র‌্যাব-১১ সিও’র বিরুদ্ধে হুমায়ুন পরিবারের সংবাদ সম্মেলন

লাকসাম (কুমিল্লা) প্রতিনিধি:–
র‌্যাব-১১’র চাকুরীচ্যুত সিও লে. কর্ণেল তারেক সাঈদের বিরুদ্ধে লাকসাম বিএনপি’র দু’নেতা সাবেক এমপি সাইফুল ইসলাম হিরু ও হুমায়ুন কবির পারভেজকে অপহরনের অভিযোগ এনে বুধবার রাতে হুমায়ুন পারভেজের লাকসামের বাস ভবনে জনাকীর্ণ সংবাদ সম্মেলন করেছেন তার পরিবার। এ অপহরনের ঘটনায় এবার ফুঁসে উঠেছে লাকসামের সাধারন মানুষ।
সংবাদ সম্মেলনে হুমায়ুন পারভেজের স্ত্রী শাহনাজ আক্তার বলেন তার স্বামী ও চাচা শ্বশুরকে র‌্যাব-১১’র চাকুরীচ্যুত সিও লে. কর্ণেল তারেক সাঈদের নেতৃত্বে অপহরনের পর গুম করা হয়েছে। সংবাদ সম্মেলনে হুমায়ুন পারভেজের মা রাজিয়া বেগম, ছেলে শাহরিয়ার কবির, মেয়ে মাইমুনা জাহান ঈশিকা, জান্নাতুল নাইম মাইশা, পৌর বিএনপির সাধারন সম্পাদক এসএম তাজুল ইসলাম খোকন ও উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক শাহ আলম উপস্থিত ছিলেন।
সংবাদ সম্মেলনে হুমায়ুন পারভেজের স্ত্রী শাহনাজ আক্তার বলেন, গত বছরের ২৭ নভেম্বর রাতে র‌্যাব-১১ ক্রাইম প্রিভেনশনাল কোম্পানীর ডিএডি শাহজাহান আলীসহ র‌্যাবের একটি টিম আমার স্বামী ও চাচা শ্বশুরসহ ১২ জনকে র‌্যাব-১১ তুলে নিয়ে যায়। ওইসময় সাইফুল ইসলাম হিরুর ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে র‌্যাব ১৫ লাখ টাকা নিয়ে ১০জনকে লাকসাম থানায় হস্তান্তর করলেও আমার স্বামী হুমায়ুন কবির পারভেজ ও চাচা শ্বশুর সাবেক এমপি সাইফুল ইসলাম হিরুকে ফেরত দেইনি। দীর্ঘ ৫ মাস ১০ দিন  পার হলেও ওই দু’জনের সন্ধান আমরা আজও পাইনি। তিনি অভিযোগ করে বলেন ঘটনার পর র‌্যাবের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করতে গেলে পুলিশ মামলা না নিয়ে একটি নিখোঁজ সাধারন ডায়েরী এন্ট্রি করেন। হুমায়ুন পারভেজের স্ত্রীর অভিযোগ র‌্যাব-১১’র চাকুরীচ্যুত সিও লে. কর্ণেল তারেক সাঈদ তার স্বামী ও চাচা শ্বশুরকে অপহরনের ঘটনায় সরাসরি জড়িত।
এদিকে সাইফুল ইসলাম হিরুর স্ত্রী ফরিদা ইসলাম হাসি বলেন, আমার স্বামী পাঁচ মাস ধরে নিখোঁজ। তাকে আমরা ফেরত চাই। তার একমাত্র ছেলে রাফসান বলেন, আমার বাবাকে ফেরত চাই। হুমায়ুন কবির পারভেজের বৃদ্ধ বাবা রঙ্গু মিয়া ও মা রাজিয়া খাতুন পাঁচ মাস ধরে তাদের বড় ছেলের কোনো খোঁজ না পেয়ে এখন অনেকটা বাকরুদ্ধ হয়ে পড়েছেন।

Check Also

করোনাযুদ্ধে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিমকে বুড়িচংয়ে সমাহিত

বুড়িচং প্রতিনিধিঃ করোনাযুদ্ধে পুলিশে প্রথম জীবন উৎসর্গকারী কনস্টেবল জসিম উদ্দিনকে (৩৯) কুমিল্লায় সমাহিত করা হয়েছে। ...

Leave a Reply