মালয়েশিয়া শ্রমিক দিবস পালিত

মালয়েশিয়া :–

গত পহেলা মে বৃস্পতিবার আন্তর্জাতিক শ্রমিক দিবস উপলহ্মে মালয়েশিয়া আওয়ামী যুবলীগ সুংতাই বুলু শাখা কৃত্যক এক বিশাল শ্রমিক সমাবেশ  অনুষ্টিত হয়।
মালয়েশিয়া আওয়ামী যুবলীগ সুংতাই বুলু শাখার সভাপতি মোঃ আব্দুর রবের সভাপতিত্বে মালয়েশিয়া আওয়ামী যুবলীগ নেতা জহিরুল ইসলাম জহিরের চমৎকার সঞ্চালনায় বাংলা পাচার জামে মসজিদের ইমাম সাহেব মাওলানা মোঃ আজিজুল হকের পবিত্র কোরান তেলায়াতের মধ্যে অনুষ্টানের শুরুতে যারা শ্রমিকদের ন্যর্য আদায়ের জন্য জীবন দিয়েছেন তাদের স্মরনে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।
সভায় প্রধান অথিতি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির প্রেসিডিয়াম সদস্য মোঃ এনায়েত কবির চঞ্চল,প্রধান বক্তা হিসাবে উপস্থিত ছিলেন মালয়েশিয়া আওয়ামী যুবলীগের আহবায়ক এ.কামাল হোসেন চৌধুরী, বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন মালয়েশিয়া আওমীলীগের সভাপতি এ.কে.এম আলমগীর হোসেন, মালয়েশিয়া আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি আলহাজ্ব মোঃ জাকারীয়া, মালয়েশিয়া আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি মোঃ আব্দুল করিম, মালয়েশিয়া আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মো রাসেদ বাদল প্রমূহ।
প্রধান অথিতির বক্তবে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির প্রেসিডিয়াম সদস্য মোঃ এনায়েত কবির চঞ্চল বলেন  শ্রমিকদের অধিকার আদায়ের সেই ঐতিহাসিক দিন আজ মে দিবস। শ্রমিকেরা প্রতিদিন ১০ থেকে ১২ ঘণ্টা কাজ করতো ন্যায্য মজুরী পেত না। তারা মজুরি না কেটে দৈনিক ৮ ঘণ্টা শ্রম নির্ধারণের প্রথম দাবি জানায়। কিন্তু কোনো শ্রমিক সংগঠন ছিল না বলে এই দাবি জোরালো করা সম্ভব হয়নি।
১৮৮০-৮১ সালের দিকে শ্রমিকরা প্রতিষ্ঠা করে(Federation of Organized Trades and Labor Unions of the United States and Canada)[১৮৮৬ সালে নাম পরিবর্তন করে করা হয় (American Federation of Labor)| এই সংঘের মাধ্যমে শ্রমিকরা সংগঠিত হয়ে শক্তি অর্জন করতে থাকে।
১৮৮৪ সালে সংঘটি ‘৮ ঘণ্টা দৈনিক মজুরি’ নির্ধারণের প্রস্তাব পাস করে এবং মালিকও বণিক শ্রেণীকে এই প্রস্তাব কার্যকরের জন্য ১৮৮৬ সালের ১ মে পর্যন্ত সময় বেঁধে দেয়। ১ মে’কে ঘিরে প্রতিবাদ, প্রতিরোধের আয়োজন চলতে থাকে। আর শিকাগো হয়ে উঠে এই প্রতিবাদ প্রতিরোধের কেন্দ্রস্থল।
অবশেষে ১৮৮৬ সালের মে মাসের প্রথম সপ্তাহের এক সন্ধ্যাবেলায় ঝিরিঝিরি বৃষ্টির মাঝে শ্রমিকদের আন্দোলনস্থলে বোমা বিস্ফোরিত হয়, যাতে মারা যান বেশকজন পুলিশ এবং শ্রমিক। কে বা কারা বিস্ফোরণ ঘটিয়েছিল তা জানা যায়নি, তবে পেটোয়া বাহিনী শ্রমিকদের ওপর চড়াও হয়ে ১১ জনকে হত্যা করে। সেই শ্রমিকদের আত্মদান বৃথা যায়নি। তাদের দাবিগুলো পূরণ হয়েছিল। আজও তাদের আত্মত্যাগের কথা স্মরণ করি আমরা প্রতি বছরের মে মাসের প্রথম দিনে তাই শ্রমিকরা এ দিনটি যুগ-যুগান্তরে স্মরন করবে এ দিনটি প্রধান অতিথি আরো উল্লেক করেন মালয়েশিয়া ২০০৮ সালের পর যে মালয়েশিয়া সরকার বাংলাদেশ থেকে শ্রমিক নিয়োগের যে নিষেজ্ঞাগা আরোপ করেছিল পরবর্তিতে বাংলাদেশ সরকার ও মালয়েশিয়া সরকারের মধ্যে চালো  হয়েছে জিটুজি অথ্যাৎ সরকার টু সরকার শ্রমীক আসবে কিন্ত আমার মনে হয় সরকার টু সরকার প্রতা ব্যর্থ হয়েছে কারণ কয়েক বছরে মনে হয না এক হাজার শ্রমিক মালয়েশিয়া আসতে পেরেছে, এ সুযোগে বাংলাদেশের শ্রম বাজার দখল করেছে নেপাল মায়ারমার ও শ্রিলংকা, যেখানে বাংলাদেশী শ্রমিকের প্রচুর চাহিদা রয়েছে সেখানে আমরা কেন সরকার টু সরকার প্রথা চালু রেখে আমাদের সম্ভবনার শ্রম বাজার হারাতে বসেছি তিনি আরো উল্লেখ করেন আমি মালয়েশিয়ার কয়েক জন ব্যবসায়ীর সঙ্গে আলাপ করে বুঝতে পারলাম মালয়েশিয়া বাংলাদেশী শ্রমিকদের কাজের হ্মের্থে অনেক সুনাম রয়েছে তাই আমি আমাদের মানণীয় প্রধান মন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার কাছে এ জন্য অনুরোধ জানাব বলে প্রবাসীদের আস্বাস দেন।
আমন্ত্রিত অথিতির বক্তবে বাংলাদেশ হাই কমিশন কুয়ালালাম-পুরের লেবার কাউন্সিলর বাবু মন্টু কুমার বলেন আমি মালয়েশিয়া আমার এ দীর্ঘ চাকুরীর সুবাদে মালয়েশিয়া প্রবাসী শ্রমিকদের যে সহ-যোগিতা পেয়েছি তা আমার জবিনে স্বর্ণা অহ্মরে লেখা থাকবে তিনি প্রবাসীদের উদ্দেস্য বলেন আপনাদের সুবিদা অসুবিদায় আমি যত দিন আছি সব সময় আপনাদের হ্মেদমত করার চেষ্টা করিব যদি আমাদের হাই কমিশনে জনবলের সংকট রয়েছে তার পরও আমরা যথা সাধ্য চেষ্টা করিব আপনাদের সহ-যোগিতা করার জন্য।
বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ ছাএলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সম্পাদক আলহাজ্ব মোঃ শাহ্ রিয়ার আলম সোহাগ,মালয়েশিয়া যুবলীগ নেতা মোঃ মোস্তফা তালুকদার, বাবলা মজুমদার,সতেশ খান্না বিদুৎ, আবু-হানিফ,মনসুর আল বাসার সোহেল, বাবু বিজন মজুমদার,
আরো বক্তব্য রাখেন মালয়েশিয়া আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ আবুল হোসেন. আওয়ামীলীগ নেতা শফিকুল ইসলাম ,মালয়েশিয়া আওয়ামীলীগের  প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক শাখাওয়াত হোসেন জোসেফ, তথ্য ও গভেষণা সম্পাদক এম.আমজাদ চৌরুরী রুনু, মালয়েশিয়া যুবলীগ নেতা মোঃ মাহাবুবুর রহমান রুবেল, মোঃ ইমাম হোসেন রানা, শাহাদাৎ হোসেন সাব্বির রেজাউল হক লায়ন, ছাএলীগ আহবায়ক আমিনুল ইসলাম ড্যানিস, শ্রমিকলীগ নেতা মোঃ জাকির হোসেন,সুংগাই বুলু যুবলীগের উপদেষ্টা মীর মোঃ ছালাম, সাধারণ সম্পাদক আক্তারুজ্জামান আক্তার  মোঃ আব্দুল মুমীন,মোঃ দুলাল, , মোঃ জহির রায়হান প্রমূহ।

Check Also

রিয়াদে জ্যাবের ‘অমর একুশে’ আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

ষ্টাফ রির্পোটার :– “অমর একুশের চেতনায় গন মানুষের মনে জেগে উঠুক উজ্জলতা উৎকৃষ্টতা” শীর্ষক আলোচনা ...

Leave a Reply