি।’ অপরদিকে তিনি আরো বলেন যে কিছু ব্যবসায়ী বাজেটকে সামনে রেখে সিগারেট মজুদ রেখে অধিক মুনাফার আশায় তারা আগের অর্ডারের চেয়ে দ্বিগুন-তিনগুন বেশি সিগারেটের অর্ডার করা হয়। তাদেরকে এই পরিমাণ সরবরাহ না করায় এজেন্টদের প্রতি দোষ দিচ্ছেন। তিনি আরো বলেন আসন্ন বাজেটে সরকার যদি কোম্পানির ট্যাক্স বৃদ্ধি করে তবে সিগারেটের মূল্য ও বৃদ্ধি পাবে।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply